282 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (4,224 পয়েন্ট)
বিভাগ পূনঃনির্ধারিত করেছেন

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (4,812 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর

মোছা: এর পূর্ণ রূপ হলো, মুসাম্মত। এর অর্থ এমন নারী যার নাম করণ করা হয়েছে। এক সময় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের থেকে স্বাতন্ত্র্য রক্ষার জন্য মুসলিমরা নামের শুরুতে মুহাম্মদ, মুসাম্মাত ব্যবহার করতো। এখন সে স্বাতন্ত্র্য রক্ষার প্রয়োজন নেই। সুতরাং এখন এ শব্দ ব্যবহারেরর কোনো প্রয়োজন নেই। অতএব মুসলিম মেয়েদের নামের শুরুতে এ শব্দের ব্যবহার আবশ্যকীয় হওয়ার প্রশ্নই উঠে না। বরং না ব্যবহার করাই শ্রেয়। তবে কেউ যদি ব্যবহার করে তবে তা গুনাহ বা পাপের কাজ হবে না।

মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (8 পয়েন্ট)

এ সম্পর্কিত কোন হাদিস বা দলিল আপনার জানা আছে কি??

যে কোন ধর্ম সংক্রান্ত উত্তর দলিল ছাড়া দেয়া সমীচীন নয়।

মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (4,224 পয়েন্ট)
ভাই হাফিজ । ‍আপনার উত্তরের জন্য ধন্যবাদ । 
আর হ্যাঁ ‍শামিন ভাইয়ের মন্তব্যটাও যুক্তিসজ্ঞত ।
মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (4,812 পয়েন্ট)

সামিন ভাই! আমি সত্যিই মুগ্ধ হলাম  হাদীসের প্রতি আপনার অতিশয় দুর্বলতা দেখে। হাদীসের ব্যাপারে এমন আগ্রহ- উদ্দীপনা প্রতিটি মুসলিমেরই থাকা চাই। আপনি  উত্তরের বিবরণে হাদীসের প্রসঙ্গ টেনেছেন। প্রথম কথা হলো ভাই! প্রশোত্তরে বিবৃত বিষয় সংক্রা্ন্ত হাদীস বিষয়ে কিছুটা ধারণা লালন করি। আর এটা স্বতসিদ্ধ এবং সর্বসম্মত কথাও বটে, দলীল ব্যতিরেকে ধর্ম সংক্রান্ত বিষয়ে কথা বলা সমীচীন নয়। তবে ভাই! যতটুকু জানি, হাদীসে নাম রাখার কথা এসেছে। তবে নামের শুরু-শেষে কি যুক্ত হবে না হবে এ বিষয়ের কোনো আলোচনা হাদীসে নেই। নামের শুরু শেষে অনেকেই অনেক কিছু যুক্ত করেন। অর্থ ইসলামী নীতি বিধানের সাথে সাংঘর্ষিক না হলে এ ব্যাপারে ইসলামী আইনের কোনো বিধি নিষেধ নেই। এবার আসুন মুসাম্মত শব্দ প্রসঙ্গে। এ শব্দটি মুসলিম নারীদের মূল নামের কোনো অংশ নয়। আশা করি এ ব্যাপারে কোনো হাদীসের রেফারেন্স প্রার্থনা করবেন না। কালের প্রয়োজনে ঐতিহাসিক একটি বিষয়ের প্রক্ষাপটে এ শব্দটির সংযুক্তির সাময়িক প্রয়োজনে সৃষ্টি হয়েছিল। সে প্রয়োজনীয়তা এখন নেই। এ তথ্যের জন্যও হয়তো হাদীসের পাতা উল্টাতে হবে না। যেহেতু শব্দটির আবেদন এখন আর নেই তাই ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তাও এখন নেই। এবং শব্দটা সংযুক্ত না করাটা শ্রেয়। কারণ নামের শুরুতে এ শব্দটির ব্যবহারকে অনেকেই আবশ্যক মনে করে। তাদের ধারণায় এ শব্দের সংযুক্তির সাথে ধর্মীয় কোনো বিষয় জড়িত। ইসলামী শরীয়াতে অনাবশ্যক বিষয়কে আবশ্যক মনে করা বিদাত হিসেবে গণ্য। আশা করি বিষয়টির সাথে ধর্মীয় বিষয়ের সাযুজ্য বা ন্ধন কতটুকু তা পরিস্কার হয়েছে। সামিন ভাই! আবারো ধন্যবাদ, ভাল থাকুন। দুআ চাই, দুআ করি।

মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (4,812 পয়েন্ট)
উজ্জ্বল ভাই! নিচের মন্তব্যটা একটু কষ্ট করে পড়ুন।

সামিন ভাই! আমি সত্যিই মুগ্ধ হলাম  হাদীসের প্রতি আপনার অতিশয় দুর্বলতা দেখে। হাদীসের ব্যাপারে এমন আগ্রহ- উদ্দীপনা প্রতিটি মুসলিমেরই থাকা চাই। আপনি  উত্তরের বিবরণে হাদীসের প্রসঙ্গ টেনেছেন। প্রথম কথা হলো ভাই! প্রশোত্তরে বিবৃত বিষয় সংক্রা্ন্ত হাদীস বিষয়ে কিছুটা ধারণা লালন করি। আর এটা স্বতসিদ্ধ এবং সর্বসম্মত কথাও বটে, দলীল ব্যতিরেকে ধর্ম সংক্রান্ত বিষয়ে কথা বলা সমীচীন নয়। তবে ভাই! যতটুকু জানি, হাদীসে নাম রাখার কথা এসেছে। তবে নামের শুরু-শেষে কি যুক্ত হবে না হবে এ বিষয়ের কোনো আলোচনা হাদীসে নেই। নামের শুরু শেষে অনেকেই অনেক কিছু যুক্ত করেন। অর্থ ইসলামী নীতি বিধানের সাথে সাংঘর্ষিক না হলে এ ব্যাপারে ইসলামী আইনের কোনো বিধি নিষেধ নেই। এবার আসুন মুসাম্মত শব্দ প্রসঙ্গে। এ শব্দটি মুসলিম নারীদের মূল নামের কোনো অংশ নয়। আশা করি এ ব্যাপারে কোনো হাদীসের রেফারেন্স প্রার্থনা করবেন না। কালের প্রয়োজনে ঐতিহাসিক একটি বিষয়ের প্রক্ষাপটে এ শব্দটির সংযুক্তির সাময়িক প্রয়োজনে সৃষ্টি হয়েছিল। সে প্রয়োজনীয়তা এখন নেই। এ তথ্যের জন্যও হয়তো হাদীসের পাতা উল্টাতে হবে না। যেহেতু শব্দটির আবেদন এখন আর নেই তাই ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তাও এখন নেই। এবং শব্দটা সংযুক্ত না করাটা শ্রেয়। কারণ নামের শুরুতে এ শব্দটির ব্যবহারকে অনেকেই আবশ্যক মনে করে। তাদের ধারণায় এ শব্দের সংযুক্তির সাথে ধর্মীয় কোনো বিষয় জড়িত। ইসলামী শরীয়াতে অনাবশ্যক বিষয়কে আবশ্যক মনে করা বিদাত হিসেবে গণ্য। আশা করি বিষয়টির সাথে ধর্মীয় বিষয়ের সাযুজ্য বা ন্ধন কতটুকু তা পরিস্কার হয়েছে। সামিন ভাই! আবারো ধন্যবাদ, ভাল থাকুন। দুআ চাই, দুআ করি।

মন্তব্য করা হয়েছে করেছেন (4,224 পয়েন্ট)
হাফিজ ভাই !
সত্তিই ‍অনেক সুন্দর মন্তব্য করেছেন যেটা আমার মুগ্ধতার কারন হয়েছে । 
আশা করি সব সময় এমন সুন্দর এবং যুক্তি সঙ্গত উত্তর বিস্ময় পরিবার আপনার কাছ থেকে পাবে । 
শুভ কামনা রইল । 
ধন্যবাদ 

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
14 জুন 2016 "পবিত্র কুরআন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন মহিদুল ইসলাম সেখ (7 পয়েন্ট)
5 টি উত্তর
2 টি উত্তর
25 জানুয়ারি 2016 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Rk razaul (-40 পয়েন্ট)

270,961 টি প্রশ্ন

354,093 টি উত্তর

105,059 টি মন্তব্য

143,759 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...