বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
551 জন দেখেছেন
"স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে করেছেন (14 পয়েন্ট)
আমি কথা বলতে গেলে আমার কথা ভালভাবে কেউ বুঝেনা তার মানে কথা আটকে আসে যাকে বলে তুতলা।আমার এ সমস্যা আমার বয়স যখন ৮ বছর বয়স।এর সমাধান জানতে চাই। দয়াকরে বলে দিবেন।

3 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (21,525 পয়েন্ট)
রয়েছে! জেনেটিক, নিউরোজেনিক,  স্নায়বিক কারণে হয়ে থাকে।

তোতলামির সব চেয়ে ভালো চিকিৎসা হলো,

স্পিচ থেরাপি। এটির মাধ্যমে নিরাময় সম্ভব হতে পারে। স্পিচ থেরাপি হচ্ছে ভালো করে মুখের উচ্ছারণ বা কথাবার্তা বলতে পারেন না তাদের জন্য। যারা কথা বলতে তোতলায়, শব্দ সঠিক না, মুখের শব্দ স্পষ্ট না তাদের জন্য স্পিচ থেরাপি প্রয়োগ করা হয়। একজন স্পিচ থেরাপিস্টের পরামর্শ নিন।

স্পিচ থেরাপি নেওয়ার পাশাপাশি প্রয়োজনে একজন ফিজিও-থেরাপিস্টের সাহায্যও নিতে পারেন, জিহ্বাকে নানাভাবে ব্যায়াম করিয়ে বাক পদ্ধতি ফিরিয়ে আনতে সহায়ক হবে।
0 টি পছন্দ
করেছেন (6,994 পয়েন্ট)
তোতলামোর সঠিক কারণ আজ পর্যন্ত অজানা।কিছু গবেষনায় এটাকে বংশগত আবার কিছু গবেষনায় জিনগত সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। এটা মস্তিস্কের একটি নিউরোলজিক্যাল সমস্যাও হতে পারে যার কারণ মস্তিষ্ক হতে স্পিচ এর জন্য সংশ্লিষ্ট নার্ভ বা মাংসপেশীতে সিগন্যাল সঠিকভাবে পরিবাহিত হতে না পারা।আর ব্যক্তির ওপর তোতলামোর প্রভাব চরম মানসিক বিপর্যয়। অনেক ক্ষেত্রেই এটি আপনাকে সমস্যায় ফেলে দিতে পারে। তাই কোন অনুষ্ঠানে কথা বলতে হবে এমন পরিবেশ এড়িয়ে চলা। বন্ধুত্ব তৈরি বা টিকিয়ে রাখতে সমস্যা। শিক্ষাগত যাগ্যতা অনুযায়ী চাকরি পেতে বা পদোন্নতিতে বাধা সৃষ্টি করে। চাকরির ইন্টারভিউ, বক্তৃতা বা সঠিকভাবে উপস্থাপনের ক্ষেত্রে ব্যর্থ হওয়া। অনেকেই মনে করেন ভয়, হতাশা, একাকীত্ব, লজ্জা কিংবা মুখের কোনো জড়তাই হয়ত তোতলামোর একমাত্র কারণ। কিন্তু তা ঠিক নয়।সম্প্রতি তোতলামোর চিকিৎসায় স্পিচ এ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপি একটি যুগান্তকারী ও বিজ্ঞানসম্মত চিকিৎসা ব্যবস্থা। তোতলামোর সমস্যা সমাধানে অবশ্যই একজন গ্র্যাজুয়েট স্পিচ এ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপিস্টের শরনাপন্ন হওয়া উচিত যিনি তোতলামোর ধরণ, মাত্রা, সংশ্লিষ্ট ফ্যাক্টরস এবং চিকিৎসা পদ্ধতি নির্ণয়ে বিশেষভাবে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত। সাধারণত তোতলামোর চিকিৎসা নির্ভর করে, আপনার মনোবল বৃদ্ধি এবং আপনার সমস্যা সমাধানে আপনি কতটা বাস্তববাদী। নিজের চিকিৎসার জন্য পর্যাপ্ত সময় এবং সঠিকভাবে কৌশলগুলো রপ্ত করতে পারছেন কিনা। আপনার তোতলামোর সাথে অন্য কোনো রোগ থাকলে তারও সঠিক চিকিৎসা করতে হবে।আপনার চারপাশের পরিবেশ, বন্ধু-বান্ধব এবং পরিবার ও সমাজ থেকে আপনি কতটা সহযোগিতা পাচ্ছেন তার উপরও অনেকটা নির্ভর করে আপনার এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়াটি। বয়স অনুযায়ী স্পিচ এ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপি প্রয়োগের পদ্ধতি ভিন্ন। যেমনঃ গ্রুপ-১: ০-৬ বছর, গ্রুপ-২: ১২ বছর বা তদুর্ধ্ব।