207 জন দেখেছেন
"সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল
সম্পাদিত করেছেন

একজন আদর্শ এবং সুন্দর মনের সঙ্গিনী(স্ত্রী) পেতে হলে 

তার কোন কোন দিক গুলো সম্পর্কে জানা উচিত এবং 

কিভাবে বুঝবো সে সুন্দর মনের অধিকারিণী হবে কিনা ।

আর প্রতিটি মানুষের কার সাথে বিয়ে হবে,

 পূর্ব থেকেই মহান আল্লাহ জুটি হিসেবে লিখে

রেখেছেন কি,  এটি ??

মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (13,375 পয়েন্ট)
যে যে গুনাবলি দেখে বিয়ে করবেন

  • ধন সম্পদ
  • চরিত্র
  • বংশ মর্যাদা
  • ধর্ম
  • সৌন্দার্য

1 উত্তর

1 টি পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (374 পয়েন্ট)

পাত্রী নির্বাচনে তার রূপ নয় গুণ লক্ষ করা উচিত| সে ধার্মিক কি না কারণ ধার্মিক মেয়ে সভ্য,নম্র-ভদ্র,লজ্জাশীল হয় এবং স্বামীকে তার প্রাপ্য মর্যাদা দেয়| স্বামীর সংসারকে তার নিজের সংসার মনে করে সুন্দর ভাবে গুছিয়ে তোলে| তাই স্বাভাবিকভাবেই তার চরিত্র,স্বভাব ভালো হয় এবং সে সংসারকে শান্তিতে ভরপুর করে তোলে|

আল্লাহ ভবিষ্যতের খবর জানেন তাই ভবিষ্যতে কার সঙ্গে বিবাহ হবে তা তিনি জন্মের অনেক আগে থেকেই লিখে রেখেছেন

মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (4,200 পয়েন্ট)
তবে খোঁজার প্রয়োজন কি??
আল্লাহ তো পূর্বেই নির্ধারণ করে রেখেছেন । 
সুতরাং খুঁজলেও যাকে পাবো না খুঁজলেও তাকেই । 
এমন নয়কি??
আর কয়েক দিন বা দুই এক সপ্তাহের মধ্যে কিভাবে একজন নারীকে
চেনা সম্ভব যে সে ধার্মিক কিনা ?
আল্লাহ পাক যদি জোড়ায় জোড়ায় সৃষ্টিই করে থাকবেন তবে
রাসূলুল্লাহ (সা:) কেন বলেছেন তোমরা তোমাদের পছন্দ
অনুযায়ী বিয়ে করো একটি, দুটি, তিনটি এবং চারটি ।
যদি খরচ বহনে বা তাদের হক আদায়ের সামর্থ্য না থাকে
তবে একটিই উত্তম ।
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (374 পয়েন্ট)

দেখুন আল্লাহ যা লিখে রেখেছেন তাই  ঘটছে তা কিন্তু নয় আপনার জীবনে যা ঘটবে তাই লিখে রেখেছেন  | তাই স্বাভাবিকভাবেই আপনি তাড়াহুড়ো করে রূপ দেখে যেকোনো মেয়েকে বিয়ে করেন এবং তার স্বভাব যদি খারাপ হয় তাহলে আপনার জীবনে দুঃখের অন্ত থাকবেনা | ভাগ্য আর কিছুই নয় ভাগ্য হল কর্মের ফল | তাই আপনি যদি সঠিক স্ত্রী নির্বাচন না করে বিয়ের পরে অশান্তিতে ভোগেন তখন কিন্তু বলতে পারবেন না যে ভাগ্যে যা লেখা ছিল তাই হয়েছে তাহলে তা হবে কবিরা গুনাহ  কারণ আল্লাহ রব্বুল আলামীন বলেছেন আমি সেই জাতির ভাগ্য ততক্ষণ পর্যন্ত পরির্বতন করিনা যতক্ষণ না সে নিজে পরিবর্তন হয় তাই আপ্রাণ চেষ্টা ও আল্লাহর কাছে দোয়া করে চাওয়ার মাধ্যমে ভাগ্য পরিবর্তন হয় |

মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (374 পয়েন্ট)

আর তারাহুড়ো করে বিয়ে করা উচিত নয় | যদি আপনি তাড়াতাড়ি বিয়ে করতে চান তাহলে আপনাকে খোঁজখবর বাড়াতে হবে | সন্ধান পাওয়ার পর যখন দেখাশোনা হবে তখন আপনি সরাসরি ধর্ম সম্পর্কে জিঙ্গাসাবাদ করে নেবেন এবং আশেপাশে খবর নেবেন তার সম্পর্কে |

ছেলেদের থেকে মেয়েদের ভ্রুণ বেশী শক্তিশালী মাতৃগর্ভে বিভিন্ন অবস্থার সঙ্গে লড়াই করে টিকে থাকতে পারে | তাই পুত্রসন্তানের থেকে কন্যাসন্তান বেশী জন্ম নেয় এবং তখনকার দিনে বিভিন্ন যুদ্ধে অনেক পুরুষ মারা যেত তাই তাদের স্ত্রীদের এবং অন্যান্য মেয়েদের সাধারণের ভোগ হতে বাঁচানোর জন্য নবী(সঃ) একথা বলেছিলেন এবং নবী(সঃ)-এর কথা মানেই পক্ষান্তরে সেটা আল্লাহরই কথা |

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি উত্তর
24 জুন 2015 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন তাসনিম (10 পয়েন্ট)

270,096 টি প্রশ্ন

352,987 টি উত্তর

104,580 টি মন্তব্য

143,133 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...