অরিজিনাল উত্তর-বিশিষ্ট প্রশ্নসমূহ

1.0079 amu(atomic mass unit)

পিল খেতে মনস্থির করলে পরবর্তী মাসিক পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। মাসিক শুরু হওয়ার প্রথম দিন থেকে মোটা তীর চিহ্নিত সাদা পিলটি দিয়ে খাওয়া শুরু করুন। ৩. পরের দিন থেকে নিয়মিত একই সময়ে সরু তীর চিহ্ন অনুসরণ করে একটি করে পিল খেতে থাকুন, প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময়ে, যেমন রাতে শোয়ার আগে

ডাম্পিং কি?ডাম্পিং কাকে বলে?

ডাম্পিং- the act of throwing something away in a place that is not suitable or allowed by law যেমনঃ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জের হাইওয়ে থানাসংলগ্ন সড়কটিতে বিভিন্ন মামলায় জব্দ করা গাড়িগুলো ডাম্পিং করে রাখা হয়েছে।


অর্থনীতিতে, ডাম্পিং- the practice of selling goods in another country so cheaply that companies in that country cannot compete fairly. উদ্বৃত্ত পণ্যসমূহ অন্য দেশে নিজ দেশ অপেক্ষা কম মূল্যে বিক্রয় করাকে ডাম্পিং বলে।

মুরগি জবাই করে হাত থেকে ছেড়ে দিয়ে যদি নড়াচড়া না করে তবে বুঝতে হবে এটা মৃত। আর মৃত মুরগি জবাই করলে তা খাওয়া হালাল নয়।

আল্লাহ তাআলা বলেন, তোমাদের জন্য হারাম করা হয়েছে মৃতপ্রাণী, রক্ত ও শূকরের গোশত। (সুরা মায়েদা, আয়াত : ৩)।

না ভাই,এটা সুদ হবেনা।।।

কাস্টমার কেয়ারে ফোন দিয়ে আপনার সিমের যাবতীয় তথ্য দিতে হবে।তাহলে সাময়িকভাবে স্থগিত সিম পুনরায় চালু করা যাবে।

যে আইডি থেকে আপনাকে ব্লক দেয়া হয়েছে অই আইডি মালিকই কেবল আপনাকে আনব্লক করতে পারবে৷ 

এছাড়া আর কোন ওয়ে নেই।

কখনোয় না। অবশ্যয় সময়ের তারতম্য ঘটবে।

অবশ্যই করা যাবে।  সরকারীভাবে ডুয়েট করতে পারবেন। এছাড়াও বিভিন্ন বেসরকারি ভার্সিটিতে বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে পারবেন। 

১ম শ্রেণীর গেজেটেড কর্মকর্তার দিয়ে সত্যায়িত করাবেন। 

খাইরুল বেসিক ম্যাথ + প্রফেসর'স এর গাণিতিক যুক্তি এই বই দুটো দেখতে পারেন।

ইউটিউবে পাবেন যেগুলো ১৫-২০সেকেন্ডের হয়ে থাকে তাছাড়া  বিভিন্ন ফানি ভিডিও ডাউনলোড করে যেকোনো ভিডিও এডিটর অ্যাপ ব্যবহার করে সেখান থেকে ক্রপ করে নিতে পারেন

না,, তবে বেশি বেশি শেভ করলে ত্বকের ক্ষতি হতে পারে

www.naturalbd.com

এখান থেকে আপনি নতুন মুভি ডাউনলোড করতে পারবেন। 

আগামী মাস অর্থাৎ জুলাই মাসেই সার্কুলার আসছে বিমানবাহিনীর। অসংখ্য ট্রেড রয়েছে, আপনার পছন্দের ট্রেডে আবেদন করতে পারবেন। ফেসবুকে এ সম্পর্কে অসংখ্য গ্রুপ আছে এ নিয়ে।  সেগুলোতে জয়েন হয়ে নিন, সকল খবর জানতে পারবেন৷ 

1. কম্পিউটার কে দিয়ে কোনো নিদিষ্ট কাজ করিয়ে নেওয়ার জন্য সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয় কম্পিউটারে


কম্পিউটার এ সঠিকভাবে কাজ করতে হলে সফটওয়্যার লাগবে। সফটওয়্যার ছাড়া কম্পিউটারে কোন কাজ ভালোভাবে করা যাবে না।

আপনি canva এপ দিয়ে পোস্টার ডিজাইন করতে পারেনgoldennewsbd24ভিজিট করতে পারেন। 

১/ কম্পিউটার কে সঠিক ভাবে পরিচালনা ও কাজ করার জন্য মূলত সফটওয়ার ব্যবহার করা হয়।

