117 জন দেখেছেন
"ইবাদত" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (10 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (31 পয়েন্ট)

প্রথমত,নামায এমন একটি ইবাদত,যা “সকল” নবী-রাসূলগণ এবং তাঁদের উম্মাত পালন করতেন। যেমন কুরআনের সূরা মারইয়ামের ৫৫ নম্বর আয়াতে আল্লাহ ইসমাঈল আলাইহিস সালামের কথা উল্লেখ করেছেন এভাবে,

“তিনি তাঁর পরিবারবর্গকে নামায ও যাকাত আদায়ের নির্দেশ দিতেন এবং তিনি তাঁর পালনকর্তার কাছে পছন্দনীয় ছিলেন।”

এখন প্রশ্ন হল,তাঁদের নামায কী রকম ছিল? ফরয কত রাকআত ছিল,আর নফলই বা কয় রাকআত ছিল?

এর উত্তর হল,ভাই,আমরা জানি না। কুরআন বা হাদীসের মাধ্যমে আমাদের এ বিষয়ে কিছু জানানো হয় নাই।

দ্বিতীয়ত,উম্মাতে মুহাম্মাদীর জন্য ৫ ওয়াক্ত নামায ফরয করা হয় মিরাজের রাতে।

বুখারীর বর্ণনায় এসেছে, রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে নিয়ে আকাশের দিকে যাত্রা করা হয়। সেখানে প্রথম আকাশে আদম (আঃ) ,দ্বিতীয় আকাশে ঈসা(আঃ) ও ইয়াহইয়া(আঃ), তৃতীয় আকাশে ইউসুফ(আঃ), চতুর্থ আকাশে ইদরীস(আঃ), পঞ্চম আকাশে হারূন(আঃ), ষষ্ট আকাশে মূসা(আঃ) এবং সপ্তম আকাশে ইবরাহীম আলাইহিস সালাম এর সাথে সাক্ষাত করেন। সেখানে তিনি বাইতুল মা‘মুর দেখতে পেলেন। সেখানে তাকে দুধ, মধু ও মদ এ তিনপ্রকার পানীয় দেয়া হয়। তিনি দুধ পছন্দ করে নেন। তখন জিবরীল (আঃ)বললেন যে, আপনি স্বাভাবিক বিষয় গ্রহণ করতে সমর্থ হলেন। তারপর তিনি সিদরাতুল মুন্তাহায় নীত হলেন। তারপর এত উচুতে গেলেন যে, কলমের লিখার খসখস আওয়াজ শুনতে পেলেন। এরপর আল্লাহ্ তার ও তার উম্মতের উপর পঞ্চাশ ওয়াক্ত সালাত ফরয করে দিলেন। এরপর মুসা আলাইহিস সালাম এর কাছে আসার পর তিনি রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে সালাতের ব্যাপারে আল্লাহ্‌র কাছে কমানোর আবেদন করার পরামর্শ দিলেন। প্রথমে অর্ধেক, তারপর পাঁচ ওয়াক্ত পর্যন্ত কমানো হয়। অপর বর্ণনায়, প্রতিবারে পাঁচ, বর্ণনান্তরে দশ করে কমানোর পর সবশেষে পাঁচ ওয়াক্ত সালাতে এসে তা শেষ হয়। এরপর তিনি দুনিয়াতে ফেরত আসেন।

আশা করি আপনার উত্তরটা পেয়েছেন।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

2 টি উত্তর
2 টি উত্তর
01 জুন "ইবাদত" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Sohel Sabit (8 পয়েন্ট)
5 টি উত্তর

241,182 টি প্রশ্ন

311,161 টি উত্তর

88,370 টি মন্তব্য

123,110 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...