159 জন দেখেছেন
"শিক্ষা+শিক্ষা প্রতিষ্ঠান" বিভাগে করেছেন (971 পয়েন্ট)
বন্ধ করেছেন

আমার ব্রেন বেশি একটা ভালো না। পড়ালেখায় আমি খারাপ। কীভাবে আমি মেধাবী হতে পারি? 

এবটি রুটিন তৈরি করে দিন।
এই চিরকূট সহকারে বন্ধ করা হয়েছে : যথেষ্ট উত্তর !!

5 উত্তর

1 টি পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (552 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর
আপনি এই দোয়াটি বেশি বেশি পড়ুন৷ এটি কোরআনে বর্ণিত দোয়া৷ রাব্বি যিদনি ইলমা, রাব্বিশ রাহলি, ছদরি, ওয়াইচ্ছিরলি আমরি, ওয়াহলুল উকদাতাম মিন লিছানি, ইয়াফকহু কওলি, ওয়াবিকা নাছতায়িনু ইয়া মুছতাআন৷
5 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (4,405 পয়েন্ট)

আপনাকে একটি রুটিন সরবরাহ করলাম আশারাখি উপকৃত হবেন।  প্রথমেই একটি ডেইলি রুটিনের জন্য যা করতে পারেন তা হচ্ছে-

পরিকল্পনা তৈরীঃ নিজে নিজেই যেহেতু আপনি একটি রুটিন বানাবেন তাই নিজে থেকেই পরিকল্পনা করুন। কিভাবে সাজালে ভাল হয়, কোন কাজের উপর বেশি গুরুত্ব দিতে হবে এসব মাথায় রেখে একটি সুন্দর পরিকল্পনা করে ফেলুন। তারপর ধীরে ধীরে এগিয়ে যান।

সময় ভাগ করাঃ সময়কে ভাগ করে নেয়ার পর তা দিয়ে দিনের একেক টি কাজ পরিপুর্নভাবে সম্পন্ন করতে পারাই রুটীনের কাজ। যদি ব্যর্থ হয় তবে রুটিন ভ্যালু লেস হয়ে যায়। তাই একটি রুটিন কখনোই এলোমেলো হতে পারেনা সফলতার জন্যে। সময়ের কাজ সময়ে করতে পারার একটা চর্চা করতে হবে। সময় ভাগ করে ফেললে আপনার রুটিনের জন্য সহজ হয়ে যাবে। তবে এমন সময় নিয়ে আসবেন না যে সময়ে আপনি কোন নির্দিষ্ট কিছুই করতে পারবেন না। যেমন আপনি মনে করলেন যে দুটা কাজের ফাঁকে ১০মিনিট সময় আছে অন্য একটি কাজ করে ফেলা যায়। হ্যাঁ করে তো ফেলা যায় তবে তা যেন বড় কোন কাজ না হয় সে দিকেই খেয়াল রাখতে হবে। ডেইলি রুটিনেরজন্য অবশ্যই পাঁচ মিনিটের বেশি সময় লাগে এমন সব কাজ সময়ের মধ্যে ধরতে হবে।

সময় পরিমাপঃ প্রত্যেক কাজের একটি নির্দিষ্ট সময় থাকে। যেমন আপনি একটি হোমওয়ার্ক করতে আপনার হয়ত ৩০ মিনিট সময় লাগে। তাহলে আপনার রুটিনে ত্রিশ মিনিটের কম সময় নেয়া বোকামি হবে। এজন্য প্রত্যেক কাজের জন্য নির্দিষ্ট সময় পরিমাপ করতে হয়। রুটিন করার আগে এই সময়জ্ঞান আপনাকে অর্জন করে নিতে হবে।

রুটিন স্থায়ীকরনঃ প্রারম্ভিক পর্যবেক্ষনের জন্য আপনি একটি খসড়া রুটিন দিয়ে শুরু করতে পারেন। যেমন ম্যাথমেটিক্স এর জন্য প্রতিদিন এক ঘন্টা। কিন্তু কিছু দিন(প্রায় এক মাসের) মধ্যে দেখলেন যে একঘন্টা অনেক কম হচ্ছে। আপনার আরো বেশি সময় দরকার। তাহলে আরো বাড়িয়ে নিতে পারেন। বাড়িয়ে নিলে যদি মনে হয় যে এবার ঠিক আছে তখন সেটা স্থায়ী ডেইলি রুটিন হিসেবে নিন। এভাবে খসড়া থেকে আপনি স্থায়ী রুটিনে অনেক কাজে সময় কমাতেও পারেন। উদাহরন, আপনার গোসলে প্রতিদিন ৩০ মিনিট সময় লাগে। আপনি চাইলে আরো দ্রুত গোসল সারতে পারেন। তখন হয়ত ৭মিনিটের মধ্যেই গোসল শেষ, একে স্থায়ী রুটিনে নিন। আর এই সাত মিনিটের বাইরে আর যাওয়া যাবে না। এটাই আপনার ইফিসিয়েন্সি বা দক্ষতা। কাজে দিন দিন দক্ষতা বাড়ে। তাই সময় আমাদের দিন দিন বাড়তে থাকে, কারন কাজের জন্য সময় কম লাগে। এভাবেই আপনি অনেক বেশি কাজ শেষ করতে পারবেন। যিনি সেরা তিনি অবশ্যই আমাদের চেয়ে দ্রুত কাজ করেন।

