বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
198 জন দেখেছেন
"হাদিস" বিভাগে করেছেন (182 পয়েন্ট)
সাত শ্রেনীভুক্ত লোকেরা কিয়ামতের পর হাশরের ময়দানে আল্লাহর আরশের ছায়া পাবে।তারা কারা দলিলসহ জানাবেন।

2 উত্তর

+3 টি পছন্দ
করেছেন (5,816 পয়েন্ট)

 ১. ন্যয়পরায়ণ বাদশাহ।

 ২. এমন যুবক, যে তার যৌবনকাল ব্যয় করেছে                আল্লাহর ইবাদতে।

 ৩. সেই ব্যক্তি, যার অন্তর সব সময় মসজিদের সাথে      লেগে থাকে।

 ৪. এমন দুই ব্যক্তি, যারা আল্লাহর জন্য একে                  অপরকে ভালোবেসেছে এবং আল্লাহর জন্যেই       তাদের বিচ্ছেদ হয়েছে।

 ৫. এমন ব্যক্তি, যাকে কোনো সুন্দরী নেতৃস্থানীয়া রমণী মন্দকাজের জন্যে ডেকেছে, কিন্তু সে তার ডাক প্রত্যাখ্যান করে বলেছে, আমি আল্লাহকে ভয় করি। 

৬. সেই ব্যক্তি, যে এতটা গোপনে দান করে যে, তার বাম হাত জানে না, ডান হাত কী দান করেছে। 

৭. আর সেই ব্যক্তি, যে নির্জনে আল্লাহকে স্মরণ করে এবং তার দু’চোখ বেয়ে অশ্রু গড়িয়ে পড়ে। (বোখারি, মুসলিম) 

করেছেন (182 পয়েন্ট)
অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।আমি আরো  কিছু যোগ করলাম।

কিয়ামতের ময়দানে আরশের ছায়া ব্যতীত আর কোন ছায়া থাকবেনা।তখন আল্লাহতায়ালা সাত প্রকারের লোককে আরশের ছায়াতলে স্থান দিবেন।তারা হলেনঃ

একঃন্যায়পরায়ন বাদশা(মুসলমান)।

দুইঃযৌবনকালে আল্লাহপাকের ইবাদত বন্দেগীতে মশগুল ব্যাক্তি।উল্লেখ্য,সকলের ইবাদতই পছন্দনীয়,তবে যৌবনকালের ইবাদত বেশি পছন্দনীয়।

তিনঃঐ ব্যাক্তি যার অন্তর সর্বদা মসজিদের সাথে ঝুলন্ত  থাকে।অর্থাৎ সর্বদা নামাজের চিন্তা ফিকিরে থাকে।

চারঃঐ ব্যাক্তি যারা কেবল আল্লাহপাকের ওয়াস্তে একে অপরকে ভালবাসে।

পঞ্চমঃঐ ব্যাক্তি যে নির্জনে আল্লাহকে স্মরন করে কাদে।উল্লেখ্য,এটা ইখলাসের আলামত।

ষষ্ঠঃঐ ব্যাক্তি যে এত গোপনে দান করে যে,সে কত দান করেছে তা সে নিজেও জানেনা।

সপ্তমঃযাকে পরমা  সুন্দরী যুবতী অবৈধ কাজের জন্য আহবান করে,কিন্তু সে এই বলে কেটে পড়ে যে,আমি আল্লাহকে ভয়করি।

গ্রন্থঃতাম্বিহুল গাফেলীন(পৃষ্ঠাঃ৪৬,৪৭)।

লেখকঃআল্লামা ফকীহ আবুল লায়ছ সমরকন্দী(রহঃ)
0 টি পছন্দ
করেছেন (1,751 পয়েন্ট)
আল্লাহর আরশের নীচে থাকা সৌভাগ্যের ব্যাপার। সাত শ্রেণীর মানুষ এই সৌভাগ্য পাবেন। আরবি হাদিস وَعَن أَبي هُرَيرَةَ رضي الله عنه، قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللهِ ﷺ:« سَبْعَةٌ يُظِلُّهُمُ اللهُ في ظِلِّهِ يَوْمَ لاَ ظِلَّ إلاَّ ظِلُّهُ: إمَامٌ عَادِلٌ، وَشَابٌّ نَشَأ في عِبَادَةِ الله تَعَالَى، وَرَجُلٌ قَلْبُهُ مُعَلَّقٌ بِالمَسَاجِدِ، وَرَجُلاَنِ تَحَابّا في اللهِ اجْتَمَعَا عَلَيهِ وتَفَرَّقَا عَلَيهِ، وَرَجُلٌ دَعَتْهُ امْرَأةٌ ذَاتُ مَنصَبٍ وَجَمَالٍ، فَقَالَ: إنِّي أخَافُ الله، وَرَجُلٌ تَصَدَّقَ بِصَدَقَةٍ، فَأخْفَاهَا حَتَّى لاَ تَعْلَمَ شِمَالُهُ مَا تُنْفِقُ يَمِينُهُ، وَرَجُلٌ ذَكَرَ الله خَالِياً فَفَاضَتْ عَيْنَاهُ ». مُتَّفَقٌ عَلَيهِ . বাংলা অনুবাদ আবু হুরাইরা রাদিয়াল্লাহু আনহু কর্তৃক বর্ণিত, আল্লাহর রসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, আল্লাহ তাআলা সাত ব্যক্তিকে সেই দিনে তাঁর (আরশের) ছায়া দান করবেন যেদিন তাঁর ছায়া ব্যতীত আর কোন ছায়া থাকবে না; (তারা হল,) ন্যায় পরায়ণ বাদশাহ (রাষ্ট্রনেতা), সেই যুবক যার যৌবন আল্লাহ তাআলার ইবাদতে অতিবাহিত হয়, সেই ব্যক্তি যার অন্তর মসজিদসমূহের সাথে লটকে থাকে (মসজিদের প্রতি তার মন সদা আকৃষ্ট থাকে।) সেই দুই ব্যক্তি যারা আল্লাহর সন্তুষ্টিলাভের উদ্দেশ্যে বন্ধুত্ব ও ভালবাসা স্থাপন করে; যারা এই ভালবাসার উপর মিলিত হয় এবং এই ভালবাসার উপরেই চিরবিচ্ছিন্ন (তাদের মৃত্যু) হয়। সেই ব্যক্তি যাকে কোন কুলকামিনী সুন্দরী (ব্যভিচারের উদ্দেশ্যে) আহবান করে, কিন্তু সে বলে, আমি আল্লাহকে ভয় করি।’ সেই ব্যক্তি যে দান করে গোপন করে; এমনকি তার ডান হাত যা প্রদান করে, তা তার বাম হাত পর্যন্তও জানতে পারে না। আর সেই ব্যক্তি যে নির্জনে আল্লাহকে স্মরণ করে; ফলে তার উভয় চোখে পানি বয়ে যায়।’’ [বুখারি ৬৬০, ১৪২৩, ৬৪৭৯, ৬৮০৬, মুসলিম ১০৩১, তিরমিযি ২৩৯১, নাসায়ি ৫৩৮০, আহমদ ৯৩৭৩, মুওয়াত্তা মালিক ১৭৭৭]
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

2 টি উত্তর
06 নভেম্বর 2018 "হাদিস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন jahid talukder (6 পয়েন্ট)

299,310 টি প্রশ্ন

386,971 টি উত্তর

116,925 টি মন্তব্য

165,025 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...