3 Answers

 (2298 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

ছবিসহকারে দিলাম।।।।।।।।।।।।

 (12511 পয়েন্ট) জ্ঞান অন্বেষনে তৃষ্ণার্ত! জ্ঞানের জন্য জ্ঞানকে ভালোবাসি, জ্ঞানের জন্যই সাধনা-সিদ্ধির প্রচেষ্টা করি।

উত্তরের সময় 

ইশরাক অর্থ চমকিত হওয়া। সূর্যোদয়ের পরপরই প্রথম প্রহরের শুরুতে পড়লে একে সালাতুল ইশরাক বলা হয়। এবং কিছু পরে দ্বিপ্রহরের পূর্বে পড়লে তাকে সালাতুয যোহা বা চাশতের সালাত বলা হয়। এই সালাত বাড়ীতে পড়া মুস্তাহাব। এটি সর্বদা পড়া এবং আবশ্যিক গণ্য করা ঠিক নয়। কেননা আল্লাহর রাসূল (সাঃ) কখনো পড়তেন, কখনো ছাড়তেন। সাভাবিক নিয়মে অর্থাৎ দুই দুই রাকাআত করে আদায় করবেন। ফযীলতঃ আনাস (রাঃ) হতে বর্ণিত রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেন, যে ব্যক্তি ফজরের সালাত জামাআতে পড়ে, অতঃপর সূর্য ওঠা পর্যন্ত আল্লাহর যিকরে বসে থাকে, অতঃপর দুই রাকআত সালাত আদায় করে, তার জন্য পূর্ণ একটি হজ্জ ও ওমরাহর নেকী হয়।
 (3126 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

ইশরাক অর্থ চমকিত হওয়া।

এই নামাজের ওয়াক্ত সূর্যোদয়ের পর হইতে বৃক্ষের মাথায় সূর্য উঠা পর্যন্ত থাকে। এই নামাজ চার রাকাত, তবে দুই রাকাতও আদায় করা যায়। এ নামাজে সূরা ফাতেহার পর যেকোন সূরা মিলিয়ে পড়া যায়।

নিয়তঃ নাওয়াইতুআন্ উছাল্লিয়া লিল্লাহি তায়ালা রকায়া'তায় ছলাতিল ইশরাক্বি সুন্নাতু রসূলুল্লাহু তায়া'লা মুতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কা'বাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার।

ফজিলতঃ (১) রসূল (সঃ) বলেছেন, যেই ব্যক্তি ফজরের নামাজ আদায় করত-- সূর্য্য উদয় পর্যন্ত আল্লাহ তায়ালার জিকিরে মশগুল থেকে সূর্যোদয়ের পরে দুই রাকাত নামাজ আদায় করবে, সেই ব্যক্তি একটি হজ্জ ও একটি ওমরার সওয়াব পাইবে। (তিবরাণী)

(২) তিনি আরও বলেন, যেই ব্যক্তি ফজরের নামাজ আদায় করত-- সূর্য্য উদয় পর্যন্ত আল্লাহ তায়ালার জিকিরে মশগুল থেকে সূর্যোদয়ের পরে দুই রাকাত এশরাক নামাজ আদায় করবে তার সমস্ত গুনাহ ক্ষমা করা হয়। (আহমদ)
সম্পর্কিত প্রশ্নসমূহ

Loading...

জনপ্রিয় বিভাগসমূহ

Loading...