প্লিজ ভাইয়া কেউ এরিয়ে যাবেন না, আমি আপনাদের কাছে খুব জরুরী আইনি পরামর্শ চাচ্ছি....?
 (174 পয়েন্ট)

জিজ্ঞাসার সময়

ভাইয়া, আমার সাথে এক মেয়ের রিলেশন হয় ৪ মাস আগে। আমরা ২ মাস আগে আবেগে শারীরিক সম্পক করি। এতে মেয়েটা হঠাৎ চেকআপ ধরা পরে যে, ২ মাসের গর্ভবতী। মেয়ের অভিবাবক আমাকে বিয়ের জন্য চাপ দেন । আমি বিয়ে করতে রাজি আছি, কিন্তু আমার দেনমোহরে সামর্থ্য ৫০ হাজার থেখে ১ লক্ষ টাকা। কিন্তু মেয়ের অভিবাবক আমাকে ১০ লক্ষ টাকার কাবিন নামা করতে বলে এবং না করলে আমাকে নাকি তারা ধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত করবে। আমি এখনও ছাত্র ভাইয়া। এদিকে মেয়েটা বাসার চাপে আমাকে আর দেখতে পায় না তেমন, তবে আবার বিয়ে করে রাথতে চায়? আমি এখন কি করবো ভাইয়া? প্লিজ ভাইয়ারা/ আপুরা আপনারা মুল্যবান পরামর্শ দিয়ে আমাকে বাচান আমার কি করা উচিঃ??

2 Answers

 (2224 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

যেহেতু মেয়েটা গর্ভবতী , সেহেতু এখন কাবিন নিয়া মাথা না ঘামিয়ে ওকে আগে বিয়ে করুন । যদি সংসার সুখের হয় , তাহলে মোহরানা কোন বিষয় নয় । কিন্তু বিয়ে না করলে মেয়ের জীবন তো শেষ হয়ে যাবে । আপনি বিয়ের আগেই sex করেছেন , যেটা ইসলামিক দৃষ্টিতে হারাম ॥ ভুলের মাশুল তো দিতে হয়ই । এখন সাত পাঁচ ভেবে  লাভ নাই । বিয়ে না করলে মামলা ও দিতে পারে । 
 (18073 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

দেখুন,তারা যেহেতু দেনমোহর কমাবেই না,কাজেই আপনি তাতে রাজি হয়ে যেতেই পারেন। কারণ আপনি দেনমোহর এখুনি প্রদান না করলেও চলবে।।আপনি কিছু বছর/মাস সময় নিয়ে এটি পরিশোধ করতে পারবেন।আপনি যদি তাকে বিয়ে করতে রাজি থাকেন তাহলে এটিই সর্বোত্তম উপায়। কিন্তু যদি এই মোহর পরিশোধ করতে আপনি একেবারেই নারাজ হন,তাহলে আপনি একজন আইনজীবীর সাহায্য নিন।যদি তারা মামলা করতে চান তাহলে সেই মামলা বিভিন্ন পারিপার্শ্বিক কারণে যদি প্রমাণিত না হয় তার মানে এর অর্থ এই না যে এটি মিথ্যা মামলা।।আর যদি তারা মিথ্যে মামলা করে তাহলে তারাই এর ফল ভুগবে। কিন্তু যদি তারা কোনোভাবে তাদের অভিযোগ প্রমাণ করতে সক্ষম হয় তাহলে বাংলাদেশী দন্ডবিধির ১৮৬০ ধারা ৩৭৫  অনুসারে আপনাকে শাস্তি পেতে হবে।কাজেই হয় আপনি তাদের কথা মেনে নিন,নইলে আইনের সাহায্য নিন।
সম্পর্কিত প্রশ্নসমূহ
Loading interface...
জনপ্রিয় টপিকসমূহ
Loading interface...