২/ এবোডি ইলাস্ট্রেটর বা ফটোশপ এর সাহায্যে আপনি পোস্টার ডিজাইন করতে পারবেন।

এটা সুন্নতে যায়েদা    ।  আদায় করলে সওয়াব পাবেন,  আদায় করতে না পারলে গুনাহ হবে না

সুন্নত নামাজের নিয়ম ফরজ নামাজের মতই। শুধু তফাৎ এতটুকুই যে, নামাজ যদি চার রাকাত বিশিষ্ট ফরজ হয়, যেমন, জোহর, আসর ও এশার নামাজ, তখন তৃতীয় ও চতুর্থ রাকাতে শুধু সুরা ফাতিহা পড়বেন।

নামাজ যদি চার রাকাত বিশিষ্ট সুন্নত হয় তাহলে চার রাকাতের পর সালাম ফিরাবেন।

আর নামাজ যদি দুই রাকাত বিশিষ্ট সুন্নত হয় তাহলে দুই রাকাতের পর সালাম ফিরাবেন।

নামাজ যদি চার বা দুই রাকাত বিশিষ্ট সুন্নত হয় তাহলে সব রাকাতেই সুরা মিলাতে হবে।

বিস্তারিতঃ

প্রথমে অজুসহকারে দাঁড়িয়ে যান এবং নামাজের নিয়ত করুন। নিয়ত হলো একটি ইসলামী ধারণা যেখানে একজন ব্যক্তি আল্লাহর উদ্দেশ্যে কোন ইবাদত করার আগে ইচ্ছাপ্রকাশ করেন। এরপর উভয় হাত কান পর্যন্ত উঠান।

তাকবিরে তাহরিমা ‘আল্লাহু আকবার’ বলার পর বাঁম হাতের ওপর ডান হাত রেখে তা বুকে বা নাভির নিচে রাখুন। এরপর অনুচ্চৈঃস্বরে সানা বলুন।

উচ্চারণঃ সুবহানাকা আল্লাহুম্মা ওয়াবি হামদিকা ওয়া তাবারা কাসমুকা ওয়া তাআলা জাদ্দুকা ওয়া লা ইলাহা গইরুকা। (নাসায়ি, হাদিস : ৮৮৯)।

এরপর অনুচ্চৈঃস্বরে তাবুজ অর্থাৎ আউজু বিল্লাহি মিনাশ শাইতনির রাজিম, তারপর তাসমিয়া বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম পড়ুন। (তাহাবি : ১/৩৪৭)।

এবার সুরা ফাতিহা পড়ুন। শেষ হলে অনুচ্চৈঃস্বরে আমিন বলুন।

সুরা ফাতিহা শেষ হলে একটি সুরা অথবা তিনটি ছোট আয়াত, যা কমপক্ষে লম্বা একটি আয়াতের সমতুল্য হয় পড়ুন। (আবু দাউদ, হাদিস : ৬৯৫)।

এই পরিমাণ তিলাওয়াত নামাজ শুদ্ধ হওয়ার জন্য আবশ্যক।

অতঃপর আল্লাহু আকবার বলে রুকুতে যান। রুকুতে মাথা নিতম্বের বরাবর করুন। (আবু দাউদ, হাদিস : ৭২৯)।

রুকুতে আঙুলগুলো ছড়িয়ে দিয়ে হাঁটু আঁকড়ে ধরুন। (মুজামে সাগির : ২/৪৯৭)।

রুকুতে কমপক্ষে তিনবার ‘সুবহানা রাব্বিয়াল আজিম’ পড়ুন। (তিরমিজি, হাদিস : ২৪২)।

এবার রুকু থেকে ‘সামিয়াল্লাহু লিমান হামিদাহ’ বলে মাথা উঠান। মুক্তাদি হলে অনুচ্চৈঃস্বরে শুধু ‘রাব্বানা লাকাল হামদ’ বলুন। এরপর তাকবির তথা আল্লাহু আকবার বলে সিজদায় যান। (সহিহ বুখারি, হাদিস নম্বর : ৭৪৭)।

সিজদায় যাওয়ার সময় প্রথমে হাঁটু, তারপর হাত, তারপর উভয় হাতের মধ্যে কপাল মাটিতে রাখুন। নিজের পেট রান থেকে এবং বাহুকে পার্শ্বদেশ থেকে পৃথক করে রাখুন। হাত ও পায়ের আঙুলকে কিবলামুখী করে রাখুন। (সহিহ বুখারি, হাদিস : ৭৮৫)।

