ঘি কিভাবে তৈরি করা হয়? ঘি খাওয়ার উপকারিতা বা অপকারিতাগুলো কী কী?

ঘি কিভাবে তৈরি করা হয়? ঘি খাওয়ার উপকারিতা বা অপকারিতাগুলো কী কী?
বিভাগ: 
Share

1 টি উত্তর

তরল দুধ একটা ছড়ানো পাত্রে ফ্রিজে রেখে দিন অন্তত ৩/৪ ঘন্টা। এরপর দুধের পাত্রটা সাবধানে বের করে নিন, নাড়া যাতে না লাগে। দেখুন যে, দুধের উপরে ঘন করে মালাই পড়েছে। এখন ওই মালাই বা দুধের তেল একটা চামচ দিয়ে একটা পাত্রে তুলে নিন। যে পাত্রে মালাই তুলবেন সেটা ডিপ ফ্রিজে রেখে দিন। এভাবে আস্তে আস্তে অনেকটা  জমিয়ে নিন। বেশ খানিকটা জমে গেলে মালাই ফ্রিজ থেকে বের করে নরমাল তাপমাত্রাতে আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।এরপর মালাই একটা প্যানে অল্প আচেঁ জ্বাল দিন। প্রথমে ফেনার মত হতে পারে। আস্তে আস্তে রঙ স্বচ্ছ হয়ে তেলের মত হবে। ঠান্ডা হলে ছেকেঁ নিন। এটাই আপনার খাঁটি ঘি।ঘিয়ের মধ্যে থাকা মিডিয়াম চেন ফ্যাটি অ্যাসিড খুব এনার্জি বাড়ায়,রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, হজম ক্ষমতা বাড়ানোর কারণে ঘি খিদে বাড়ায়।অতিরিক্ত ঘি খেলে মানুষের শরীরে ফ্যাট জন্মে,ডায়াবেটিস বা উচ্চমাত্রার কোলেস্টেরলের সমস্যা সৃষ্টি করে।

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