বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
58 জন দেখেছেন
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে করেছেন (4,430 পয়েন্ট)

2 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (3,418 পয়েন্ট)
তাদের মধ্যে কয়েকটি পার্থক্য হলোঃবাদশাহ নমরুদ এবং ফেরাঊন উভয়ে বেঈমান বাদশা অপরদিকে সুলাইমান আঃঈমানদার বাদশা।নমরুদ ও ফেরাঊন উভয়ে ছিলেন যালেম বাদশা অপরদিকে নবী সুলাইমান আঃ হলেন সৎ এবং পূন্যবাণ বাদশা।
0 টি পছন্দ
করেছেন (3,792 পয়েন্ট)

হযরত সুলাইমান আ. এবং ফিরাউন ও নমরুদের মধ্যে অনেক পার্থক্য রয়েছে, তা হলো-

১। হযরত সুলাইমান আ. ঈমানদার ছিলেন। ফিরাউন ও নমরুদ ছিলো বেঈমান কাফের।

২। হযরত সুলাইমান আ. ছিলেন ন্যায়পরায়ণ বাদশাহ। তারা ছিলো জালিম বাদশাহ।

৩। হযরত সুলাইমান আ. আল্লাহর প্রেরিত বান্দা এবং নবী ছিলেন। পক্ষান্তরে ফিরাউন আর নমরুদ নবী ছিলো না।

৪। হযরত সুলাইমান আ. ছিলেন সমগ্র পৃথিবীর বাদশাহ ছিলেন। কিন্তু ফিরাউন সমগ্র পৃথিবীর বাদশাহ ছিলো না।

৫। হযরত সুলাইমান আ. এর আল্লাহ প্রদত্ত কিছু শক্তি ছিলো, যেমন- তিনি পশু-পাখির কথা বুঝতেন, বাতাস তার কথানুযায়ী প্রবাহিত হত ইত্যাদি। পক্ষান্তরে ফিরাউন ও নমরুদের এসব শক্তি ছিলো না।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
03 অক্টোবর 2018 "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Badshah Niazul (4,430 পয়েন্ট)

312,939 টি প্রশ্ন

402,501 টি উত্তর

123,637 টি মন্তব্য

173,340 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...