সিজদায় কমপক্ষে তিনবার ‘সুবহানা রাব্বিয়াল আলা’ পড়ুন। (তিরমিজি, হাদিস : ২৪২)।

এরপর সিজদা থেকে উঠার সময় সর্বপ্রথম মাথা উঠিয়ে উভয় হাত রানের ওপর রেখে স্থিরতার সঙ্গে বসে পড়ুন। এরপর তাকবির বলে দ্বিতীয় সিজদা করুন। দ্বিতীয় সিজদায়ও কমপক্ষে তিনবার তাসবিহ পড়ুন। বিজোড় সংখ্যায় এর বেশিও পড়া যাবে। অতঃপর জমিনে হাত দ্বারা ঠেক না দিয়ে এবং না বসে সরাসরি তাকবির বলে দাঁড়িয়ে যান। এ পর্যন্ত প্রথম রাকাত সম্পন্ন হলো।

এখন দ্বিতীয় রাকাত আরম্ভ হলো। এতে হাত উঠাবেন না, ছানাও পড়বেন না, আউজুবিল্লাহও পড়বেন না। তবে আগের মতো সুরা ফাতিহা ও সঙ্গে অন্য একটি সুরা পড়ে রুকু-সিজদা করবেন। দ্বিতীয় সিজদা শেষ করে ডান পা খাড়া করে বাঁ পা বিছিয়ে দিয়ে তার ওপর বসে যাবেন। তখন আপনার হাত থাকবে রানের ওপর এবং ডান পায়ের আঙুলগুলো থাকবে কিবলামুখী। (মুসলিম, হাদিস : ৯১২)।

অতঃপর নিম্নের তাশাহহুদ পড়বেন। (সহিহ বুখারি, হাদিস : ৭৮৮)।

উচ্চারণ : ‘আত্তাহিয়্যাতু লিল্লাহি ওয়াস সালাওয়াতু ওয়াত তায়্যিবাত। আসসালামু আলাইকা, আইয়্যু হান্নাবিয়্যু ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহ। আস সালামু আলাইনা ওয়া আলা ইবাদিল্লাহিস সালিহিন। আশহাদু আল-লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়া আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান আবদুহু ওয়া রাসুলুহ।’

তাশাহহুদ পড়ার সময় ‘আশহাদু আল-লা ইলাহা’ পড়ার সময় শাহাদাত আঙুল উঁচু করে ইশারা করবেন। আর ‘ইল্লাল্লাহু’ বলার সময় আঙুল নামিয়ে ফেলবেন।

তবে তাশাহহুদের বাক্য ও আঙুল দিয়ে ইশারা করার বিষয়ে অন্য নিয়মও ইমামদের বক্তব্যে দেখা যায়। তাই বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি কাম্য নয়।

যদি দুই রাকাত বিশিষ্ট নামাজ হয়, যেমন, ফজরের নামাজ ইত্যাদি, তাহলে তাশাহহুদের পর নিম্নের দরুদ শরিফ পাঠ করবেন। (মুসলিম, হাদিস : ৬১৩)

উচ্চারণ : ‘আল্লাহুম্মা সাল্লি আলা মুহাম্মদ, ওয়ালা আলি মুহাম্মদ, কামা সাল্লাইতা আলা ইবরাহিমা ওয়া আলা আলি ইবরাহিম, ইন্নাকা হামিদুম মাজিদ। আল্লাহুম্মা বারিক আলা মুহাম্মদ, ওয়ালা আলি মুহাম্মদ, কামা বারাকতা আলা ইবরাহিমা ওয়া আলা আলি ইবরাহিম, ইন্নাকা হামিদুম মাজিদ।’

এরপর পবিত্র কোরআন ও হাদিসে বর্ণিত যেকোনো দোয়া পাঠ করবেন। (মুসান্নাফে ইবনে আবি শায়বা : ১/২৯৮)।

যেমন, এই দোয়া পড়তে পারেন। এটাকে দোয়ায়ে মাসুরা বলা হয়। (সহিহ বুখারি, হাদিস : ৭৯)।

উচ্চারণ : ‘আল্লাহুম্মা ইন্নি জালামতু নাফসি জুলমান কাসিরাও ওলা ইয়াগফিরুজ জুনুবা ইল্লা আনতা, ফাগফিরলি মাগফিরাতাম-মিন ইনদিকা, ওয়ার হামনি ইন্নাকা আনতাল গাফুরুর রাহিম।’

অথবা এই দোয়া পড়বেন। উচ্চারণ : ‘রাব্বানা আতিনা ফিদ-দুনইয়া হাসানাহ, ওয়া ফিল আখিরাতি হাসানাহ, ওয়া কিনা আজাবান-নার।’

এরপর ‘আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ’ বলতে বলতে ডানে এবং বাঁয়ে মাথা ফেরাবেন।

