75 জন দেখেছেন
"স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (543 পয়েন্ট)
সম্পাদিত করেছেন
আগামিকাল ১৭ এপ্রিল বিশ্ব হিমোফিলিয়া দিবস । বিখ্যাত চিকিৎসা বিজ্ঞানী ও *ওর্য়াল্ড ফেডারেশন অব হিমোফিলিয়া* এর প্রতিষ্ঠাতা ফ্রাঙ্ক স্ন্যাবেল এর স্বরণে এবং হিমোফিলিয়া সর্ম্পকে সচেতনতা তৈরীর জন্য ১৯৮৯ সাল থেকে পালিত হচ্ছে দিবসটি । বিশ্বের অন্যন্য দেশের মত বাংলাদেশ ও পালন করবে দিবসটি এবং রোগিদের কিছু প্রত্যাশিত দাবী উপস্থাপন করবে । এজন্য *হিমোফিলিয়া সোসাইটি অব বাংলাদেশ*, ঢামেক, বিএসএমএমইউ হসপিটাল নানা কর্মসূচির আয়োজন করেছে । ##হিমোফিলিয়া হচ্ছে এক ধরণের বিশৃঙ্খল রক্তখরণজনিত রোগ । এ রোগে আক্রান্ত ব্যাক্তিদের দেহের কোথায় কেটে গেলে রক্তখরণ বন্ধ হয় না আঘা পেলে বা বিনা কারণাও শরীর ভেতরে রক্তখরন হতে পারে । কারণ এদের রক্তে ক্লোটিং ফ্যাক্টর কম থাকে বা কারো দেহে অনুপস্থিত থাকে । ##হিমোফিলিয়া দু ধরনেরঃ ১. ফ্যাক্টর এইট এর অভাব বা হিমোফিলিয়া এ ২. ফ্যাক্টর নাইন এর অভাব বা হিমোফিলিয়া বি । হিমোফিলিয়া এ রোগিই বাংলাদেশে অধিক । ## বিশ্ব স্বাস্থ্যসংস্থা মতে বাংলাদেশে ১৬ হাজার হিমোফিলিয়া রোগী আছে যার বেশির ভাগই অচিন্হিত । ## কিভাবে বুঝবেন হিমোফিলিয়া? আপনি ঢামেক অথবা বিএসএমএমইউ তে CBC, PBF, BT, CT, PT, APTT, ও Factor পরীক্ষা করলে জানা যাবে । ##চিকিৎসাঃ এর কোন সঠিক চিকিৎসা নেই তাই রক্তে যে ক্লোটিং ফ্যাক্টর অনুপস্থিত সেটি ইনজেকশনের মাধ্যমে পুরণ করতে হয় । বাংলাদেশের সব জায়গাতে এ ফ্যাক্টর পাওয়া যায়না এবং একটি ফ্যাক্টরের মূল্য কোন গরীব পরিবারের পক্ষে যোগার করা সম্ভব নয় তাই এর পরিবর্তে ডাক্তাররা ব্লাড,ও প্লাজমা দিয়ে ফ্যাক্টরের ঘাড়তি পূরণ করেন । কিন্তু দুভাগ্য সঠিক চিকিৎসার অভাবে বেশিরভাগ রোগিই পায়ের জয়েন্টে রক্তখরণের জন্য পঙ্গুত্ববরণ করেন । এবং দুভাগ্য সিংহভাগ রোগিই অকাল মৃত্যর কোলে ঢোলে পড়েন । তবে সঠিক চিকিৎসা পেলে এ রোগ নিয়ন্ত্রন সম্ভব । ##হিমোফিলিয়া সোসাইটি অব বাংলাদেশ সবক্ষনিক হিমোফিলিকদের পাশে আছেন এবং বিনামুল্য ফ্যাক্টর বিতরণ করে থাকে । যা ১৯৯৬ সালে ওয়াল্ড ফেডারেশন অব হিমোফিলিয়া WFH এর সদস্য পদ লাভ করে । @আমি মোঃ শাহিন আলম সদস্য ৭১৭, এবং একজন হিমোফিলিক , হিমোফিলিয়া সোসাইটি অব বাংলাদেশ ।
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (2,045 পয়েন্ট)
গুরত্বপুর্ণ পোষ্ট, ধন্যবাদ আপনাকে।।।
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (3,875 পয়েন্ট)
স্থানান্তরিত করেছেন
এই রোগ টা কি ভাবে হয় কেন হয় জানাবেন এবং এর প্রতিকার কী!???
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (543 পয়েন্ট)
জেনেটিকভাবে রোগটা ছড়ায় । মোট হিমোফিলিকদের ৩ ভাগের ২ ভাগই জেনেটিক ভাবে আক্রান্ত বাকী ১ ভাগ নতুনভাবে আক্রান্ত হচ্ছে । মেয়েরা এই রোগের বাহক এবং বাহকের ছেলেরা এই রোগে আক্রান্ত হয় । মেয়েদের আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা একেবারেই কম সারা বাংলাদেশে ৩ জন মেয়ে চিহ্নিত হয়েছে ।
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (543 পয়েন্ট)
বাহকদের কোন সমস্য হয়না এমনকি বাহক মেয়ে নিজেই জানেনা যে সে হিমোফিলিয়ার বাহক ! পৃথিবীর প্রথম চিহ্নিত বাহক রানী ভিক্টোরিয়া তার ২ মেয়ে এলিস ও বিয়াট্রিশ ও হিমোফিলিয়ার বাহক এবং তাদের বৈবাহিক সুত্রে রোগটি অন্যন্য দেশে ছড়িয়ে পড়ে । রানীর ছেলে হিমোফিলিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মারা যায় ছেলে বেলাতেই ।
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (543 পয়েন্ট)
পরিবারে খালাতো, মামাতো ভাইয়ের কারো এ রোগ থাকলে আপনারও হতে পারে । বাংলাদেশে বাহকদের কোন পরীক্ষার ব্যাবস্থা নেই তবে ভারতে বাহক কিনা তা পরীক্ষা করা হয় ।
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (2,187 পয়েন্ট)
সম্পাদিত করেছেন

