বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
96 জন দেখেছেন
"সালাত" বিভাগে করেছেন (7,661 পয়েন্ট)

2 উত্তর

+3 টি পছন্দ
করেছেন (4,777 পয়েন্ট)
ইসলামী শরীয়ত অনুযায়ী তিন সময়ে সকল ধরনের নামায আদায় করা নিষেধ- সূর্যোদয়ের সময়,  সূর্যাস্তের সময় এবং সূর্য ঠিক  মধ্যাকাশে অবস্থান করা কালে।
তাছাড়া হানাফী ফিকহ মতে যে সময়েগুলোতে নফল আদায় করা মাকরূহ- 
১/ফজর নামাযের ওয়াক্ত হওয়ার পর থেকে নিয়ে ফজর নামায আদায় করা পর্যন্ত। ২/ফজর নামায আদায় করার পর সূর্যোদয় পর্যন্ত।৩/আসর নামায আদায় করার পর সূর্যাস্ত পর্যন্ত। 
একইভাবে এ তিন সময়ে তাওয়াফান্তের নামায ও তাহিয়্যাতুল মাসজিদ নামায আদায় করাও মাকরূহ। উল্লেখ্য, এ তিন সময়ে ফরয ও ওয়াজিব নামাযের কাযা আদায় করা যায়।
এছাড়া আরো যে সময় নফল নামায পড়া যায় না।– # মাগরীবের নামাযের পূর্বে।# খতীব সাহেব খুতবা প্রদানের জন্য বের হওয়া থেকে নিয়ে নামায আদায় করার শেষে পর্যন্ত।# ঈদের নামাযের পূর্বে। # ঈদের নামায আদায় করার পর মসজিদে।# আরাফার ময়দানে দুই নামায একত্রকরণের সময়।# মুযদালিফায় দুই নামায একত্রকরণের সময়। ইত্যাদি।
তবে শাফেয়ী ও অন্যান্য মাযহাব মতে পাঁচ সময়ে নফল নামায আদায় করা মাকরূহ- ১/ফজর নামায আদায় করার পর সূর্যোদয় পর্যন্ত। ২/সূর্যোদয়ের সময় । ৩/আসর নামায আদায় করার পর সূর্যাস্ত পর্যন্ত।
৪/সূর্যাস্তের সময়। ৫/সূর্য ঠিক মধ্যাকাশে অবস্থান করা কালে।
উল্লেখ্য, কোন কারণে নফল আবশ্যক হলে, মক্কায় অবস্থানকালে এবং শুক্রবারের দিন এ তিন অবস্থায় তাদের মতে উল্লিখিত মাকরূহ সময়গুলোতেও নফল আদায় করা যায়।

-সহীহ মুসলিম, হা. নং ৮২৫ ও ৮৩১; সুনানে আবু দাউদ, হাদিস নং ৩১৯২; সুনানে তিরমিজি, হা. নং ১০৩০; আল মুজামুল আউসাত লিত তবারানী,হা. নং ৮৫০৬; বাদায়েউস সানায়ে‘: ১/১৮৪-১৮৬, আল ফিকহুল ইসলামী ওয়া আদিল্লাতুহু: ১/১৩৬-১৩৭;ফিকহুল ইবাদাত: ১/১৮৬ ; মারাকিউল ফালাহ: পৃ. ৩১; নেহায়াতুয যাইন শরহু কুররাতুল আইন:১/২২০ ; আল লুবাব ফী ফিকহিশ শাফেয়ী:১/১৪৫-১৪৬ ।

0 টি পছন্দ
করেছেন (50 পয়েন্ট)
প্রথমত সালাতের নিষিদ্ধ সময় ৩টি।

 

১.সূর্য উদয়ের সময়; যতোক্ষণ না তা পুরোপুরি উঁচু হয়ে যায়।

২.সূর্য মধ্যাকাশে অবস্থানের সময় থেকে নিয়ে তা পশ্চিমাকাশে ঢলে পড়া পর্যন্ত। 

৩.যখন সূর্য অস্ত যায়’।

শুধুমাত্র এই তিনটি সময়ে সালাত আদায় করা হারাম বলে স্বয়ং হযরত মুহাম্মদ (স) অভিহিত করেছেন।

আশা করি উত্তরটা পেয়েছেন।

ধন্যবাদ।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

313,971 টি প্রশ্ন

403,494 টি উত্তর

124,038 টি মন্তব্য

173,841 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...