বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
62 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে করেছেন (13 পয়েন্ট)
আমি একজনকে পছন্দ করি। আমাদের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ধর্মের বিধি নিষেধ জানার পর আমি তার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছি। আল্লাহ যদি চান, আমরা আমাদের পরবারকে রাজি করে পারিবারিক ভাবে বিয়ে করতে চাই।

এখন আমার প্রশ্ন হলো এই পরিস্থিতিতে আমি কি তার সাথে বিয়ে হওয়ার জন্য আল্লাহর কাছে দোয়া করতে পারব ? 

দয়া করে সহিহ হাদিস মোতাবেক তথ্য দিয়ে আমাকে সাহায্য করুন।

ধন্যবাদ।।

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (896 পয়েন্ট)
হ্যাঁ, তাকে পাওয়ার জন্য দোয়া করতে পারবেন।এতে কোন সমস্যা নেই।কুর‌আনুল কারীমে ভালো স্ত্রীর জন্য দোয়া করতে ইঙ্গিত করা হয়েছে,সূরা আল বাক্বারাহ:201 - আর তাদের মধ্যে কেউ কেউ বলে-হে পরওয়ারদেগার! আমাদিগকে দুনয়াতেও কল্যাণ দান কর এবং আখেরাতেও কল্যাণ দান কর এবং আমাদিগকে দোযখের আযাব থেকে রক্ষা কর।

উল্লেখিত আয়াতে কল্যাণ বলতে কোন কোন তাফসীরবীদ নেক ও দ্বীনদার স্ত্রী উদ্দেশ্য নিয়েছেন। (তাফসীরে ইবনে কাছির)
করেছেন (13 পয়েন্ট)
ভাই আমি কি ঠিক তাকে উদ্দেশ্য করে দোয়া করতে পারব।

এমন যে, আল্লাহ আমি যেন ওকেই বিয়ে করতে পারি। 
করেছেন (13 পয়েন্ট)
ভাই আমি কি ঠিক তাকেই উদ্দেশ্য করে দোয়া করতে পারব?

এমন যে, আল্লাহ আমি যেন ওকেই বিয়ে করতে পারি। 
করেছেন (896 পয়েন্ট)
হ্যাঁ, পারবেন।এটাতে কোন সমস্যা নেই।
করেছেন (13 পয়েন্ট)
অনুগ্রহ করে আমাকে কোন রেফারেন্স দিতে পারবেন?

নিশ্চিত ভাবে জানতে পারল ভালো লাগত। 
করেছেন (896 পয়েন্ট)
বিবাহ একটি বৈধ বিষয়।তাই বৈধভাবে তাকে পাওয়ার জন্য দোয়া করাও বৈধ হবে।আর বৈধ বিষয়ে দোয়া করতে ও অবৈধ বিষয়ে দোয়া করতে নিরুৎসাহিত করে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, আবূ হুরাইরাহ্ (রাঃ)-এর সনদে নবী (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) থেকে বর্ণিতঃতিনি বলেছেন, বান্দার দু‘আ সর্বদা গৃহীত হয় যদি না সে অন্যায় কাজ অথবা আত্মীয়তার সম্পর্কচ্ছেদ করার জন্য দু‘আ করে এবং (দু‘আয়) তাড়াহুড়া না করে। জিজ্ঞেস করা হলো, হে আল্লাহর রসূল (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম)! (দু‘আয়) তাড়াহুড়া করা কি? তিনি বললেন, সে বলতে থাকে, আমি  তো দু‘আ করেছি, আমি দু‘আ তো করেছি; কিন্তু আমি দেখতে পেলাম না যে, তিনি আমার দু‘আ কবূল করেছেন। তখন সে ক্লান্ত হয়ে পড়ে, আর দু‘আ করা পরিত্যাগ করে।সহিহ মুসলিম, হাদিস নং ৬৮২৯

হাদিসের মান: সহিহ হাদিস

তবে নির্দিষ্ট করে না চেয়ে এভাবে চাওয়া যে,হে আল্লাহ আমি ওমুককে আমার জন্য পছন্দ করেছি। যদি আমার জন্য সে কল্যাণকর হয় তাহলে কবুল করুন। কারণ বাহ্যিকভাবে আমরা কোন জিনিস ভালো মনে করলেও বাস্তবতা আল্লাহর কাছে।এদিকে ইঙ্গিত করে কোরআনে এসেছে;সূরা আল বাক্বারাহ:216 - তোমাদের উপর যুদ্ধ ফরয করা হয়েছে, অথচ তা তোমাদের কাছে অপছন্দনীয়। পক্ষান্তরে তোমাদের কাছে হয়তো কোন একটা বিষয় পছন্দসই নয়, অথচ তা তোমাদের জন্য কল্যাণকর। আর হয়তোবা কোন একটি বিষয় তোমাদের কাছে পছন্দনীয় অথচ তোমাদের জন্যে অকল্যাণকর। বস্তুতঃ আল্লাহই জানেন, তোমরা জান না।
করেছেন (13 পয়েন্ট)
অসংখ্য ধন্যবাদ।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
30 জুন 2017 "আইন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন এস বি (12 পয়েন্ট)
2 টি উত্তর
14 ফেব্রুয়ারি 2016 "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন খন্দকার রাজু (11 পয়েন্ট)

357,987 টি প্রশ্ন

452,939 টি উত্তর

141,880 টি মন্তব্য

189,717 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...