61 জন দেখেছেন
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে করেছেন (949 পয়েন্ট)

2 উত্তর

1 টি পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (5,639 পয়েন্ট)
জিকির হলো আল্লাহর স্মরণ। আল্লাহ তাআলার স্মরণে যে কাজই করা হয় তাই ইবাদত। সে হিসেবে জিকির আল্লাহ তাআলার ইবাদত। আল্লাহ তাআলা মানুষের জন্য যত বিধান নাজিল করেছেন, তা বাস্তবায়নে গবেষণা করা, চিন্তা-ফিকির করাই হলো জিকির। আর জিকিরের মাধ্যমেই মানুষের অন্তর প্রশান্তি লাভ করে।

আল্লাহ তাআলা কুরআনুল কারিমের অসংখ্য জায়গায় জিকির করার প্রতি গুরুত্বারোপ করেছেন।

আল্লাহ তাআলা বলেন, তোমরা খুব বেশি করে আল্লাহর স্মরণ করতে থাকো। আশা করা যায়, এ কাজেই তোমাদের কল্যাণ হবে। (সুরা আনফালঃ আয়াত ৪৫)

শুধুমাত্র বা আল্লাহ-আল্লাহ, তাসবিহ- তাহলিল করার মধ্যেই জিকির সীমাবদ্ধ নয় বরং প্রত্যেক কাজে আল্লাহর নির্দেশ পালন করা হলো সবচেয়ে বড় জিকির। তা হতে পারে কুরআন তেলাওয়াত করা, কুরআন-হাদিস শিক্ষা করা এবং শিক্ষা দেয়া, কুরআন-হাদিস নিয়ে চিন্তা-গবেষণা করা, ওয়াজ-নসিহত করা এবং তা শ্রবণ করার পাশাপাশি বাস্তবজীবনে আমল করা।

নফল ইবাদতের মধ্যে সর্বোত্তম ইবাদত হলো কোরআন তেলাওয়াত।

হাদিসে এসেছেঃ রাসুলুল্লাহ (সাঃ) ইরশাদ করেন, তোমাদের মধ্যে সর্বোত্তম ওই ব্যক্তি, যে কোরআন শিক্ষা গ্রহণ করে ও কোরআন শিক্ষা দেয়। (আবু দাউদঃ ১৪৫২)
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (3,297 পয়েন্ট)
এক হাদিসে পড়ে ছিলাম আফদালুয যিকরি লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ তথা সর্বোত্তম যিকির লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ। আর কুরআনে আল্লাহ বলেছেন, তোমরা আমাকে যিকির তথা স্মরণ কর, আমি তোমাদের যিকির তথা স্মরণ করব।তোমরা আমার শুকরিয়া আদায় কর অস্বিকার করোনা।আশা করি উত্তর পেয়েছেন।
টি উত্তর
২১ জানুয়ারি ২০১৯ "ক্যারিয়ার" বিভাগে উত্তর দিয়েছেন Ariful (৬৩৭৩ পয়েন্ট )
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

282,417 টি প্রশ্ন

366,632 টি উত্তর

110,344 টি মন্তব্য

152,193 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...