123 জন দেখেছেন
"প্রেম-ভালোবাসা" বিভাগে করেছেন (195 পয়েন্ট)

2 উত্তর

2 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (7,682 পয়েন্ট)

 প্রিয়তমার কথা ভেবে আবেগের বসে নাওয়া খাওয়া ছেড়ে দিয়েছেন। কিন্তু সেই নারী কি ঐ ছেলেটিকে নিয়ে এক মুহূর্তও চিন্তা করে?। নারীদের মন জয় করার জন্য একদল গবেষক বিশটি উপায় খুজে বের করেছেন। আসুন জেনে নেই কি করে আপনার কাঙ্খিত নারীর মন জয় করবেন।


১. ভালবাসার প্রথম শর্ত হল প্রিয়মানুষটার কাছে সৎ থাকা। তার কাছে কোনকিছুই গোপন করা যাবে না।
২. প্রিয়তমাকে তার দূর্বলতার কথা তুলে রাগানো যাবে না।
৩. আত্মবিশ্বাসী হতে হবে। মেয়েরা আত্মবিশ্বাসী ও ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন পুরুষদের পছন্দ করে। প্রিয়মানুষের মানসিক ও শারীরিক চাহিদার প্রতি খেয়াল রাখতে হবে।
৪. নিজের অর্থসম্পদের চেয়ে তাকে বেশি ভালবাসতে হবে। প্রত্যেক নারী তার প্রিয়জনের কাছ থেকে সর্বোচ্চ ভালবাসা পেতে চায়। নারী চায় তার প্রিয়মানুষ তার প্রতি যত্মবান হোক। সবকিছুর উর্ধ্বে তাকে দেখুক।
৫. মেয়েরা হাস্য-রস পছন্দ করে। যেসব ছেলেরা তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাসি তামাশা করতে পারে, মেয়েরা ঐসব ছেলেদের পছন্দ করে।
৬. মেয়েরা পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা ও ফিটফাট থাকতে পছন্দ করে। মেয়েরা চায় তার ভালোবাসার মানুষটি সব সময় কেতাদুরস্ত থাকুক।
৭. প্রিয়তমাকে প্রশ্ন করার সুযোগ করে দিতে হবে। সে কি জানতে চায় সেদিকে থেয়াল রাখতে হবে।
৮. নিজের পরিবারের সম্পর্কে তার সামনে খোলামেলা আলোচনা করতে হবে। এতে মেয়েরা নিজেদের অনেকটা নিরাপদ মনে করে।
৯. ফেলে আসা জীবনে যেসব মেয়েদের সঙ্গে আপনার প্রেম ছিল। সেসব গল্প নাইবা বললেন আপানার প্রিয়তমাকে। যদি সে কখনো জানতে চায় তবেই বলা যেতে পারে।
১০. মেয়েরা কথার ছলে গল্প বলতে ভালোবাসে। আপনার প্রিয় মানুষটির গাল-গল্পে বিরক্ত হবেন না যেন। তাহলে সে আপনার উপরে চটে যাবে।
১১. প্রিয়তমার সঙ্গে কথা বলার সময় তার চোখের দিকে তাকিয়ে আবেগ প্রকাশ করে কথা বলুন। এতে মেয়েরা খুশি হয়।
১২. আপনার মনে বেদনার পাহাড় জাগতে পা্রে। তাই বলে সবাইকে বলে কয়ে বেড়াবেন এমন নয়। প্রিয় নারীকেও আপনার দুঃখ-কষ্ট বুঝতে দেবেন না। বরং হাসি খুশি থাকুন।
১৩. কথায় বলে প্রকৃতি শুন্যস্থান পছন্দ করে না। তাই যথাসম্ভব প্রিয়জনের কাছাকাছি থাকুন। তাকে ঘনঘন সময় দিন।
১৪. প্রিয়মানুষটির পছন্দ-অপছন্দের প্রতি খেয়াল রাখুন। তার ভালো লাগা, মন্দ লাগার বিষয়গুলো মাথায় রাখুন।
১৫. প্রিয়তমার সঙ্গে কখনো অন্যকোন নারীর তুলনা করবেন না। কোন নারীর তুলনা পছন্দ করেন না।
১৬. অনেকে মনে করেন প্রেমিকার সঙ্গে বন্ধত্ব করা যায় না। কথাটি ভুল। আগে বন্ধুত্ব পরে প্রেম।
১৭. প্রেমিকার বিশ্বাসে কখনো আঘাত করবেন না।তার নিজস্ব চিন্তা-চেতনাকে সম্মান করুন।
১৮. প্রিয়তমার শরীরের মোহে না পরে তার মনের গুরুত্ব দিন। শরীর বৃত্তিয় ভালোবাসা দীর্ঘস্থায়ী হয় না। ভালোবাসুন মনে থেকে। তাহলে শরীর মন দুটোই পাবেন অনায়াসে।
১৯. প্রকৃতিগত ভাবেই নারীরা কোমল। তাই প্রেমিকার সঙ্গে কথা বলার সময় সময় কখনো কঠোর হবে না। কোমল সুরে নারীর সঙ্গে কথা বলুন।
২০. মেয়েরা খুব আবেগ প্রবণ। তারা সব সময় পরিবার-পরিজন নিয়ে থাকতে ভালোবাসে। তাই আপনার প্রিয়মানুষটির পরিবারের প্রতি খেয়াল রাখুন। খোঁজ খবর নিন।
মনে রাখবেন ভালোবাসা এমনি এমনি আসে না। ভালোবাসা পেতে হলে আগে ভালোবাসা দিতে হয়। প্রেম-ভালোবাসা হল সুন্দরের আরাধনা। নারীর মন বুঝতে হলে নারীর সঙ্গে ঐ ধরনের আচরন করুন য্টো সে পছন্দ করে। তাহলেই দেখবেন সে আপনার প্রতি ভালোবাসায় বিগলিত হয়ে গেছে।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (2,361 পয়েন্ট)
স্ত্রীর কাছে বেশি ভালোবাসা পাওয়ার উপায়সমূহ:-

