4 Answers

 (156 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

এটা কয়েকজন যুবকের এমন এক আশ্চর্যজনক কাহিনী যারা রোমান সম্রাট ডেসিয়াস কর্তৃক নিপীড়ন (খ্রিস্টান তথা হযরত ঈসা (আঃ)-র প্রতি ঈমান আনার কারণে) হতে বাঁচার জন্যে একটি গুহায় আশ্রয় নেয়। তবে তারা কয়জন এ ব্যাপারে ইসলামে সুনির্দিষ্টভাবে কিছু বলা হয়নি যদিও খ্রিস্টানরা বলে সাতজন। তাদের নাম-ও কেউ জানে না। আর কুকুরটির কথা বললে তো তার নামও কারোর জানার কথা নয়। এছাড়া আমার কথার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য আপনি আল-কুরআনে সূরা কাহফের ৯ থেকে ২৬ আয়াত পড়তে পারেন। 
 (18073 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

‘আসহাবে কাহাফ’ অর্থ ‘গুহাবাসী।আল কাহফ  সূরাটি কুরআনে পাকের ১৮ তম সূরা৷ কাহাফ মানে গুহা। আর আসহাবে কাহাফ মানে গুহাবাসী।আসহাবে কাহফ ছিলেন ৭ জন।তারা হলেনঃ১.ইয়ামলীহা ২.মাকছালীনা ৩.মিছলীনা ৪.মারনুশ ৫.দাবারনুশ ৬.শাযানুশ ৭.কাফাশতাতাইউশ 

কুকুরটির নাম.কিতমীর।

 (101 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

আসহাব অর্থ মানুষ এবং কাহফ অর্থ গুহা। সুতরাং 'আসহাবে কাহফ' অর্থ 'গুহামানব'।  তারা কয়জন ছিল তা নিয়ে বিতর্ক আছে। কেউ বলে ৩ জন, কেউ বলে ৫ জন, কেউ বলে ৭ জন। আসলে তা কেউই জানে না। নামও না, সংখ্যাও না, কুকুরটার নামও না। তবে খ্রিস্টানরা ৭ জনই বলে থাকে। এ website-এ যেতে পারেন- https://bn.m.wikipedia.org/wiki/%E0%A6%86%E0%A6%B8%E0%A6%B9%E0%A6%BE%E0%A6%AC%E0%A7%87_%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%B9%E0%A6%AB#%E0%A6%87%E0%A6%B8%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%AE%E0%A7%80_%E0%A6%AC%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%96%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE
 (12508 পয়েন্ট) জ্ঞান অন্বেষনে তৃষ্ণার্ত! জ্ঞানের জন্য জ্ঞানকে ভালোবাসি, জ্ঞানের জন্যই সাধনা-সিদ্ধির প্রচেষ্টা করি।

উত্তরের সময় 

কাহাফ মানে গুহা। আর আসহাবে কাহাফ মানে গুহাবাসী। কাহাফ বলা হয় পাহাড়ের গুহাকে। সেখানে যুবকরা লুকিয়ে গিয়েছিল। আসহাবে কাহাফ কতজন? তাঁদের নাম কী? তাঁদের সাথী কুকুরটির নাম কী? এ নিয়ে অনেক মতামত পাওয়া যায়। কোরআনের বানীঃ কেউ কেউ বলবে, তারা ছিল তিনজন, তাদের চতুর্থটি ছিল তাদের কুকুর এবং কেউ কেউ বলবে, তারা ছিল পাঁচজন, তাদের ষষ্ঠটি ছিল তাদের কুকুর, গায়েবী বিষয়ে অনুমানের উপর নির্ভর করে। আবার কেউ কেউ বলবে, তারা ছিল সাতজন, তাদের অষ্টমটি ছিল তাদের কুকুর। বলুন, আমার রবই তাদের সংখ্যা ভালো জানেন; তাদের সংখ্যা কম সংখ্যক লোকই জানে। সুতরাং সাধারণ আলোচনা ছাড়া আপনি তাদের বিষয়ে বিতর্ক করবেন না এবং এদের কাউকেও তাদের বিষয়ে জিজ্ঞেস করবেন না। (আল-কাহাফঃ ২২) ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু আনহুমা বলতেনঃ আমি সেই কম সংখ্যক লোকদের অন্যতম যারা তাদের সংখ্যা জানে, তারা সংখ্যায় ছিল সাতজন। আল্লাহ তাআলা তাদের সংখ্যা অস্পষ্ট রেখেছেন। আল্লাহ তাআলা বলেছেনঃ ওরা ছিল কয়েকজন যুবক, ওরা ওদের প্রতিপালকের প্রতি ঈমান এনেছিল। তাদের সংখ্যা বর্ণনা যদি সমধিক গুরুত্বপূর্ণ হত তবে দৃশ্যমান ও অদৃশ্য সকল বিষয়ে অবগত মহান আল্লাহ তাআলা সূরার প্রারম্ভেই ওদের সংখ্যার বিবরণ দিতেন। অর্থাৎ প্রতিপালকই ওদের সংখ্যা নাম ভাল জানেন। আয়াতে “রকীম” দ্বারা উদ্দেশ্য কী এ নিয়ে অনেক মতামত পাওয়া যায়। কেউ বলেছেন, কুকুরের নাম রকীম। শুআয়ব আল জুবাঈ বলেন, তাদের কুকুরের নাম ছিল হামরান।
সম্পর্কিত প্রশ্নসমূহ

Loading...

জনপ্রিয় বিভাগসমূহ

Loading...