বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
134 জন দেখেছেন
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে করেছেন (4,425 পয়েন্ট)

2 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (4,731 পয়েন্ট)
মহান আল্লাহ তায়ালা তাঁর বান্দাকে অনেক ভালোবাসেন। দুনিয়াতে সাধারণ পিতামাতা যেমনি ভাবে তাঁর সন্তানদের ভালোবাসে, মহান আল্লাহ তায়ালা তাঁর চেয়ে শত শত গুণ ভালোবাসেন তাঁর বান্দাকে।

আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কুরআনে এরশাদ করেছেন, "(বলুন) হে আমার বান্দাগণ যারা নিজেদের উপর জুলুম করেছ, তোমরা আল্লাহর রহমত থেকে নিরাশ হয়ো না। নিশ্চই আল্লাহ সমস্ত গুনাহ ক্ষমা করেন; তিনি ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু —(সূরা যুমার, আয়াত ৫৩)। উক্ত আয়াত হতে বোঝা যায়, বান্দার প্রতি মহান আল্লাহর ভালোবাসা অনেক।

সহিহ বুখারীতে, আনাস ইবনে মালিক (রাঃ) বর্ণনা করেছেন, আল্লাহর রাসূল বলেন, "তোমাদের কেও মরুভূমিতে হারিয়ে যাওয়া উট খুঁজে পেয়ে যতটা খুশি হয়, আল্লাহ তাঁর বান্দার তওবাতে তাঁর চেয়েও বেশি খুশি হন। এ হাদীস দ্বারাও প্রমাণিত হয় যে বান্দার প্রতি আল্লাহর রহমত অসীম। আর তিনি তাঁর বান্দাকে অনেক ভালোবাসেন, যদিও সে অনেক খারাপ কাজ করে থাকে৷
0 টি পছন্দ
করেছেন (7,631 পয়েন্ট)
মা তার সন্তানকে যতটুকু ভালোবাসে তার চেয়ে শত গুণ বেশি আল্লাহ তায়ালা তার বান্দাকে ভালোবাসেন।

আকাশ ও পৃথিবীর সৃষ্টির দিন আল্লাহ তাআলা একশত রহমত সৃষ্টি করেছেন। প্রত্যেকটি রহমত আকাশ ও পৃথিবীর দূরত্বের সমপরিমাণ। এই একশত রহমত হতে একভাগ রহমত পৃথিবীর জন্য নির্ধারণ করেছেন। এর কারণেই মা সন্তানের প্রতি দয়া করে এবং বন্য পশু ও পাখীরা পরস্পরে অনুগ্রহ প্রদর্শন করে। অবশেষে কিয়ামত দিবসে আল্লাহ তাআলা এ রহমত দ্বারা তা পূর্ণ করবেন। (সহীহ মুসলিম হাদিস নম্বরঃ ৬৭২৪)

আল্লাহ বলেন, যে তওবা করে পাপ থেকে আমার পথে ফিরে আসবে এবং ভালো কাজের চর্চা করতে থাকবে, তার পেছনের জীবনের গুনাহ গুলো আমি নেক দিয়ে পরিবর্তন করে দেব। আল্লাহ অত্যন্ত ক্ষমাশীল ও দয়াময়। (সূরা ফোরকানঃ ৭০)

আল্লাহ তায়ালা তার গুনাহগার বান্দার প্রতি কত দয়ালু। পেছনের জীবনের গুনাহ তো মাফ করে দেবেনই, আবার সেসব গুনাহকে নেকেও পরিবর্তন করে দেওয়ার ওয়াদা দিচ্ছেন। এটা সৃষ্টির প্রতি স্রষ্টার ভালোবাসার অনন্য দৃষ্টান্ত ছাড়া আর কিছু নয়।

জনাব! মা তার নিজ সন্তানের প্রতি অনুগ্রহ, দয়া, এবং ভালবাসেন মাত্র একভাগ রহমত হতে। আর মহান আল্লাহ তার একশ ভাগ রহমতের নিরানব্বই ভাগ রহমত-ই নিজের নিকট রেখে দিয়েছেন। এর দ্বারা তিনি স্বীয় বান্দাদের প্রতি অনুগ্রহ প্রদর্শন করবেন। এবং তার অফুরন্ত নিয়ামত প্রদানের মাধ্যমে যে কতটুকু ভালবাসতেছেন তা বলে শেষ করা যায়না।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

5 টি উত্তর
19 ফেব্রুয়ারি 2017 "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল
1 উত্তর
18 জুন 2015 "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল

312,745 টি প্রশ্ন

402,308 টি উত্তর

123,566 টি মন্তব্য

173,287 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...