# তাকে বলুন সেই পোশাকটি (আপনাদের উভয়ের প্রিয়) পরলে তাকে বেশ সুন্দর দেখায়।

# কোনও পার্টিতে রুমের অন্যপাশ থেকে তাকে চোখের ইশারা করুন।

# সে যখন গোসল করছে তখন খাবার সাজিয়ে রাখতে পারেন।

# গভীরভাবে তার চোখে তাকান।

# তার আজকের দিনটি কেমন কেটেছে জিজ্ঞাসা করুন, সে যখন আপনাকে সবকিছু বিস্তারিত বলতে থাকবে তখন তাতে কোনও রকম বাধা না দিয়ে শুনে যান।

# কোনও রকম তাৎক্ষনিক সমাধান দেয়ার চেষ্টা না করে তার সমস্যাগুলি শুনুন। অনেক সময়ে মহিলাদের শুধুই ভেতরের আবেগ প্রকাশ করার প্রয়োজন হয়। আপনি তাকে এটা বুঝতে দিন আপনি তাকে শুনছেন এবং আপনি সবসময়েই তার জন্য আছেন।

# মেয়েদের সাথে তাকে বাইরে বেড়াতে যেতে উৎসাহিত করুন।

# ব্যবহার করলে তাকে সুন্দর দেখাবে এমন কিছু যা আপনি জানেন তাকে কিনে দিন।

# তার কাছে সকল বিষয়ে মতামত জানতে চান।

# কোথাও বাইরে যেতে তার বোঝার আগেই তার গলায় একটু আদরের পরশ বুলিয়ে দিন।

# একটি মজার মুভি নিয়ে আসুন এবং তার সাথে ঘনিষ্ঠ হয়ে বসে তা উপভোগ করুন।\

# তার বালিশের কাছে কোন একটি ভালবাসার বার্তা রেখে দিন।

# কাজে যাবার আগে তাকে বিদায় চুম্বন করুন।

# তার সুন্দর ইচ্ছাগুলিকে উৎসাহিত করুন। সেগুলি তাকে করতে দিন কারণ সে একজন স্ত্রী এবং মা।

# বিছানায় শুতে যাবার আগে তাকে পড়ে শোনান। তবে একেবারে নীরস কিছু নয়।

# তাকে মুল্যায়ন করুন। উচ্চকণ্ঠে এবং সবসময়েই।

# তাকে এমন কোন সাধারণ দিনে গোলাপ বা চকোলেট কিনে দিন যেদিন তার জন্মদিন বা বিশেষ কোন ছুটির দিন নয়।

# দূরে গেলে তাকে ফোন করুন যাতে সে বোঝে সারাদিন তাকে নিয়ে আপনি ভাবেন। তাকে বলুন যে আপনি কেবল তার কণ্ঠস্বর শুনতে চাইছিলেন।

# একটি হোটেল রুম বুক করে তাকে নিয়ে সাপ্তাহিক ছুটির দিন কাটিয়ে আসুন, অবশ্যই কেবল আপনারা দুজনে।

আশা করি সাহায্য করতে পেরেছি ।
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

277,175 টি প্রশ্ন

360,727 টি উত্তর

107,815 টি মন্তব্য

148,442 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...