বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
239 জন দেখেছেন
"সাধারণ" বিভাগে করেছেন (11 পয়েন্ট)

2 উত্তর

+6 টি পছন্দ
করেছেন (4,777 পয়েন্ট)
পৃথিবীর সর্ব প্রথম ভাষা আরবী। কারণ মা হাওয়া ও আদম আ. পৃথিবীর প্রথম মানব-মানবী; আর তারা জান্নাতে আরবীতে কথা বলতেন। তাই একথা নিশ্চিতভাবে বলা যায় যে, উনারা পৃথিবীতে এসে আরবী ভাষাই ব্যবহার করেছে।
0 টি পছন্দ
করেছেন (3,789 পয়েন্ট)

মানুষ সৃষ্টির শুরু থেকে হযরত নুহ নবি পর্যন্ত সকল মানুষ একই ভাষায় কথা বলত। পরবর্তীতে মানববংশ বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রয়োজনের তাগিদে নতুন নতুন ভাষার পয়দা হয়। বাইবেলে উল্লেখ আছে, প্লাবনের পরে সমস্ত পৃথিবী এক ভাষাতে কথা বলত। সমস্ত মানুষ একই শব্দগুলি ব্যবহার করত। (বাইবেল, আদিপুস্তক ১১/১) এই সেই স্থান যেখানে প্রভু সমস্ত পৃথিবীর এক ভাষাকে অনেক ভাষাতে বিভক্ত করলেন। তাই এই স্থানটির নাম হলো বাবিল (বর্তমান ইরাক)। এইভাবে প্রভু তাঁদের সেই স্থান থেকে পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে দিলেন। (বাইবেল, আদিপুস্তক-১১/৯) খ্রিস্টানদের স্বরচিত ধর্মগ্রন্থ বাইবেল ভাষার ইতিহাসের ক্ষেত্রে সত্যের একটি দিক উন্মোচন করেছে। অথচ পুরো সত্য প্রকাশ করেনি। শ্লোক থেকে বুঝা যায় সেই প্রাচীনতম, সেই প্রথম ভাষার নাম বাইবেল রচয়িতরা ইচ্ছাকৃতভাবেই এড়িয়ে গেছেন। 
তবে সত্যিকার ইতিহাস পর্যালোচনায়, প্রকৃত গবেষণায় এ সত্যটা বেরিয়ে এসেছে। আল্লামা জালালউদ্দিন আস সুয়ুতি বলেন, সর্বপ্রাচীন ও প্রথম ভাষা হলো আরবি। হযরত আদম আ.-কে জান্নাতে পরীক্ষার জন্য সর্বপ্রথম যে শব্দজ্ঞান ও ভাষা শেখানো হয়েছিল তা ছিল আরবি, এতে কোনো দ্বিমত নেই। আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস রা. থেকে বর্ণিত জান্নাতে আদম আ.-এর ভাষা ছিল আরবি। কিন্তু ভুলবশত নিষিদ্ধ বৃক্ষের ফল ভক্ষণ করার পর তিনি আরবি ভাষা ভুলে যান এবং তিনি সুরিয়ানি ভাষায় কথা বলতে শুরু করেন। অতঃপর যখন তার তাওবা কবুল হয় তখন তিনি পুনরায় আরবি ভাষায় কথা বলতে সক্ষম হন। পরবর্তীতে তিনি দুনিয়ায় আরবি ভাষায়ই কথা বলতেন। সকল আসমানি গ্রন্থ ও সহিফা আরবি ভাষায়ই অবতীর্ণ হয়েছে। কিন্তু আম্বিয়ায়ে কিরাম তাঁদের নিজ নিজ সম্প্রদায়ের ভাষায় তরজমা করে তাদেরকে সেই গ্রন্থের বাণী ও শিক্ষা পৌঁছান। আসমানি কিতাবসমূহের মধ্যে কেবল পবিত্র কুরআনই তার মূল ভাষা আরবিতে বহাল রয়েছে। (আল ইতফান ফি উলুমিল কুরআন. প্রথম খÐ, পৃ ১৩৬) 
আবদুল মালিক ইবনে হাবিব (মৃত্যু ২২৮ হিজরি) এর বরাতে উল্লেখ আছে যে, সর্বপ্রথম আদম আ. যে ভাষা নিয়ে পৃথিবীতে আগমন করেন সেটি ছিল আরবি। (আল বুলগা ফি উসুলিল লুগাহ, নওয়াব সিদ্দিক খান) হযরত মুহাম্মাদ ইবনে আহমাদ আল আযহারি র. (মৃত্যু ৩৭০ হিজরি) বলেন, মানুষ দুনিয়াতে আগমনের পূর্বেই আল্লাহ তায়ালা আদম আ.-কে আরবি ভাষা শিক্ষা দানের মাধ্যমে এ ভাষার সূচনা করেন।’ আরবি ভাষা সবভাষার চেয়ে প্রাচীন ভাষা, এর বড় প্রমাণ হলো আল কুরআনের ভাষা আরবি। (ইসলামিক ফাউন্ডেশন পত্রিকা, অক্টোবর-ডিসেম্বর ২০০৪, পৃ ১৭৪)

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

2 টি উত্তর
15 অগাস্ট 2016 "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন ABUL KASEM (11 পয়েন্ট)
2 টি উত্তর
12 এপ্রিল 2018 "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Parvez Mahmud01 (17 পয়েন্ট)
1 উত্তর
02 মে 2014 "আন্তর্জাতিক" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন স্বপ্ন ডানা (408 পয়েন্ট)
1 উত্তর
06 জানুয়ারি 2014 "আন্তর্জাতিক" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন রানা (67 পয়েন্ট)

322,728 টি প্রশ্ন

413,242 টি উত্তর

128,057 টি মন্তব্য

177,737 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...