আমি একটা মেয়েকে খুব পছন্দ করি...কিন্তু কিভাবে বলবো? আমি এবং যে মেয়েটিকে আমি পছন্দ করি দুজনেই একই মেডিকেলে একই সেকশনে পড়াশুনা করি।জীবনে এই প্রথম কোনো মেয়েকে এত ভালো লাগলো।ক্লাসে কখনো কথা বলা হয়নি।ফেবুকে হালকা নরমাল কথা হলো।যা প্রশ্ন করলাম শুধু সেটুকোই রিপ্লে  দিলো...ওকে বাট কথা কন্টিনুয়াসলি কিভাবে বলবো? আগে কখনো কোনো মেয়ের সাথে এভাবে কথা বলিনি।তাই কেউ যদি হেল্প করতেন কিভাবে তার সাথে ফ্রি হতে পারি,কি বিষয়ে কথা বলতে পারি......!!  ধন্যবাদ!  আমি এবং যে মেয়েটিকে আমি পছন্দ করি দুজনেই একই মেডিকেলে একই সেকশনে পড়াশুনা করি।জীবনে এই প্রথম কোনো মেয়েকে এত ভালো লাগলো।ক্লাসে কখনো কথা বলা হয়নি।ফেবুকে হালকা নরমাল কথা হলো।যা প্রশ্ন করলাম শুধু সেটুকোই রিপ্লে  দিলো...ওকে বাট কথা কন্টিনুয়াসলি কিভাবে বলবো? আগে কখনো কোনো মেয়ের সাথে এভাবে কথা বলিনি।তাই কেউ যদি হেল্প করতেন কিভাবে তার সাথে ফ্রি হতে পারি,কি বিষয়ে কথা বলতে পারি......!!  ধন্যবাদ! 
জিজ্ঞাসা করেছেন
বিভাগ:
4 টি উত্তর
হ্যা অবশ্যয় আপনি প্রেম করতে পারেন আর প্রথিবির  উওম জীব হল মানুষ  আপনি আপনার ভাল চরিত্রেয়       পরিচয় দিবেন আর মেয়েটি দেখাতে ভাল লাগা থেকে ভালবাসা আর ভালবাসা থেকে মহাব্বত সৃষ্টি হয় আপনি আগে মেয়েটির  সম্পকে জানোন তার পরে ভালবাসবেন আর প্রেমের কথা একটু করে বলবেন 
যেভাবেই হোক মেয়েটির সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক করুন। এবং মেয়েটি কে বিভিন্ন ভাবে সাহায্য করুন । এটা বুঝান যে আপনি তাকে পছন্দ করেন । যেহেতু আপনার সাথে মেয়েটিও পড়ে, তাই খুব সহজে বন্ধুত্ব করতে পারবেন। তারপর অনেক ভালো ভালো কথা বলবেন, মাঝে মাঝে সবাই মিলে ঘুরতে যাবেন। এভাবে কিছুদিন যাওয়ার পর সুবিধা মনে হলে তাকে সরাসরি প্রপোজ করবেন।

প্রেম সকলের জীবনে একবার হলেও আসে। সেটা কারো জীবনে বার বার আসে আর কেউ আবার একটা প্রেমেই জীবন কাটিয়ে দেয়। প্রেম একবার আসুক বা,বার বার আসুক কথাটা একই। আপনার ক্ষেত্রে লক্ষ্য করছি, আপনি তার সাথে কথা বলছেন!  অনেক সুন্দর কথা। মনে রাখবেন ছোট ছোট কথা বলতে বলতে একদিন তার সাথে ভালোভাবে কথা বলতে পারবেন। আপনার বিষয়টি সুমুদ্রের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র পানির সাথে তুলনা করা যেতে পারে। প্রেমের ক্ষেত্রে অল্প কথা প্রথম প্রথম বলাই ভালো পরে দেখবেন সেটা আর কোন সমস্যা হবে না (কথা বলতে)। প্রথমেই বেশি কথা বললে দু'জন দু'জনের প্রতি আকর্ষণ হারাবেন। সেই জন্য আপনার উচিৎ হবে তার সাথে প্রথম প্রথম বেশি কথা না বলা। দিন বৃদ্ধির সাথে সাথে তার কথা বলা একটু একটু করে বৃদ্ধি করবেন।




