137 জন দেখেছেন
"সাধারণ" বিভাগে করেছেন (7,682 পয়েন্ট)

ফেসবুকে গেলে কখন যে সময় পার হয়ে যায় আমি বুঝতে

পারি না।

যার ফলে আমার অনেক সময় নষ্ট হয়

এমন কী পড়া শোনাতেও ক্ষতি হয়।

ফেসবুকে গেলে আর ফেসবুক থেকে বাইরে বার হতে

ইচ্ছে করে না।

ইচ্ছে করে আরো কিছু ক্ষন ব্যাবহার  করি

আমি ফেসবুক ব্যহার কমাতে চাই

এর জন্য আমাকে কী করা লাগবে.?????? 

বন্ধ

4 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (4,254 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর

যখন একটি মনুষ বুঝতে পারে যে তার কোন কাজের 

মাধ্যমে নিজের ক্ষতি হচ্ছে  এবং সে সেই কাজ থেকে 

বের হয়ে আসতে চায় । তাহলে সে খুব সহজেই সেই

 খারাপ অভ্যাস থেকে বের হয়ে আসতে পারবে । 

কারণ তার মধ্যে বোধ এবং ইচ্ছে শক্তি বিদ্যমান আছে ।

আপনি নিজেই উপলব্ধি করতে পারতেছেন যে 

ফেইসবুকে থাকলে অতিরিক্ত সময় নষ্ট হয় এবং

 লেখাপড়ার ক্ষতি হয় । 

সে ক্ষেত্রে আপনি এটা থেকে বের হয়ে আসার জন্য মনের 

ইচ্ছে শক্তিটাকে সম্পূর্ণ রূপে প্রয়োগ করুন । মনে মনে 

প্রতিজ্ঞা করুন যে আমি লেখাপড়ার টাইমে ফেইসবুক 

ব্যবহার করবোনা । 

আপনার যদি ভুলে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে তাহলে আপনি

ফেইসবুক ব্যবহারের ক্ষতি করে দিক গুলো লিখে 

আপনার আশেপাশেই রেখে দিন যাতে ভুলের গেলেও 

চোখে পড়ে ।

আর পড়তে বসার আগে মোবাইলটা কে হাতের নাগালের

 বাহিরে রাখুন ।

মনে মনে প্রতিজ্ঞা করুন যে এই সময়ের মধ্যে পড়া শেষ

 না করে মোবাইল হাতে নেবনা ।

যদি বিশেষ কোন কল আসে তখন আপনি শুধু কথা

 বলে আবার হাতের নাগালে রেখে আসুন ।

বিশেষ ধরকার না থাকলে মোবাইল বন্ধ রাখতে পারেন ।

আর সেদিন দেখলাম যে আপনি রুটিন করে লেখাপড়া 

শুরু করতেছেন । যদি এমনটিই হয় তাহলে রুটিন এ 

একটা নির্দিষ্ট সময় রাখুন ফেসবুকের জন্য এবং সেই 

সময়ের বাইরে  অতিরিক্ত ব্যবহার করবেন না ।

মনে রাখবেন আপনি ফেইসবুক ব্যবহার না করলে

 একটুও কারো যায় আসবে না । বরং আপনি নিজে 

ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পাবেন ।

আর অবসর সময় পেলে কেবল তখনই ব্যবহার করুন । 

একটা জিনিষ মনে রাখেবন কোন খারাপ অভ্যাস কে 

ত্যাগ করতে নিজের ব্যক্তিগত ইচ্ছে শক্তি সব চাইতে বড় 

ভূমিকা পালন করে ।


উজ্জল আহমেদ রবিন প্রকৃতি প্রেমী একজন সাধারণ মানুষ। পছন্দ করেন সাধ্যানুযায়ী অপরকে সাহায্য করতে, নতুন কিছু জানতে ও জানাতে। আলোকিত মানুষ হওয়ার নিরন্তর প্রচেষ্টায় জ্ঞান অন্বেষণে যুক্ত আছেন বিস্ময়ের সাথে। সর্বোপরি একজন ভালো মানুষ হওয়াই তার লক্ষ্য। তিনি বিস্ময়ের সাথে আছেন সমন্বয়ক হিসাবে।
করেছেন (7,682 পয়েন্ট)

ধন্যবাদ আপনাকে

সুন্দর ভাবে বোঝানোর জন্য


করেছেন (4,254 পয়েন্ট)
ধন্যবাদ তখনি দিন যখন নিজে এই অভ্যাস থেকে বের হয়ে 
আসতে পারবেন । 
আপনার জন্য শুভকামনা। 
আশা করি ইনশা আল্লাহ আপনি পারবেন । 
করেছেন (7,682 পয়েন্ট)

ইনশাআল্লাহ আমি পারবো

আমার জন্য দোয়া করবেন

আমি যেনো আমার কাখিত আশা পূরন করতে সক্ষম 

হয়।

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (5,006 পয়েন্ট)
আমার মনে হয় আপনি যদি আপনার একাউন্টটা কিছুদিনের দিনের জন্য ডিয়েক্টিভ করে রাখেন এতে কিছুটা হলেও সমাধান মিলবে।কেননা এতে আপনি চাইলেও ফেসবুকে যেতে পারবেন না।আর তাছাড়া যখন তখন ফেসবুকে লগিন করা তো খারাপ।এটা ব্যবহার করা উচিৎ দিনের শেষে যখন কোনো কাজ থাকেনা বা পড়াশোনার চাপ থাকেনা।যখন একদম ফ্রি থাকবেন তখন ফেসবুকে যাওয়ার অভ্যাস করুন।আশা করি এতে সমাধান মিলবে।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (7,770 পয়েন্ট)
আপনি এটা থেকে সহজে মুক্তো হতে পারবেন না,
আপনি নিয়মিত ৫ ওয়াক্ত নামাজ পড়ুন।এবং যে সময় টাই বেশি ফেসবুকে আক্টিব থাকেন সেই সময়ে যে কোন কাজ করুন।

রবিন আহমেদ দেশের বাহিরে থেকেও দেশের প্রতি অভাবনীয় টানে দেশের মানুষকে উপকার করার জন্য বেছে নিয়েছেন বিস্ময় অ্যানসারসকে। নতুন কিছু জানতে এবং অন্যকে জানাতে সুদূর ওমানে থেকেও বাংলার মানুষের প্রতি ভালোবাসার টানে তিনি বিস্ময়ের সাথে কাজ করে যাচ্ছেন এবং তিনি ওমানে ডলার/ভয়েস ব্যবসার সাথে জড়িত আছেন। বিস্ময়ের সঙ্গে রয়েছেন একজন সমন্বয়ক হিসেবে।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (1,895 পয়েন্ট)

আপনার ব্যবহৃত মোবাইলটি আপনার বাবা মা কে দিয়ে দেন । একমাস মোবাইল নারবেন না যার দ্বারা ফেসবুক চালানো যায়। দরকার পরলে আইডি অফ করে দেন একমাস দূরে থাকলে এমনিতেই অভ্যাস হয়ে যাবে ।

আর সর্বোপরি মনে দৃঢ় প্রতিজ্ঞা করুন নিশ্চয়ই পারবেন । মানুষ পারে না এমন কাজ পৃথিবীতে নেই শুধু চাই অদম্য ইচ্ছে শক্তি ।

টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি উত্তর
13 সেপ্টেম্বর 2018 "রিবাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল

276,240 টি প্রশ্ন

360,109 টি উত্তর

107,577 টি মন্তব্য

147,778 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...