বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
117 জন দেখেছেন
"নবী-রাসূল" বিভাগে করেছেন (435 পয়েন্ট)
যারা আসমানি কিতাব পেয়েছে তারা তো রাসুল।আর আসমানি কিতাব 104খানা ।এবং রাসুল 313 জন।প্রশ্ন হলো আসমানি কিতাব এর সংখ্যার ভিত্তিতে রাসুল 313 জন হলো কিভাবে?

3 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (342 পয়েন্ট)
সব রাসুল কে কিতাব দেওয়া হয় নি!
করেছেন (3,035 পয়েন্ট)

"যারা আসমানি কিতাব পেয়েছে তারা তো রাসুল"

কথাটা কি বুঝেছেন....?

0 টি পছন্দ
করেছেন (1,048 পয়েন্ট)
সকল রাসূলকেই আসমানি কিতাব দেওয়া হয়নি।বেশিরভাগ রাসূলগণকেই ছোট ছোট বাণী-আদেশ-উপদেশ প্রদান করা হয়েছে।যেহেতু তাদের উপর আসমানী বাণী নাজিল হয়েছে সেহেতু তারাও রাসূল।
0 টি পছন্দ
করেছেন (4,845 পয়েন্ট)

১। যাঁরা আসমানী কিতাব পেয়েছেন একমাত্র তাঁরাই রসূল ব্যাপারটি এরকম নয়। রাসূল তাঁকেই বলা হয় যিনি দীন প্রচারের দায়িত্বপ্রাপ্ত হয়েছেন। তিনি কিতাব পেতেও পারেন নাও পারেন।

২। আর আসমানী কিতাব ১০৪টি এ কথার কোনো ভিত্তি নেই। এ সম্বন্ধে হাদীস শিরোনামে যে বিবরণটি পাওয়া যায় সেটাকে হাদীসবেত্তাগণ জাল বর্ণনা বলে অভিহিত করেছেন। বর্ণনাটির আরবী পাঠ নিম্নরূপ :

أما كون جملة ما أنزله الله من الكتب السماوية مائة كتاب وأربعة كتب فقد ورد في حديث رواه ابن حبان في صحيحه، وكذا رواه ابن مردويه وعبد بن حميد وابن عساكر كما ذكر ذلك السيوطي في الدر المنثور، والقرطبي في التفسير كلهم عن أبي ذر الغفاري رضي الله عنه أنه سأل النبي صلى الله عليه وسلم كم كتاباً أنزل الله؟ قال: مائة كتاب، وأربعة كتب، أنزل على شيث خمسون صحيفة، وأنزل على أخنوخ (إدريس) ثلاثون صحيفة، وأنزل على إبراهيم عشر صحائف، وأنزل على موسى قبل التوراة عشر صحائف، وأنزل التوراة والإنجيل والزبور والفرقان، في حديث طويل جداً، وهو حديث باطل بل موضوع، فإن في سنده كذاباً، قال الهيثمي في موارد الظمآن، بعد إيراده للحديث: في سنده إبراهيم بن هشام بن يحيى الغساني ، قال أبو حاتم وغيره: كذاب. فالحديث لا تقوم به حجة والحمد لله على توفيقه وإحسانه.
والله أعلم.

৩। রাসূলদের সংখ্যার ব্যাপারে বিভিন্ন বর্ণনা পাওয়া যায়। ৩১০ এর কিছু বেশি, ৩১৫ , ৩১৩। সারকথা নবী রাসূলদের সংখ্যার ব্যাপারে বিভিন্ন বর্ণনা পাওয়া যায়। এগুলোর শুদ্ধতা অশুদ্ধতা নিয়েও নানা রকম মন্তব্য পাওয়া যায়। কেউ এগুলোকে জাল বলেছেন, কেউ দুর্বল বলেছেন, কেউ কেউ আবার হাসান বলেছেন।

সারকথা হলো ভাষানী সাহেবের প্রশ্নটিই শুদ্ধ হয় নি। কারণ কিতাবের সংখ্যা ও রাসূলের সংখ্যা অকাট্য নয় এবং সুনিশ্চিত প্রমাণিতও নয়।


টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি উত্তর
14 এপ্রিল 2018 "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন mdzahir (9 পয়েন্ট)
2 টি উত্তর
24 জুন 2016 "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন tanvirmilon (1 পয়েন্ট )
1 উত্তর
21 অগাস্ট 2014 "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন ফারদিল হাসান (9 পয়েন্ট)

300,385 টি প্রশ্ন

388,258 টি উত্তর

117,334 টি মন্তব্য

165,784 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...