রসুনের ভর্তা কিভাবে তৈরি করা হয়? রসুনের ভর্তা খাওয়ার উপকারিতা বা অপকারিতাগুলো কী কী?

রসুনের ভর্তা কিভাবে তৈরি করা হয়? রসুনের ভর্তা খাওয়ার উপকারিতা বা অপকারিতাগুলো কী কী?
বিভাগ: 
Share

1 টি উত্তর

রসুনের কোয়াগুলো আলাদা করে ফ্রাই প্যানে টেলে নিন। মাঝারি আঁচে ভালো করে নাড়তে হবে। প্রায় আধা ঘণ্টা পর রসুন নরম হয়ে গেলে নামিয়ে ঠাণ্ডা করুন। হালকা গরম থাকা অবস্থায়ই খোসা ছাড়িয়ে নিন। হাত দিয়ে চটকে ভর্তা করুন রসুন। ফ্রাইপ্যানে সয়াবিন তেল গরম করুন। শুকনা মরিচ সামান্য ভেজে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে দিন। পেঁয়াজ হালকা বাদামি হলে রসুন, কাঁচামরিচ কুচি ও স্বাদ মতো লবণ দিয়ে কয়েক মিনিট ভাজুন। ধনেপাতা কুচি ও পেঁয়াজ পাতা কুচি দিয়ে আরও খানিকক্ষণ ভাজুন। চুলা বন্ধ করে সরিষার তেল দিয়ে নেড়ে নিন। সাজিয়ে পরিবেশন করুন রসুন ভর্তা।এটির সব থেকে ভাল গুন হল আপনার হৃদরোগের হাত থেকে আপনাকে বাচাবে,উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিস এর ঝুঁকি কমাবে। অতিরিক্ত রসুন বা রসুনের বানানো খাবার খেলে শরীর ফুলে যায়,রক্তে কোলেস্টেরল এর মাত্রা বেড়ে যায় এবং এলার্জি বাড়ে।

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