আপনার প্রেশ্নের উত্তর নিচে দেওয়া হলো★↓
নিচের কাজটি করতে হলে দুইটা জিনিস খুব প্রয়োজন
  1. আত্মবিশ্বাস
  2. সাহস
এই দুইটা জিনিস যদি আপনার কাছে থাকে তবে আপনি চাইলেই তার সাথে কথা বলতে পারেন। মনে রাখবেন কথা বলতে টাকা/পয়সা লাগে না। কথা বলতে কোন মানুষের সাহায্য নিতে হয় না। সেটা আমাদের মনের ভাব থেকে বেড়িয়ে আসে। মনের এই ভাব প্রকাশের জন্য অনেক সময় নিজের উপর আত্মবিশ্বাস রাখার সাথে সাহসের পরিচয় দিতে হয়। আপনি যদি এই দুইটা জিনিস যথাযথ ভাবে ব্যাবহার না করেন তবে কোন দিন তার সাথে ভালোভাবে কথা বলতে পারবেন না। 

তার সাথে ফ্রি হতে গেলে★
তার সাথে আগে ভালো আচরণ করুণ। তারপর আপনি তার সাথে একান্তে বা মুক্ত পরিবেশে কথা বলতে পারেন। তার বিশ্বাস অর্জন করুন।
তার সাথে আচরণ ভালো করুণ। দেখবেন   তার সাথে ফ্রি হবার পথ আপনা আপনি খুলে গেছে।  


ছোট খাটো বিষয়ে জিজ্ঞাস করুন (ক্লাসে)- ক্লাসে যদি ভালোভাবে কথা বলেন বা জিজ্ঞাসা করেন নম্র/ভদ্র ভাবে তাকে ছোট খাটো বিষয়ে তবে দেখা যাবে এই ছোট খাটো প্রশ্ন একদিন হয়ে উঠবে আপনার জন্য অনেক সূখের। 
বাহিরে গিয়ে তাকে হাসান: কে না হাসতে ভালোবাসে
। মানুষ মাত্রই ভালো কথা/মজার কথা শুনলে হাসি আটকায় কে? আপনি তাকে মাঝে মধ্যে মজার কথা বলে হাসাতে পারেন। সে হাসলে আপনি ১ ধাপ এগিয়ে গেলেন।  সেখানে আর কোন সমস্যাই হলো না।
তার সমন্ধের সব কিছু জানুন।★↓
আপনি যদি তার সমন্ধে জানার জন্য তার সাথে কথা বলেন এবং আপনার সমন্ধে কৌতুহল রাখেন তবে দেখবেন আপনাকে উপর দিয়ে বলতে হবে না  সে উপর  উপর দিয়ে আপনাকে বলবে। আপনি যদি তাকে সবসময় বিপদে আপদে বাচান তার সাথে খাপ খাইয়ে চলেন তবে কথা বলা আরো সহজ হয়ে যাবে।
ভালোভাসা হয় দুজনের সম্মতিতে। আপনি তার সাথে যোগাযোগ করেন। আপনি তার সাথে যোগাযোগ চালিয়ে যান। আপনার উচিত তার সাথে প্রথমে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক স্থাপন করা। ক্লাসে তার সাথে ভালো আচরণ করুন। এটি একধরনের সর্বোত্তম পন্থা। তার বিশ্বাস অর্জন করার চেষ্টা করুন। তার কাজে সঙ্গ দিন এবং বিভিন্ন কাজে সহায়তা করুন। এগুলোর মাধ্যমে আপনি দ্রুত তার সাথে ফ্রি হতে পারবেন।  ক্লাসে আপনি তাকে তার পরিবার ও তার ভালোলাগা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করতে পারেন। আপনি এই কিছু প্রশ্নের মাধ্যমে খুব দ্রুত তার বিশ্বাস অর্জন করতে পারবেন৷   আপনি আত্মবিশ্বাস ও সাহস নিয়ে কাজগুলো করুন। এছাড়া তার ভালোলাগা পছন্দ ও অপছন্দ সম্পর্কে জানুন। এর ফলে আপনাদের মধ্যে বন্ধন দৃঢ় হবে। তার পছন্দ ও অপছন্দ গুলোর মর্যাদা দিন। এছাড়া আপনারা কোন জায়গা থেকে ঘুরে আসতে পারেন। এরপর সঠিক সময়ে প্রপোজ করুন।