বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
328 জন দেখেছেন
"ফল" বিভাগে করেছেন (2,833 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (2,833 পয়েন্ট)

বর্ষাকালের মাঝামাঝির দিকে হলুদরঙা, এবড়োথেবড়ো আকারের কিছু ফল বিক্রি করতে দেখা যায় রাস্তার ধারে বসা ফল বিক্রেতাদের।  টক-মিষ্টি স্বাদের এই ফলটির নাম ডেউয়া।

অঞ্চলভেদে একে ডাউয়া,ডেলোমাদার, ডেউফল, ঢেউফল ইত্যাদিও বলা হয়ে থাকে। গ্রামাঞ্চলে এটি অত্যন্ত পরিচিত একটি ফল হলেও শহরাঞ্চলে এটি একটি অপ্রচলিত ফল।

ডাউয়া কাঁঠালের মতো গুচ্ছফল। বাইরের অংশটি থাকে অসমান। ফল কাঁচা অবস্থায় সবুজ এবং পাকলে হলুদ হয়। ফলের কাঁঠালের মতো ছোট ছোট কোষ থাকে। পাকা ফলের কোষের রং হয় লালচে হলুদ।

ভিটামিন সি ও ক্যালসিয়ামের আধার বলা হয় ডেউয়া ফলকে। এগুলো ছাড়াও ডেউয়া ফলে রয়েছে অন্যান্য পুষ্টি উপাদান। ডাউয়া ফলের খাদ্যযোগ্য প্রতি ১০০ গ্রাম অংশে রয়েছে -

খনিজ- ০.৮ গ্রাম

খাদ্যশক্তি- ৬৬ কিলোক্যালরি

আমিষ- ০.৭ গ্রাম

শর্করা- ১৩.৩ গ্রাম

ক্যালসিয়াম- ৫০ মিলিগ্রাম

লৌহ- ০.৫ মিলিগ্রাম

ভিটামিন বি১- ০.০২ মিলিগ্রাম

ভিটামিন বি২- ০.১৫ মিলিগ্রাম

ভিটামিন সি- ১৩৫ মিলিগ্রাম

পটাশিয়াম- ৩৪৮.৩৩ মিলিগ্রাম

দেখতে অদ্ভুত এবং ভিন্ন স্বাদের ডাউয়া ফল মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। পাশাপাশি এর রয়েছে বেশ কিছু ভেষজ গুণও। যেমন -



    যকৃতের নানা অসুখ নিরাময়ে সাহায্য করে।


    কোষ্ঠকাঠিন্য ও গ্যাসের কারণে পেটব্যথা কমাতে সহায়তা করে ।


    দীর্ঘদিন অসুখে ভুগলে খাবারে রুচি থাকে না। রুচি ফিরিয়ে আনতে ডাউয়ার রস লবণ ও গোলমরিচের গুঁড়া মিশিয়ে দুপুরে ভাত খাবার আগে খেতে হবে।


    পেট পরিষ্কার করতে কাঁচা ডাউয়া ৮-১০ গ্রাম বেটে নিয়ে গরম পানিতে মিশিয়ে সকালে খালি পেটে খেতে হবে।


    গ্যাসের সমস্যা কমাতে পাকা ডাউয়ার দেড় চামচ রস আধা কাপ পানিতে মিশিয়ে এবং তাতে সামান্য চিনি দিয়ে প্রতিদিন একবার করে এক সপ্তাহ খেতে হবে।


    গাছের ছালের গুঁড়ো ত্বকের রুক্ষতা দূর করে এবং ব্রণের দুষিত পুঁজ বের করে দেয়।


    ডাউয়ার ভিটামিন সি ত্বক, চুল, নখ, দাঁত ও মাঢ়ির নানা রোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে।


    এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম যা দাঁত ও হাড়ের ক্ষয়রোগ প্রতিরোধ করে।


    ডাউয়াতে বিদ্যমান পটাশিয়াম রক্ত চলাচলে সহায়তা করে, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে এবং হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়।



ওজন কমাতেও সাহায্য করে। এক কাপের চার ভাগের এক ভাগ পাকা ডাউয়ার রসের সাথে বাকি তিন ভাগ কুসুম গরম পানি মিশিয়ে প্রতিদিন সকালে খালি পেটে খেতে হবে। ডাউয়া সব মৌসুমে পাওয়া যায় না। তাই পাকা ডাউয়া শুকিয়ে সংরক্ষণ করুন। শুকনো ডাউয়া পরবর্তীতে পানিতে ভিজিয়ে রেখে খেতে পারবেন।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
03 জুলাই "ফল" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল
1 উত্তর
2 টি উত্তর
08 জুন "ফল" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল
1 উত্তর
02 জুন "ফল" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Md Mustafizur (134 পয়েন্ট)
2 টি উত্তর
02 জুন "ফল" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন MD Nabab Ali (163 পয়েন্ট)

311,918 টি প্রশ্ন

401,528 টি উত্তর

123,310 টি মন্তব্য

172,883 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...