বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
79 জন দেখেছেন
"স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে করেছেন (5 পয়েন্ট)
আমার মাথার চুলে প্রচুর খুশকি জমেছে, যার দরুন অসংখ্য চুল পড়ে যাচ্ছে,এর থেকে মুক্তির চিকিৎসা বিশেষজ্ঞ দের কাছ থেকে জানতে চাই।
এই চিরকূট সহকারে বন্ধ করা হয়েছে : যথেষ্ট

5 উত্তর

+1 টি পছন্দ
করেছেন (1,052 পয়েন্ট)

চুলপড়া ও খুশকি দূর করার উপায়:

১। সপ্তাহে একদিন নিমপাতা বেটে চুলে লাগাবেন। তারপর ঘন্টাখানেক পর তা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন। এতে শুধু চুলপড়া কমবে না, চুল নরম ও কোমল হবে।
২। রাতে ঘুমানোর সময় চুলে পেঁয়াজের রস মেখে ঘুমাবেন। সকালে ঘুম থেকে ওঠে তা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন। এতে শুধু চুল পড়া কমবে না, নতুন চুলও গজাবে।
৩। সপ্তাহে একদিন পেয়ারা পাতা বেটে চুলে লাগাবেন‌। ঘন্টাখানেক পর তা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন। এতে শুধু চুল পড়া কমবে না, স্থায়ী খুশকিও দূর হবে।
৪। নিয়মিত আমলকি খান, চুলপড়া কমে যাবে।
৫। গাজর, চিংড়ি, ডিম ও দুধ চুলপড়া রোধে উপকারী খাবার।
৬। কোনো শ‍্যাম্পু, জেল, ঔষধ কিংবা নিম্নমানের তেল ব‍্যবহার করার প্রয়োজন নেই।
৭। কালোজিরার তেল, জলপাইয়ের তেল, নারিকেল তেল বা আমলকির তেলের ব‍্যবহার চুলের জন‍্য অত‍্যন্ত উপকারী।
৮। প্রতিদিন গোসলের সময় চুলকে ভালোভাবে পানি দিয়ে ধুয়ে নিবেন।
চুলের প্রতি বিশেষভাবে যত্নবান হোন। আর চুলকে করে তুলুন লাবণ‍্যময়। ভালো থাকবেন। ধন‍্যবাদ।
0 টি পছন্দ
করেছেন (293 পয়েন্ট)
অাপনি হেডেন সোল্ডার সেম্পুটি ব্যবহার কুরুন,অনেক উপকার পাবেন। যে ভাবে ব্যবহার করবেন:- গোসলের ১০-১৫ মিনিট পূর্বে সেম্পুটি হালকা পানি সহকারে মাথায় ভালো করে লাগিয়ে নিন।এমন ভাবে মাথায় লাগাবেন যাতে চুলের গোড়ায় পৌছায়।পানি কম দিবেন এতে ফেনা কম হবে। তার পর কিছুক্ষণ রোদে দাড়িয়ে চুল শুকিয়ে নিন। তার পর গোলসের সময় একদম হালকা গরম পারি(কুসুম কিসুমের থেকেও কম) পানি দিয়ে ভালো করে মাথা ধুয়ে ফেলুন।এভাবে কয়েকদিন ব্যবহার করুন খুসকি একদম সেরে যাবে।
0 টি পছন্দ
করেছেন (10,581 পয়েন্ট)
আপনি ওডিসি শ্যাম্পু ব্যবহার করুন।  নিচে বিস্তারিত দেওয়া হলো:-

মাত্রা :-বিজ্ঞান ভিত্তিক খুশকি চিকিৎসার একমাত্র সমাধান ।কিটোকোনাজল ২ % শ্যাম্পু , যা USFDA অনুমােদিত একমাত্র খুশকিনাশক শ্যাম্পু ।ওডিসি ( কিটোকোনাজল ২ % শ্যাম্পু ) সপ্তাহে নূন্যতম ২ - ৩ দিন করে ২ / ৩ সপ্তাহ ব্যবহার করলে খুশকি দূর হয় ।যাদের নিয়মিত খুশকি হয় , তারা ১ বা ২ সপ্তাহ পর পর প্রতিরােধক হিসাবে এই শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারেন , এতে তারা দীর্ঘদিন খুশকি মুক্ত থাকতে পারবেন ।

