132 জন দেখেছেন
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (1 পয়েন্ট )
সম্পাদিত করেছেন
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (53 পয়েন্ট)
গোসল তখনি ফরজ হবে যখন আপনার বীর্যপাত হবে,সেটা যেভাবেই হোক না কেন।এটা হতে পারে স্বপদোষের সময়,যৌন মিলনের সময়। রোযার সময় যৌন মিলন করার ফলে যদি ফরজ গোসল করতে হয় তবে আপনার রোযা ভেঙগে যাবে।
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (1 পয়েন্ট )
পূনঃপ্রদর্শিত করেছেন
★★★ একজন ইমামের পিছনে তিনজন লোক নামাযের জন্য দাঁড়ালো ইমাম তাকবীর দিতে বলে কিনতু পিছনে দাঁড়ানো তিনজনের মধ্যে কেউই তাকবীর দিতে পারেনা। এমন অবস্থায় ইমাম কি করবে। √√√

2 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (1,748 পয়েন্ট)
রোজা অবস্থায় ইচ্ছাকৃতভাবে ফরজ গোসলের কারণ হলে রোজা ভঙ্গ হবে কিন্তু যদি ইচ্ছাকৃতভাবে ফরজ গোসলের কারণ না হয় তাহলে রোজা ভঙ্গ হবে না। ধরুন রোজা রাখা অবস্থায় আপনার সপ্নদোষ হলো এই জন্য আপনার রোজা ভঙ্গ হবে না। তবে যদি ইচ্ছাকৃতভাবে বীর্যপাত, স্ত্রী সহবাস করেন তাহলে আপনার রোজা ভঙ্গ হবে।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (3,760 পয়েন্ট)

গোসল ফর‍য বিভিন্ন কারণে হতে পারে। আর সে জন্য, ★কোনো কোনো কারণে রোযা অবস্থায় গোসল ফরয হলে, রোযা ভেঙ্গে যায়। কারণগুলো নিম্নরুপ:-

    সহবাস করা, হস্থমৈথুন করা,          মহিলার হায়েয (মাসিক) বা নিফাস শুরু হওয়া। →উল্লিখিত কারণ সমূহে গোসল ফরয হওয়ার ফলে রোযা ভেঙ্গে যায়। ★আর, দিনের বেলায় স্বপ্নদোষ হয়ে গোসল ফরয হলে, রোযা ভঙ্গ হয় না।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

270,909 টি প্রশ্ন

354,029 টি উত্তর

105,036 টি মন্তব্য

143,722 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...