বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
138 জন দেখেছেন
"প্রাণীবিজ্ঞান" বিভাগে করেছেন (4,190 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (4,190 পয়েন্ট)
পা ও হাতের তালুসহ শরীরের আরও কতগুলো স্থান এ রকম স্পর্শকাতর; সামান্য ছোঁয়াতেই ভীষণ সুড়সুড়ি লাগে। এর কারণ হলো, ওই সব স্থানে অনেক বেশি স্নায়ুতন্তুর সমাবেশ রয়েছে। সে কারণে সেখানে খুব হালকা স্পর্শও প্রবলভাবে অনুভূত হয়। কিন্তু প্রশ্ন হলো, কেন শরীরের কয়েকটি নির্দিষ্ট স্থানে স্নায়ুতন্তুর ঘন সন্নিবেশ। বিজ্ঞানীদের মতে, মানব-প্রজাতির বিবর্তনের ধারায় এ সুড়সুড়ি লাগার ব্যাপারটি ভূমিকা রেখেছে। অবাক হতে হয় এই ভেবে যে, বাহুমূল স্পর্শকাতর হলে একটি প্রজাতি কি তার বিবর্তনে বিরাট উপকার পেতে পারে? বিশেষজ্ঞ ব্যক্তিরা বলেন, সেটা হতে পারে। বগলের অবস্থান এমন যে সেখানে কোনো খোঁচা লাগলে তার পরিণামে পুরো বাহুর স্নায়ু ও শিরাতন্ত্র ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে, এমনকি হাত অবশ হয়ে যেতে পারে। সে জন্যই বাহুমূলে সামান্য স্পর্শানুভূতি সতর্কসংকেত হিসেবে কাজ করে। পা ও হাতের তালুর ব্যাপারও ওই রকমই। আদিম যুগে খালি পায়ে মানুষ চলাফেরা করত। সে সময় সুরক্ষার জন্য পায়ের তালুর চামড়া পুরু ও শক্ত হয়েছে। কথাটা ঘুরিয়ে বলা যায়, মানব-প্রজাতির পায়ের নিচের পুরু চামড়ার কারণে বিবর্তনের ধারায় তার টিকে থাকা সহজ হয়েছে।
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
09 অক্টোবর 2018 "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন রঞ্জন কুমার (2,382 পয়েন্ট)
1 উত্তর
30 ডিসেম্বর 2013 "প্রাণীবিজ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন sheikh (9 পয়েন্ট)

299,555 টি প্রশ্ন

387,271 টি উত্তর

117,025 টি মন্তব্য

165,217 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...