হিমোফিলিয়া ( Haemophilia, অথবা hemophiliaহচ্ছে একটি বংশানুক্রমিক জিনগত রোগ এই রোগে রক্ত তঞ্চনে সমস্যা হয় তাই একবার রক্তনালী কেটে গেলে আর রক্তপাত বন্ধ হয় না শুধু পুরুষলোক এই রোগে আক্রান্ত হয় এবং স্ত্রীগণ এই রোগের বাহককারণ স্ত্রীদের দুটি এক্স ক্রোমোজোম থাকে আর পুরুষদের একটি এক্স  অপরটি ওয়াই ক্রোমোজোম 

রাণী ভিক্টোরিয়া হিমোফিলিয়ার বাহক ছিলেন এবং তাঁর বংশে অনেকেই এই রোগে আক্রান্ত হয়তাই হিমফিলিয়াকে রাজকীয় রোগ বলা হয়ে থাকে

 

মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (543 পয়েন্ট)
@সয়োদ মোস্তাক উদ্দিন@ আপনার লেখা আমার ব্রাউজারে দেখা যাচ্ছে না । লেখা কেটে গেছে ।
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (2,187 পয়েন্ট)
ধন্যবাদ ভাইয়া 
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (543 পয়েন্ট)
@রাখি@ আমার এই সাইটের প্রোফাইলে দেখুন আমার ফেবু পেজ আছে ঔ পেজে অনেক তথ্য আছে । আপনি ওখানে বিস্তারিত পাবেন । আমি কমেন্টে লিংক দিছিলাম কিন্তু কম্মেন্ট এপ্রুভ হয়নি তাই মন্ত্যবতে জানালাম ।
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (543 পয়েন্ট)
আমার একটি ফেবু পেজ আছে যাতে এব্যাপারে গত বছরের দিবসে কিছু তথ্য লিখেছিলাম এ পেজে আরও বিস্তারিত তথ্য পাবেন । https://mobile.facebook.com/hemophiliashahinbd/about?Refid=17 অথবা আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করতে পারেন http://www.hemophiliabd.com
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (1,825 পয়েন্ট)
সচেতনতা ও সতর্কতা থাকলে এ রোগ সাথে নিয়েও স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারবেন। তাই প্লিজ শাহীন ভাই আপনি কখনো নিজের জীবন নিয়ে হতাশ হবেন না।

আমার একটা প্রশ্ন যে বাহকদের দ্বারা না ছড়ানোর কি কোনো উপায় নেই?
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (17,702 পয়েন্ট)

@Mehjabin, জেনেটিক্যাল রোগগুলো খুবই অদ্ভুত হয়। প্রায় সকল বংশগত রোগ ছেলেদের ক্ষেত্রেই প্রকট।

বাহকদের দ্বারা রোগ পাস হবেই, এক প্রজন্মে না হলে অন্য প্রজন্মে।

  • কোনো হিমোফিলিয়া আক্রান্ত পুরুষের ছেলে সন্তান হিমোফিলিয়ায় আক্রান্ত হবেনা,
  • তবে তার সকল মেয়ে সন্তান এর বাহক হবে, (বাহক ≠ আক্রান্ত)
  • কন্যাসন্তানদের ছেলে সন্তান হলে ৫০% চান্স রয়েছে যে সে হিমোফিলিয়া আক্রান্ত হবে।
  • কন্যাসন্তানদের মেয়ে সন্তান হলে ৫০% চান্স থাকে যে সে হিমোফিলিয়া জীনের বাহক হবে।


মাতা হিমোফিলিয়ার বাহক এবং পিতা হিমোফিলিয়ায় আক্রান্ত হলেই কেবল ৫০% চান্স থাকে যে তাদের কন্যাসন্তান হিমোফিলিয়া আক্রান্ত হবে।

মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (543 পয়েন্ট)
দুভাগ্য আমার পরিবারের । । আমরা দু ভাই দুজনেই হিমোফিলিক ।। মেডিক্যাল সাইন্স মতে, একটি বাহক দম্পত্তির পর পর তিনটি ছেলে সন্তান হিমোফিলিক হবার সম্ভাবনা সবার্ধিক । ৩য় সন্তানের পরের সন্তানগুলোর জেনেটিক ডিজওডার হবার সম্ভাবনা কমে আসে ..... এবং ৫ম সন্তানের পরবর্তী সন্তানদের সম্ভাবনা একেবারেই কম ।

আপনি কি এই প্রশ্নের উত্তর দিতে পারবেন? এই প্রশ্নটির উত্তর দিতে দয়া করে প্রবেশ কিংবা নিবন্ধন করুন ।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
28 ফেব্রুয়ারি 2014 "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন মোহাম্মাদ শুভ (8,477 পয়েন্ট)
1 উত্তর
07 ডিসেম্বর 2017 "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন ortha (9 পয়েন্ট)

223,440 টি প্রশ্ন

284,996 টি উত্তর

77,003 টি মন্তব্য

110,877 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...