সাধারনত দুইভাবে স্পিচ এ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপির তোতলামোর চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়। এগুলো হলো ১. এককভাবে চিকিৎসা ২. দলগতভাবে চিকিৎসা। এককভাবে চিকিৎসার ক্ষেত্রে প্রথমে তোতলামো জনিত সমস্যার প্রকৃতি ও মাত্রা নির্ণয় করা হয়ে থাকে। এরপর সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো বিবেচনা করে কিছু সাধারণ কৌশল শিখে দেয়া হয়। এরপর ব্যক্তি স্পিচ এ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপিস্টের সার্বিক তত্ত্বাবধানে কৌশলগুলোর অনুশীলন করতে থাকবেন। দলগত চিকিৎসা পদ্ধতিতে প্রায় একই ধরনের বা মাত্রার .......
0 টি পছন্দ
করেছেন (3,186 পয়েন্ট)
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডাক্তারের তোতলামি নিয়ে একটি প্রতিবেদন দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন এ প্রকাশিত হয়, আপার জন্য এটার হুবহু কপি করে দিলাম। কথা বলার সময় বেধে যাওয়া, হঠাৎ থেমে যাওয়া, লম্বা স্বরে কথা বলা, আবার কখনো কথা বলার মধ্যে সঙ্গতি বা মিল খুঁজে পাওয়া যায় না, এক শব্দ বার বার বলার চেষ্টাকে তোতলানো বলে। তোতলানো এমন একটি রোগ যা মনের সঙ্গে সম্পৃক্ত। কোনো কোনো সময় তোতলানো বেড়ে যায় আবার কখনো কমে যায়। আপনি যখন খুব কাছের মানুষের সঙ্গে কথা বলেন, যেমন_ বাবা, মা, ভাইবোন অথবা কোনো বন্ধু তখন সমস্যাটা কম হয়। আবার নতুন কোনো পরিবেশে গেলে তোতলানো বেড়ে যায়। যেমন_ অফিসের উপরস্থ কর্মকর্তা বা শিক্ষকের সামনে বা সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তির সামনে কথা বললে সমস্যা বেড়ে যায়। এর কারণ আপনি আবেগপ্রবণ হয়ে যান অর্থাৎ ভয় পান। তাই এ সমস্যা হয়। আপনি কখনো আবেগপ্রবণ হবেন না, অর্থাৎ ভয় পাওয়া, রাগ করা, লজ্জা পাওয়া বা হতাশ হবেন না। এসব কারণে সমস্যা বাড়তে থাকে। নিজেকে সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন করে রাখবেন না, সমাজের ছোট-বড় সবার সঙ্গে মিশবেন এবং কথা বলবেন। কথা বলার সময় তাড়াতাড়ি বলার চেষ্টা করবেন না। ধীরে ধীরে কথা বলুন এবং অন্যের কথা মনোযোগসহকারে শোনেন। আপনি কোনো অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন, হঠাৎ কোনো এক জায়গায় বেধে গেছেন আর বলতে পারছেন না। সমাজের অনেকেই হাসছে বা কিছু লোক ব্যঙ্গ করছে। তখন আপনাকে খুব অসহায় মনে হচ্ছে। আপনি আপনার সমস্যা নিয়ে দুশ্চিন্তা করবেন না। স্পিচ থেরাপি একটি চিকিৎসা পদ্ধতি। এ পদ্ধতির মাধ্যমে ধীরে ধীরে তোতলানো সেরে যায়। মোহাম্মদ হুমায়ুন কবীর স্পিচ থেরাপিস্ট (ইএনটি), এমএসসি (সাইকোলজি), বিএসএমএমইউ ফোন : ০১৯১১৭৪৮০৩৭
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
0 টি উত্তর

304,463 টি প্রশ্ন

393,160 টি উত্তর

119,608 টি মন্তব্য

168,802 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...