43 জন দেখেছেন
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (12 পয়েন্ট)

অযু করার পর কেঊ যদি কোনো কারনে ঊলঙ্গ হয় তাহলে কি ওযু ভেঙে যাবে ?

মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (1,820 পয়েন্ট)
(না আপনার ওজু ভঙ্গ হবেনা,,) @জেনে নিন,কি কারনে ওজু ভঙ্গ হবে.... ১। পেশাব পায়খানার রাস্তা দিয়ে পেশাব, পায়খানা, বীর্য, পাথর, বায়ু, পুঁজ, ও কৃমি বের হলে, ২। শরীরের যে কোন জায়গা থেকে পুজ রক্ত ও রস গড়িয়ে গেলে। ৩। টেক দিয়ে ঘুমাইলে, পরে টেক সরালে যদি পড়ে যায়। ৪। জ্ঞান হারা হলে। ৫। পাগল হলে। ৬। নেশার জিনিষ পান করে মাতাল হলে। ৭। নামাজের মধ্যে উচ্চশব্দে হাসলে। ৮। কামভাবে স্বামী স্ত্রী একে অপরের লজ্জাস্থান স্পর্শ করলে। ৯। মুখ ভরে বমি করলে অজু নষ্ট হয়ে যাবে। এ অবস্থায় পানি দিয়ে পুনরায় অজু করবে। আর পানি না পেলে তায়াম্মুম করবে।

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (44 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর
দেথুন েএগুলার মাঝে আপনার প্রশ্নের উত্তর পান কি না....
ওজু ভঙ্গের কারণসমূহ

যে সব কারণে ওজু ভঙ্গ হয় বা নষ্ট হয় তা হলো-


ক. পেশাব-পায়খানার রাস্তা দিয়ে কোনো কিছু বের হওয়া।

খ. দেহের কোনো অংশ থেকে রক্ত, পুঁজ বের হয়ে যদি পবিত্র হওয়ার বিধান প্রযোজ্য হয়। অর্থাৎ গড়িয়ে পড়ে।

গ. মুখ ভর্তি বমি অর্থাৎ বেশি পরিমাণে বমি হলে।

ঘ. নাক দিয়ে রক্ত প্রবাহিত হলে।

ঙ. ঘুমানো- চিৎ হয়ে; কাত হয়ে; হেলান দিয়ে কিংবা কোনো কিছুর সঙ্গে ঠেস দিয়ে ঘুমালে যা সরিয়ে ফেললে ঘুমন্ত ব্যক্তি পড়ে যাবে।

চ. অজ্ঞান হওয়ার পর; এমন অজ্ঞান যাতে বোধ শক্তি লোপ পায়।

ছ. অপ্রকৃতিস্থতা। যা ঘুম বা নিদ্রার চেয়েও প্রবল।

জ. রুকু-সাজদা বিশিষ্ট নামাজে অট্ট হাসি; তবে জানাজা নামাজে, তিলাওয়াতে সিজদায় এবং নামাজের বাইরে হাসলে অযু নষ্ট হবে না।

ঝ. পিছনের রাস্তা দিয়ে অর্থাৎ পায়খানার রাস্তা দিয়ে কীট বের হলে পবিত্রতা অর্জন তথা অযু করতে হবে।

ঞ. ফোঁড়া বা ফোস্কার চামড়া তুলে ফেলার কারণে যদি পানি বা পুঁজ বের হয়ে  ফোঁড়া বা ফোস্কার মুখ অতিক্রম করে তাহলে পবিত্র নষ্ট হবে।

ট. পুরুষ ও মহিলার গুপ্তাঙ্গ কোনো অন্তরায় ব্যতিত একত্রিত হলে; বীর্যপাত হোক আর না হোক ওজু নষ্ট হবে।

ওজুর মাকরূহসমূহ

ক. প্রয়োজনের বেশি পানি ব্যয় করা।

খ. প্রয়োজনের চেয়ে কম পানি ব্যয় করা।

গ. মুখমণ্ডলে এমনভাবে পানি নিক্ষেপ করা যে, পানির ছিঁটা অন্যত্র পড়ে।

ঘ. ওজুর সময় অপ্রয়োজনীয় কথা-বার্তা বলা।

ঙ. ওজুর সময় বিনা ওজরে অন্যের সাহায্য নেয়া।

চ. নতুন পানি নিয়ে তিনবার মোথা মাসেহ করা।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
01 জানুয়ারি 2016 "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Mursadul Alam Mehrab (-9 পয়েন্ট)
1 উত্তর
12 জানুয়ারি 2016 "পবিত্রতা ও সালাত" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন faysal ahmad (9 পয়েন্ট)

234,603 টি প্রশ্ন

302,250 টি উত্তর

85,134 টি মন্তব্য

118,375 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...