5,599 জন দেখেছেন
"যৌন" বিভাগে করেছেন (502 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (5,928 পয়েন্ট)
স্ত্রীর স্তনের দুধ স্বামীর জন্য জায়েজ নেই। কুরআন হাদিস দ্বারা বোঝা যায়, কেবল মা কিংবা দুধমা'র দুধ পান করা যায়।; তাও দুধ পান করার বয়সের মধ্যে। তাই বিয়ে করার পর স্ত্রীর দুধ পান করা স্বামীর জন্য জায়েজ নেই। তবে স্ত্রীর স্তন মর্দন করা, (দুধ না আসে পরিমাণ) চোষা ইত্যাদি জায়েজ আছে। আল্লাহ বলেন, { نِسَاؤُكُمْ حَرْثٌ لَكُمْ فَأْتُوا حَرْثَكُمْ أَنَّى شِئْتُمْ} [البقرة:٢٢٣ ] অথাৎ : তোমাদের স্ত্রীরা হলো তোমাদের জন্য শস্যক্ষেত্র। তোমরা যেভাবে ইচ্ছা তাদরেকে ব্যবহার কর। (সূরা বাকারা-২২৩) স্ত্রীর স্তন চোষার সময় যদি স্বামীর মুখে দুধ চলে আসে, তাহলে তা ফেলে দিতে হবে। যেহেতু স্বামীর জন্য স্ত্রীর দুধ পান করা জায়েজ নেই। স্ত্রীর মাসিক চলাকালীন স্বামীর জন্য স্ত্রী-সম্ভোগ জায়েজ নেই। আল্লাহ বলেন, فلا تقربوهن حتى يطهرن এছাড়া স্ত্রীর পায়ুপথ স্বামীর জন্য কোনো অবস্থাতেই জায়েজ নেই। পায়ুপথে সঙ্গম করা হারাম ও অভিশপ্তদের কাজ। তাই স্ত্রী ঋতুস্রাবগ্রস্ত অবস্থায় না থাকলে স্তনের দুধ ও পায়ুপথ ছাড়া তার প্রায় পুরো শরীরই স্বামীর জন্য বৈধ।
টি উত্তর
২১ জানুয়ারি ২০১৯ "ক্যারিয়ার" বিভাগে উত্তর দিয়েছেন Ariful (৬৩৭৩ পয়েন্ট )
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি উত্তর
2 টি উত্তর

282,645 টি প্রশ্ন

366,900 টি উত্তর

110,447 টি মন্তব্য

152,381 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...