আমি কখনো রান্না করিনি ,কিভাবে আলু আর মাছ রান্না করবো ।?
 (12 পয়েন্ট)

জিজ্ঞাসার সময়

4 Answers

 (105 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

উপকরন ও পরিমানঃ 
– কয়েকটা টুকরা রুই মাছ (যারা না ভেজে মাছ খেতে পারেন না আপনারা তেলে হালকা ভেঁজে নিতে পারেন তবে আমি তাজা মাছ কখনো ভেজে রান্নার পক্ষে নই)
– কয়েকটা আলু
– দুইটা/তিনটে মাঝারি পেঁয়াজ কুঁচি
– রসুন বাটা, এক টেবিল চামচ
– আদা বাটা, এক চা চামচ
– জিরা গুড়া, এক চিমটি
– হাফ চা চামচ হলুদ গুড়া
– কয়েকটা শুকনা লাল মরিচ
– লবন, পরিমান মত, শুরুতে কম দিয়েই রান্না শুরু করা উচিত, লাগলে পরে দিতে পারবেন
– পানি, পরিমান মত
– তেল, পরিমান মত

প্রণালী:
মাছ ভেজে নিন তারপর আলু সাথে সব মসলা এক সাথে মাখিয়ে নিন। পরিমান মত পানি দিয়ে চুলায় চাপিয়ে দিন। যখন মনে হবে তরকারি হতে ৮ মিনিট বাকি আছে তখন মাছ তরকারিতে দিয়ে ৮ মিনিট জাল দিয়ে নামিয়ে নিলেই হবে।
 (24 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

১।আলু  ছোট করে কেটে মাছ এবং আলু এক সাথে পরিমানমত লবন,মরিচ,মসলা দিয়ে মেখে পরিমানমত জ্বাল দিলেই রান্না হয়ে গেল।

২।আগে মাছ ভেজে নিয়ে আলু সিদ্ধ করে কসানোর পর ভাজামাছ ছেড়ে দিয়ে পরিমানমত জ্বাল দিলেই রান্না হয়ে গেল।


আলু মাছ একত্রে ও রান্না করা যায়।
 (521 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

ধরুন এক জন মানুষ এর জন্য আপনি মাছ ও আলুর কারি তৈরি করবেন। 

আমরা ব্যাচেলর জীবনে যা করে থাকি। 

দুটো আলু নিন মাঝারি আকারের, যেমন খুশি আকার দিয়ে কাটুন। 

দুই টুকরো মাঝারি আকারের মাছ নিয়ে লবন দিয়ে মধ্যম প্রকারের ভেজে তুলুন। বেশী ভেজে সময় নষ্ট করার দরকার নাই ।

আধা লিটার পানি বা এর চেয়ে একটু বেশী পাতিলে নিয়ে চুলোয় বসিয়ে দিন। পানি গরম হতে হতে পেঁয়াজ, রসুন, কাঁচা মরিচ কেটে ফেলুন। 

আলু, পেয়াজ, রসুন, মরিচ এক সাথে গরম পানিতে ঢেলে দিয়ে তেল ও পরিমাণ মত দিয়ে দিন। এর পর হলুদ দিন। 

আলু সেদ্ধ হয়ে গেলে তাতে মাছ দিয়ে দিন। ৫/৭মিনিট পর ধনিয়া গুড়া দিয়ে ঝোল ঘন হয়ে আসলে জিহবা দিয়ে ছেকে দেখুন। 

সুবিধা মত মনে হলে চুলা বন্ধ করে ফেলুন। 

 (19 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

আপনি প্রথমে মাছ গুলো সরিষা তেল দিয়ে কড়া করে লাল করে ভেজে নিন ,তারপর পেয়াঁজ ২5o গ্রাম ,150 গ্রাম কাঁচা লঙ্কা ২ কোঁয়া রসুন ,সামান্য আদা বাঁটা ,ও জীরা বাঁটা ,কাঁচা লঙ্কা গুলো ফাটিয়ে নিন ,মোটা করে পেঁয়াজ কেটে নিন , এবার সরিষা তেল কড়াইতে দিয়ে ,তেল গরম হয়ে গেলে কাঁচা লঙ্কা দিয়ে দিন কাঁচা লঙ্কা ভাজা হয়ে গেলে সুন্দর একটা সূগন্ধ আসবে তখন পেঁয়াজ আর রসুনটাও দিয়ে দিতে হবে পেঁয়াজ গুলো বেশী ভাজেবেন না যাতে সে গুলো পুরে না যায় , পেঁয়াজ ভাজা হয়ে গেলে আলু দিয়ে দিতে হবে ,অালু দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে লবণ ,হলুদ, আদা বাটা ,জীরা বাটা দিয়ে ঢেকে দিন মাঝে মাঝে ঢাকনা তুলে দেখতে হবে আলু যাতে লেগে না যায় আলু সিদ্ধ হয়ে গেলে ভাজা মাছ গুলো দিয়ে দিতে হবে আর জল দেবেন এক গ্লাস তরকারিতে জল বেশী দেবেন না আর জল কিন্ত গরম জল দেবেন তরকারিতে গরম জল দিলে তরকারির স্বাদ অনেকটাই বেড়ে যায় জল খুব ফুটে উঠবে কিছুক্ষন পরে নামিয়ে নেবেন একটু গরম মশলা দিয়ে দেবেন তরকারি একদম রেডি এবার শুধু খেয়ে নেওয়ার পালা  ৷
সম্পর্কিত প্রশ্নসমূহ
Loading interface...
জনপ্রিয় টপিকসমূহ
Loading interface...