বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
47 জন দেখেছেন
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে করেছেন (94 পয়েন্ট)
আমি আজ বেশ কয়েকমাস যাবৎ একটি প্রশ্ন এর মুখোমুখি হয়ে আছি। প্রশ্ন এর সত্যতা জানতে পারিনা বলে আপনাদের কাছে এর একটা উওর আশা করছি প্রশ্ন টি হলো ইসলাম ধর্মে আমরা সবাই আল্লাহ এর কাছে অনেককিছু চেয়ে থাকি। এবং আল্লাহ তা দিয়ে থাকেন।কিনতু যদি কোন ব্যাক্তি স্রষ্টারর কাছে চায় যে__ আমি ত নারী আমি পুরুষ হতে চাই। এমন টা যদি কেউ চেয়ে দোয়া করে, তাহলে কি আল্লাহ এমনটা করে দেবেন কি? স্রষ্টারর কাছে যা চাওয়া হয়, স্রষ্টা ত তাই মানুষকে দান করেন। এটা এটা কি কখনো করবেন? আপনাদের কাছে সঠিক উওর আশা করছি

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (4,853 পয়েন্ট)
দেখুন, নারী পুরুষের মধ্য হতে যার জন্য যেটা কল্যাণকর আল্লাহ তাকে সেভাবেই সৃষ্টি করেছেন। একজন নারীর জন্য নারী হওয়া কল্যাণকর ছিলো বলেই তাকে নারী হিসেবে সৃষ্টি করেছেন। একজন পুরুষের জন্য পুরুষ হওয়া কল্যাণকর বলেই তাকে পুরুষ হিসেবে সৃষ্টি করেছেন। এখন একজন নারী পুরুষ হওয়ার জন্য আল্লাহর নিকট দুআ করা মানে নিজর জন্য অকল্যাণের দুআ করা। আল্লাহ তো বান্দার অকল্যাণ চান না। সুতরাং তার এ অকল্যাণকর দুআ তো তিনি কবুল করতে পারেন না। আল্লাহর নিকট যা চাওয়া হয় তা দেন ঠিক। কিন্তু আল্লাহ বান্দাকে তাই দেন যা তার জন্য কল্যাণকর। যেমন ধরুন কেউ পাখীর বাহ্যিক সুখ স্বাধীনতা দেখে পাখী হওয়ার জন্য আল্লাহর নিকট পাখী হওয়ার দুআ করলো। আল্লাহ কি এটা কবুল করবেন ? আল্লাহর স্বাভাবিক নিয়ম হলো তিনি তার দুআ কবুল করবেন না। ব্যতিক্রমভাবে যদি কারো ব্যতিক্রমী দুআ কবুল করে থাকেন সেটা ভিন্ন বিষয়। সারকথা কোনো নারী পুরুষ হওয়ার দুআ করলে আল্লাহ স্বাভাবিক নিয়ম অনুসারে তার দুআ কবুল করবেন না।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

331,652 টি প্রশ্ন

422,453 টি উত্তর

131,195 টি মন্তব্য

181,136 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...