যদি নামাজ চার রাকাত বিশিষ্ট সুন্নত হয়, তখন প্রথম বৈঠকে তাশাহহুদের পর আর কিছু পড়বেন না। বরং ‘আল্লাহু আকবার’ বলে সোজা দাঁড়িয়ে যাবেন। (তিরমিজি, হাদিস : ২২৪)।

এবার তৃতীয় রাকাতে সুরা ফাতিহা পড়বেন। এবং নামাজের তৃতীয়, চতুর্থ রাকাতে সুরা ফাতেহার সঙ্গে অন্য সুরা মেলাবেন।

এরপর প্রথম দুই রাকাতের মতো রুকু-সিজদা করে দুই রাকাত সম্পন্ন করে শেষ বৈঠকে বসবেন। সেখানে উল্লিখিত পদ্ধতিতে তাশাহহুদের পর দরুদ এবং এরপর দোয়ায়ে মাসুরা পড়ে উভয় দিকে সালাম ফেরাবেন।


সুন্নত নামায,,  ফরজ নামাজের ন্যায় পার্থক্য শুধু এটায় যে ফরজ নামাজ চার রাকাত হলে দুই রাকাতে সুরা মিলিয়ে পরতে হয় আর দুই রাকাতে সুরা মিলাতে হয় না।আর সুন্নত নামাজের চার রাকাতে সুরা মিলিয়ে পরতে হয়।

Melting point or freezing point refers to the process by which a solid is melted at a certain temperature and converted into a liquid.

এমন অনেক গুলো ওয়েব সাইট বা অ্যাপ আছে যা কথাদেয় কিন্তু সে অনুপাতে টাকা দেয় না এবং ধরনের আয় করা যায় এমন ওয়েব/  অ্যাপ এ একাউন্ট খুলবে হাজার খানেক টাকা দিয়ে একাউন্ট ভেরিফাই করতে হয় ।  এমন কয়েকটি  সাইট আমি    দেখেছি   সেটি হলো : অথেনটিক ডিজিটাল বাংলা এবং ভিটা.সিয়ো ।  আমার কয়েকজন চেনামানুষ করেছে  এখান থেকে , কিন্তু তারা টাকা দিয়ে একাউন্টি করে আয় করতে পরেননি।  বেশি হলে কয়েকদিন আপনাকে কিছু টাকা ইনকাম দিবে , আর টাকা পেলেও তা তুলতে পারবেন না , 

ভার্চুয়ালি  আপনি আপনার আয় করা টাকা দেখতে পারবেন এবং  পেলেও তা তুলতে পারবেন না ,    ।   তারপর এসব কোম্পনি ইনকাম দেয়া বন্ধ করে দেয় । এগুলো পিটিসি ওয়েব সাইট বলা হয় ।  এমন অনেক কোম্পানি ছিল পূবে তা সবগুলো বন্ধ হয়ে গেছে । আর এতে আপনাকে অন্যকে রেফারেন্স একাউন্ট করে দিতে হবে সেই জনপ্রতি   রেফারেন্স থেকে  আপনাকে টাকা দেয়া হবে এবং  রেফারেন্স একাউন্ট যাকে করে দিবেন সেই লোককে টাকা দিয়ে  একাউন্ট খুলতে হবে । এর মানে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে  একজনের টাকা অন্যকে দেয়া  পুরোটা এম.এল.এম এর মত ।

আপনি নিজেই ভাবুন ? মানুষ লক্ষ- লক্ষ টাকা দিয়ে ব্যবসা করে হিম-শিম খায় আর তারা শুধু-শুধু টাকা দিবে  আর বিনিময়ে রেফার করা আর বিজ্ঞাপন দেয় ।

  • আপনি নিজেই ভাবুন ?
  • কেন তারা আপনাকে টাকা দিবে 
  • আপনি  কোন কাজ না করে টাকা আয় করবেন
  • তাদের এতে লাভ কি 
  • কেন বা তারা কাজ ছাড়া টাকা দিবেে

এসব প্রতারক খেকে দূরে থাকবেন ।

Bikes meaning in bengali is মোটরসাইকেল গুলো।

হ্যা সমস্যা হবে 

না,  কোনো সমস্যা নাই। 

কোনো সমস্যা নেই । বাচ্চা হ‌ওয়ার সম্ভবনা তখনি থাকে যখন বীর্য যোনিতে প্রবেশ করে।

বাচ্চা হওয়ার জন্য বীর্য যোনি দিয়ে জরায়ুতে প্রবেশ করতে হবে, মুখ দিয়ে প্রবেশ করলে সরাসরি পাকস্থলিতে যাবে, যার ফলে বাচ্চা হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

1,436,873

প্রশ্ন

1,607,314

উত্তর

480,944

ব্যবহারকারী