ব্যবহারবিধি
  • অল্প শ্যাম্পু হাতে ঢেলে নিয়ে মাথার - ত্বকে / চুলের গােড়ায় ঘষে নিন , 
  • স্বল্প পানি প্রয়ােগ করে চুলকে ফেনায়িত করুন ।
  • হালকা ম্যাসাজ করুন , 
  • ৩ - ৫ মিনিট রেখে দিন
  •  এরপর চুল ভালভাবে ধুয়ে ফেলুন ।
  • সর্বোত্তম ফলাফলের জন্য সপ্তাহে নূন্যতম ২ - ৩ দিন ব্যবহার করুন
0 টি পছন্দ
করেছেন (1,197 পয়েন্ট)
খুশকি দূর করতে চাইলে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে। ময়লা জমে মাথার ত্বকের লোমকূপ যাতে বন্ধ হয়ে না যায়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। চুল নিয়মিত পরিষ্কার করতে হবে খুশকি-প্রতিরোধক শ্যাম্পু দিয়ে। সপ্তাহে অন্তত এক দিন তেল হালকা গরম করে চুলের আগা থেকে গোড়া পর্যন্ত ভালোভাবে মালিশ করুন। শ্যাম্পু দেওয়ার পর সঙ্গে সঙ্গে চুল না ধুয়ে পাঁচ থেকে ১০ মিনিট অপেক্ষা করার পর ভালো করে ধুয়ে ফেলতে হবে। খেয়াল রাখবেন, চুলে যেন শ্যাম্পুর ফেনা লেগে না থাকে। তা দূর করতে মোটা দাঁতের চিরুনি দিয়ে চুল ভালোভাবে আঁচড়ে নিন। ভেজা চুলে আঙুল চালিয়েও কাজটি করতে পারেন। এতে চুল পুরোপুরি পরিষ্কার হয়ে যাবে। সপ্তাহে এক দিন কন্ডিশনার ব্যবহার করবেন। কিন্তু বাইরে বের হলে প্রতিদিন শ্যাম্পু করুন। চুলের আর্দ্রতা ধরে রাখতে ব্যবহার করতে হবে কন্ডিশনার। আর্দ্রতার অভাবে চুল রুক্ষ হলে খুশকি বেড়ে যায়। মেডিকেটেড বা খুশকি-প্রতিরোধক শ্যাম্পু যা-ই কিনুন না কেন, তা আপনার চুলের ধরন অনুযায়ী কিনতে হবে। তবে সারা বছরই খুশকি থাকলে চিকিৎসকের পরার্মশ নিন। তা না হলে ত্বকে নানা ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে,ধন্যবাদ।
0 টি পছন্দ
করেছেন (4,768 পয়েন্ট)

জেনে নিন খুশকি দূর করার ৭টি উপায়

১. পুরনো তেঁতুল পানিতে গুলে নিন। গোলানো তেঁতুল চুলের গোড়ায় ভালো করে লাগান। ১০-১২ মিনিট অপেক্ষা করে চুল শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত দুদিন তেঁতুল মাথায় দিন। এতে খুশকি যেমন দূর হয় তেমনি মাথার চুলকানিও কমে যায়।

২. টকদই খুশকি দূর করতে ও চুল ঝলমলে করতে খুবই কার্যকরী। ৬ টেবিল চামচ টকদই খুব ভালো করে ফেটিয়ে নিন। এরপর এতে ১ টেবিল চামচ মেহেদি বাটা ভালোভাবে মেশান। মিশ্রণটি চুলের গোড়াসহ পুরো চুলে লাগিয়ে ৩০-৪০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর চুল ভালো করে শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে একদিন এই মিশ্রণটি ব্যবহার করুন। এতে চুল যেমন খুশকিমুক্ত হবে তেমনি চুল হয়ে উঠবে ঝলমলে ও রেশমি।

৩. একটি ডিমের সাদা অংশ ও ৪ টেবিল চামচ টকদই খুব ভালোভাবে ফেটিয়ে নিন। এরপর এতে ১ টেবিল চামচ পাতিলেবুর রস মেশান। মিশ্রণটি মাথার ত্বকসহ পুরো চুলে লাগান। ২০ মিনিট পর চুল শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত ১ বার এটা ব্যবহার করুন।

৪. মেথি চুলের খুবই উপকারী একটা জিনিস। নারকেল তেল গরম করুন। এরপর এতে মেথি গুঁড়া মেশান। মিশ্রণটি পুরো চুলে লাগিয়ে ১ ঘণ্টার পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। দ্রুত ফল পাওয়ার জন্য সপ্তাহে ৩ দিন এটি ব্যবহার করুন।

৫. মেথি সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন। তারপর এটি থেঁতো করে চুলের গোড়ায় লাগান। ৩০ মিনিট পর চুল ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত দুবার মেথি লাগান।

৬. চুলের স্বাস্থ্য রক্ষার্থে ও খুশকি দূর করতে অলিভ অয়েলের জুড়ি নেই। অলিভ অয়েল গরম করে নিন। এতে পাতিলেবুর রস মেশান। চুলের গোড়াসহ পুরো চুলে লাগিয়ে ১ ঘণ্টা অপেক্ষা করুন। এরপর চুল ভালো করে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২ থেকে ৩ বার চুলে অলিভ অয়েল লাগান। খুশকি দূরের পাশাপাশি চুল হবে কোমল ও ঝলমলে। একই পদ্ধতিতে নারকেল তেলও ব্যবহার করতে পারেন।

৭. পেঁয়াজের রস খুব দ্রুত খুশকি দূর করতে পারে। পেঁয়াজ মিহি করে বেটে নিয়ে রস ছেঁকে নিন। পেঁয়াজের রস চুলের গোড়ায় ভালো করে ঘষে ঘষে লাগান। ২০-২৫ মিনিট রেখে চুল ভালোভাবে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত দুবার মাথায় পেঁয়াজের রস লাগান। এতে মাথা চুলকানোও কমে যাবে।


সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

2 টি উত্তর
04 জানুয়ারি "স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন farabi10 (5 পয়েন্ট)
5 টি উত্তর
06 মার্চ 2018 "রূপচর্চা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Asrafmd117 (3 পয়েন্ট)
3 টি উত্তর
16 নভেম্বর 2016 "স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন হাওয়া (14 পয়েন্ট)

293,691 টি প্রশ্ন

380,192 টি উত্তর

114,922 টি মন্তব্য

161,214 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...