266 জন দেখেছেন
"দুয়া ও যিকির" বিভাগে করেছেন (9 পয়েন্ট)
বিভাগ পূনঃনির্ধারিত করেছেন
বন্ধ

3 উত্তর

4 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (2,385 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর
কোন সূরা পাঠ করলে কি হবে ?? আসুন জেনে আমল করি। (১) সূরা ফাতেহা চারবার পাঠ করলে দুই খতম কোরআনের ছাওয়াব পাওয়া যায়। (আবূ দাউদ, মাযহারী) (২) সূরা ইয়াছিন একবার পাঠ করলে দশ খতম কোরআনের ছাওয়াব পাওয়া যায়।(তিরমিযি) (৩) সূরা মূলক প্রতিদিন নিয়মিত পাঠ করলে কবরের সর্বপ্রকার আযাব ও বিপদ দূর হয়।(তিরমিযি) (৪) সূরা ওয়াকেয়া প্রতিদিন নিয়মিত পাঠ করলে ছাওয়াবের সাথে সাথে অভাবও দূর হয়। (বায়হাকী) (৫) সূরা কাওছার চারবার পাঠ করলে এক খতম কোরআনের ছাওয়াব পাওয়া যায়। (আহমদ) (৬) সূরা তাকাছুর একবার পাঠ করলে এক হাজার আয়াত পাঠের ছাওয়াব পাওয়া যায়। (মেশকাত) (৭) সূরা এখলাস তিনবার পাঠ করলে এক খতম কোরআনের ছাওয়াব পাওয়া যায়। (মুসলিম) (৮) সূরা কাফিরূন চারবার পাঠ করলে এক খতম কোরআনের ছাওয়াব পাওয়া যায়। (তিরমিযি) (৯) সূরা হাশরের শেষ তিন আয়াত সকাল-বিকাল পাঠ করলে সত্তর হাজার ফেরেশ্তা তার জন্য মাগফেরাতের দুয়া করতে থাকে। (মেশকাত) (১০) আয়াতুল কুরসী প্রত্যেক ফরজ নামাযের পর পড়লে জান্নাত নসীব হয়। (নূরুস সূদুর)
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (3,171 পয়েন্ট)
সুরা হাশরের শেষ ৩ আয়াত পড়তে হয় ফজর এবং মাগরিবের নামাজ শেষে । এই আয়াত শুরুতে ৩ বার পড়তে হয় " আউজুবিল্লাহিছ সামিউয়ালিম,  মিনাশ শাইতনির রজিম" তারপর উক্ত আয়াত পড়লে ৭০,০০০ (সত্তর হাজার) ফেরেস্তা তার মাগফেরাতের জন্য দোয়া করতে থাকে।

বিদ্র: আপনি হিসনুল মুুুসলিম এ্যাপস টি ডাউনলোড করুুন ওখানে অনেক দোয়া পাবেন যা আমলে কাজে আসবে।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (20 পয়েন্ট)
সূরা ইখলাস পাঠ করলে- 1.জান্নাত ওয়াজিব হয়ে যায়2.পঞ্চাশ বছরের গুনাহ মাফ করে দেওয়া হয়। সূরা ইয়াসিন পাঠ করলে *.দশ বার কুরআন খতমের সওয়াব পাওয়া যায়।
টি উত্তর
২১ জানুয়ারি ২০১৯ "ক্যারিয়ার" বিভাগে উত্তর দিয়েছেন Ariful (৬৩৭৩ পয়েন্ট )
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

2 টি উত্তর
21 ডিসেম্বর 2017 "দুয়া ও যিকির" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন শাহাজান (9 পয়েন্ট)
1 উত্তর

283,383 টি প্রশ্ন

367,858 টি উত্তর

110,874 টি মন্তব্য

152,898 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...