বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
106 জন দেখেছেন
"ফাতাওয়া-আরকানুল-ইসলাম" বিভাগে করেছেন (3 পয়েন্ট)

3 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (154 পয়েন্ট)
হারাম টাকার জিনিস বা টাকা দান করার ছেয়ে উওম হলো, জিনিসের বা টাকার সঠিক মালিককে খোজে দেওয়া..! যদি সেটা পাওয়া না যায় তাহলে সতকার নিয়তে দান করে দিবেন(তওবা শর্ত) বলে রাখা ভালো যে,এতে সওয়াবের নিয়ত করা যাবে না... যদি সওয়াব হয়ে থাকে সেটা আল্লাহর ইচ্ছা..।
0 টি পছন্দ
করেছেন (4,845 পয়েন্ট)
হারাম টাকা আর দান দুটি দু মেরুর জিনিস। এ দুটির সহাবস্থান কখনো হতে পারে না। একটি পুণ্য অপরটি গুনাহ। দুটিকে একসাথে করার কোনো সুযোগ নেই। নেগেটিভি পজিটিভ একসাথে করলে যা হবার তাই হবে। অর্থাত কেউ যদি হারাম টাকাকে সাওয়াবের নিয়তে দান করে তাহলে গুনাহ হবে। সাওয়াব হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। হারাম টাকার বিধান হলো, সেটা যদি ব্যক্তি সংশ্লিষ্ট হয় তাহলে তাকে পৌঁছে দিতে হবে। আর যদি কোনো ক্রমেই মূল মালিককে পৌঁছে দেয়া সম্ভব না হয় কিংবা হারাম টাকাটা ব্যক্তি সংশ্লিষ্ট না হয় তাহলে সাওয়াবের নিয়ত ব্যতীত উপযুক্ত দরিদ্র ব্যক্তিকে দান করে দিতে হবে। এ ক্ষেত্রে এটাকে নিজের দান মনে করা যাবে না।
0 টি পছন্দ
করেছেন (6,801 পয়েন্ট)
হারাম টাকার জিনিস বা টাকা দান করা আবশ্যক তবে এর সওয়াব হবেনা।

হারাম টাকা যার কাছ থেকে গ্রহণ করা হয়েছে, তার কাছে ফেরত পাঠানো আবশ্যক। যদি ফেরত পাঠানো সম্ভব না হয়, তাহলে সওয়াবের নিয়ত ছাড়া সমুদয় হারাম টাকা দান করে দেয়া আবশ্যক।

সূনান আত তিরমিজীর  হাদিস নম্বরঃ ১ থেকে পাওয়া যায়,

ইবনু উমর (রাঃ) হতে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেনঃ পবিত্রতা ছাড়া নামায কবুল হয় না। আর হারাম উপায়ে প্রাপ্ত মালের সাদকাও কুবুল হয় না।
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

300,478 টি প্রশ্ন

388,357 টি উত্তর

117,371 টি মন্তব্য

165,883 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...