রুটিন পরিবর্তনঃ এটা লাগবেই। কোন রুটিনেই আপনি জীবন ধরে রাখতে পারবেন না। তার জন্য বৈচিত্র নিয়ে আসতে হয়। তিনমাসে ছোটখাট পরিবর্তন করতে পারেন। আবার বছরে নতুন প্ল্যানিং কালে অনেক বড় পরিবর্তন আনতে পারেন। কোন কোন ক্ষেত্রে চিকিৎসা বা অন্যান্য প্রাকৃতিক কারনেও পরিবর্তন লাগতে পারে। পরিবর্তন কে উন্নতি হিসেবে নিন। যেমন আপনার সাধারন জীবন থেকে উন্নত জীবন। নিজেই বের করুন কী করলে আপনি আরো উন্নত জীবন পাচ্ছেন।

আশাকরছি এভাবেই আপনি একটি ডেইলি রুটিনের মধ্যে দিয়ে নিজেকে আরো উন্নত করতে পারবেন।

 


করেছেন (781 পয়েন্ট)
চমৎকার লিখেছেন।
করেছেন (4,405 পয়েন্ট)
জাযাকাল্লাহু খাইরান ফিদ দারাইন। আমীন।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (982 পয়েন্ট)
আপনি এক কাজ করেন প্রথমে একটা ধাঁধা নিন তারপর একটা নীরব স্থানে বসে শুধু ধাঁধা টা নিয়ে ভাবুন এবং অনেক্ষণ ভাবুন ।দেখবেন সমাধান করেছেন বা আশেপাশে গিয়ে ফেলেছিলেন।তবে যদি উত্তরের আশেপাশে না যেতে পারেন তবে বুঝবেন আপনি একজন অলস ব্যক্তি ছিলেন।আর আপনি মেধাবী হতে হলে এই অলসতা কাটিয়ে প্রচুর প্রচুর প্রচুর পড়া নিয়ে ভাবুন।আপনি এতোদিন তো কম পড়েছেন তাই আপনি অনেক অনভিজ্ঞ মানে মেধাবী না।তাই প্রচুর চিন্তা করবেন প্রশ্ন সমাধান করতে।এবং প্রত্যেক চিন্তাটি মাথায় রাখবেন যাতে ঠিক এই চিন্তা অন্য প্রশ্নের সময় কাজে লাগে এ ভাবে চেষ্টা করুন ও সৃষ্টিকর্তার নিকট প্রার্থনা করুন
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (28 পয়েন্ট)
আপনি নিয়মিত ভালো ভাবে পড়ুন।আপনি কোনো পড়া মুখস্থ না করে বুঝে পড়ুন।আপনি পড়া না বুঝলে 10 minute school এর মতো ওয়েবসাইটের সাহায্য নিন।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (2,385 পয়েন্ট)
সম্পাদিত করেছেন
মেধাবী ছাত্র হতে হলে আত্নবিশ্বাসী হতে হবে।অজানা বিষয় জানার আগ্রহ করুন,নিয়মিত পড়ুন,যখন বসে থাকবেন তখন একা একা পড়া মনে করুন,বইয়ের প্রতিটি লাইন ভাল ভাবে বুঝিয়ে পড়ুন।স্কুলে নিয়মিত উপস্থিত হবেন ।
টি উত্তর
২১ জানুয়ারি ২০১৯ "ক্যারিয়ার" বিভাগে উত্তর দিয়েছেন Ariful (৬৩৭৩ পয়েন্ট )
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
22 জানুয়ারি 2017 "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Abdul Khalek Meshkat (8 পয়েন্ট)
2 টি উত্তর
16 অগাস্ট 2016 "শিক্ষা+শিক্ষা প্রতিষ্ঠান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Ocena pakhi (3 পয়েন্ট)
3 টি উত্তর
25 জানুয়ারি 2016 "আইকিউ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন সালমান ইসরাক (42 পয়েন্ট)

282,826 টি প্রশ্ন

367,103 টি উত্তর

110,524 টি মন্তব্য

152,511 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...