আমার গালে একটি নখের আচড়ার বড় দাগ আছে।কিভাবে এইটা মুছাবো প্লিজ কেও বলেন?
 (168 পয়েন্ট) 

জিজ্ঞাসার সময়

6 Answer

 (62 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

নিম ও তুলসী মিশিয়ে মূখে লাগান | ১০-১২ দিনের মধ৽েই ফল পাবেন |
 (342 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

*অাপনি স্কিন বিশেষজ্ঞ কোন ডাক্তারের পরামর্শ নিতে পারেন। *তারা হয়তোবা কোন ক্রিম দিতে পারে, যেটা ব্যবহারে অাপনার সমস্যা সমাধান হতে পারে। #তার পরও যদি সমাধান না হয় প্রয়োজনে অামাকে প্রাইভেট মেসেজ করতে পারেন, অামার কাছে একটা প্রাকৃতিক মেডেসিন অাছে যেটা ব্যবহার করলে জন্মগত দাগ ছাড়া যে কোন দাগ মুছে যায়। প্রাইজ টা একটু বেশি পড়বে তাই, অন্য ভাবে চেষ্টা করে দেখুন, সমাধান না হলে অামাকে মেসেজ করুন।
 (4698 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

২ চামচ বেসন, ১ চা চামচ কাঁচা হলুদ বাটা, ১ চা চামচ কমলার খোসা বাটা একসাথে মিশিয়ে পেষ্ট তৈরি করুন। এবার এটা মুখে মাখিয়ে রেখে ১৫-২০ মিনিট পর মুখ ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে দাগ দুর হবে।

 (18073 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

আপনি নিচের টিপস গুলি ফলো করুন:

  • এলোভেরার জেল এবং মধু একত্রে করে মুখে লাগান দিনে দুইবার। এটি প্রতিদিন পুরো মুখেই লাগাবেন।
  • আলুর রস এবং সামান্য গোলাপজল একত্রে করে মুখের দাগ যুক্ত স্থানে লাগান। 
  • মুলতানি মাটি,সামান্য লেবুর রস এবং সামান্য হলুদ পেস্ট করে সপ্তাহে অন্তত দুইদিন লাগান। খুব ভাল ফল পাবেন। 
  • নিমের পাতা শুকিয়ে সেটি গুড়ো করে আলুর রসের সাথে মিক্সড করেও লাগাতে পারেন। 
  • সব থেকে ভাল ফল পাবেন দাগের স্থানে রসুন ঘষলে। 
  • আপনি ফ্রিজের আইস বক্সে কিছু রসুন বাটা রেখে দিন এবং তা বরফের আকার ধারণ করলে সেই বরফ দাগের স্থানে লাগান। দেখবেন আপনার দাগ চলে গেছে খুব দ্রুত।
 (2299 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

আপনি নিচের নিয়মগুলো মেনে চলুন:

  • লেবু ও শসার রসএকটি গোটা লেবু চিপে নিন। এতে একটি মাঝারি আকারের শসার চার ভাগের এক ভাগ অংশের রস বের করে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি আক্রান্ত জায়গায় আলতো ঘষে লাগান। দিনে অন্তত ৩ বার লাগাবেন। লেবুর সাইট্রিক অ্যাসিড নতুন কোষ গঠনে সাহায্য করবে আর শসার রস দাগ হালকা করবে।
  • অ্যালোভেরার রস অ্যালভেরাকে বলা হয় জাদুকরি গাছ। এর পাতার রসের অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি উপাদান গভীর দাগ দূর করতে অনেক কার্যকরী। তাজা অ্যালভেরা পাতার রস দিনে ২/৩ বার আক্রান্ত স্থানে লাগান। নিয়মিত লাগাবেন। কিছুদিনের মধ্যেই দাগ হালকা হতে শুরু করবে। 
  • পেঁয়াজ কিংবা রসুনের রস অনেক আগে থেকেই দাগ দূর করতে ব্যবহার করা হচ্ছে । পেঁয়াজ অথবা রসুনের রসের অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি ও অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদানের জন্য বেশ জনপ্রিয়। যে কোন ধরনের দাগ দূর করতে এদের জুড়ি নেই। তবে নিয়মিত ব্যবহার না করলে কাজ হতে বেশ দেরি হয়। সুতরাং প্রতিদিন অন্তত ৩/৪ বার তাজা পেঁয়াজ বা রসুনের রস লাগাবেন আক্রান্ত স্থানে। 
  • দাগ দূর হবে ও নতুন কোষ হতে সাহায্য করবে। নিমের পাতানিমে গাছে ডাল ও পাতা যে কোন বড় ধরনের অসুখ দূর করতে যেমন কার্যকরী তেমনই গভীর দাগ দূর করতেও বেশ কার্যকরী। এর অ্যান্টিফাঙ্গাল উপাদান আক্রান্ত স্থানের অস্বাভাবিক কোষ দূর করে। দিনে অন্তত ২ বার নিম পাতা বাটা আক্রান্ত স্থানে লাগান। পাশাপাশি একটি বড় পাত্রে পানি দিয়ে ৩০/৪০ টি নিম পাতা সিদ্ধ করে সেই পানি গোসলের কাজে ব্যাবহার করুন।
  • দাগে টুটপেস্ট লাগিয়ে রাখুন।
  • দাগের উপর মধু ম্যাসাজ করুন।
 (6842 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

আপনি দাগ দূর করার জন্যে নিম্নোক্ত কিছু কাজ করুন (→)

  1. সামান্য মধু ও দারুচিনির গুড়ো ত্বকে লাগাতে মিশিয়ে ত্বকে লাগাতে পারেন। 
  2. ত্বকে গরম জলে ভাপ নিতে পারেন এতে ব্যাথা দূর হবে। 
  3. ২ চামচ বেসন, ১ চা চামচ কাঁচা হলুদ বাটা, ১ চা চামচ কমলার খোসা বাটা একসাথে মিশিয়ে পেষ্ট তৈরি করুন।    
  4. টমেটো ব্লেন্ড করে রস এর সাথে লেবুর রস মিশিয়ে তুলো দিয়ে মুখে লাগিয়ে ১০ মিনিট পর ধুয়ে নিতে পারেন৷ 
Recent Questions
Loading interface...