বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
546 জন দেখেছেন
"তথ্য-প্রযুক্তি" বিভাগে করেছেন (6 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (84 পয়েন্ট)

কোর: কম্পিউটারে আমরা যা কিছু করি; যেমন: লেখা, ভিডিও দেখা, ইন্টারনেট ব্যবহার করা ইত্যাদি সবই হচ্ছে কিছু সংখ্যার যোগফল বা বিয়োগফল আমরা যখন কোন কাজ করার জন্য কম্পিউটারে কোন Command দেই- প্রসেসরের তখন তা দুটি সংখ্যা হিসেবে (, ) হিসেবে গ্রহণ করে, তার যোগ-বিয়োগ করে আমাদের কমান্ডকৃত ফলাফল প্রদান করে প্রসেসরের যে অংশ এই গণনার কাজটি করে, সেটিকেই কোর বলে

মাল্টি-কোর: মাল্টি-কোর হলো দুটি বা তার বেশি প্রসেসিং কোর ধারণ করে এমন CPU কে বোঝায় একাধিক কোর ব্যবহার করে, সিপিইউ Clock Speed বৃদ্ধি, উন্নত কর্মক্ষমতা, কম বিদ্যুত ব্যবহার এবং একাধিক কাজ আরও দক্ষভাবে এবং একযোগে করতে পারে

ডুয়েল কোর: ডুয়েল কোর প্রসেসর হলো যে সিপিইউতে দুটি প্রসেসর থাকে প্রতিটি প্রসেসরের একটি নিজস্ব ক্যাশ এবং কন্ট্রোলার থাকে, যখন কোন হিসাবের করার প্রয়োজন হয় তখন তারা একটি সিঙ্গেল প্রসেসর হিসেবে কাজ করতে সক্ষম দুটি প্রসেসর একত্রে সংযুক্ত করা থাকে তখন তারা যে কোন কাজ একটি সিঙ্গেল প্রসেসরের চেয়ে দ্বিগুন গতিতে সম্পাদন করতে পারে

কোয়াড কোর: যে প্রসেসরে চারটি কোর থাকে সেই প্রসেসর কে কোয়াড কোর প্রসেসর বলে উল্লেখ্য- এই প্রসেসর আগের একটি কোর-এর প্রসেসর থেকে চারগুন বেশি দ্রুত কাজ করবে না, বরং এটি আরও তিনটি কাজ একই সময়ে করতে পারবে

Core i3, i5, i7: কোর i এর সংখ্যা যত বাড়বে প্রসেসরের ক্যাশ মেমোরী,  ট্রানজিস্টার সংখ্যা এবং ক্লক স্পীড বাড়বে সাথে কর্মক্ষমতাও বৃদ্ধি পাবে হাই রেজুলেশনের গেমিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, এনিমেশন ইত্যাদি কাজ দ্রুত এবং নিঁখুত ভাবে করতে- ‘‘কোর- আই’’ সংখ্যা বেশি ওয়ালা কম্পিউটার ব্যবহার করা হয় দামও বেশি

টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

294,067 টি প্রশ্ন

380,680 টি উত্তর

115,095 টি মন্তব্য

161,492 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...