বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
151 জন দেখেছেন
"সালাত" বিভাগে করেছেন (2,125 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (2,125 পয়েন্ট)
যদি জানা যায় যে মৃত ব্যক্তি বেনামাযী ছিল, তবে তার জানাযা আদায় করা নাজায়েয। বেনামাযী মৃতের অভিভাবকদের জন্য বৈধ নয়; তার লাশকে মুসলমানদের সামনে জানাযার জন্য উপস্থিত করা। কেননা সে কাফের মুরতাদ। আবশ্যক হচ্ছে, তার জানাযা না পড়া এবং মুসলমানদের গোরস্থান ছাড়া অন্য যে কোন স্থানে গর্ত খনন করে তার লাশ সেখানে নিক্ষেপ করা। তার কোনই মর্যাদা নেই। কেননা ক্বিয়ামত দিবসে তার হাশর হবে ফিরাউন, হামান, ক্বারূন ও উবাই বিন খালাফের সাথে।

কিন্তু যে ব্যক্তির অবস্থা অজ্ঞাত বা সন্দেহপূর্ণ তার জানাযা পড়তে হবে। কেননা আসল হচ্ছে সে মুসলিম এবং নামাযী। যতক্ষণ না প্রমাণিত হবে যে সে মুসলমান নয়। তবে সন্দেহ হলে দু’আর ক্ষেত্রে শর্ত করা যায়। দু’আয় এরূপ বলবে: اللهم إن كان مؤمنا فاغفر له وارحمه “হে আল্লাহ্‌! লোকটি যদি মু’মিন হয় তবে তাকে ক্ষমা কর, দয়া কর...। আর দু’আয় শর্ত করা বৈধ আছে। লে’আনের মাসআলায় স্বামী-স্ত্রী যদি পরস্পরকে ব্যাভিচারের দোষারোপ করে এবং তাদের মধ্যে কেউ চারজন স্বাক্ষী উপস্থিত করতে না পারে, তবে লে’আন করবে। পুরুষ পঞ্চমবারে বলবে, “আমি যদি মিথ্যাবাদী হই, তবে আমার উপর আল্লাহ্‌র লা’নত।” আর স্ত্রীও পঞ্চমবারে বলবে, “আমার উপর আল্লাহ্‌র লা’নত, যদি আমি মিথ্যাবাদী হই।”



বিষয়/প্রশ্নঃ                (৩৪৭)
গ্রন্থের নামঃ              ফাতাওয়া আরকানুল ইসলাম
বিভাগের নামঃ          সালাত
লেখকের নামঃ          শাইখ মুহাম্মাদ বিন সালিহ আল-উসাইমীন (রহঃ)
অনুবাদ করেছেনঃ     আবদুল্লাহ শাহেদ আল মাদানি - আবদুল্লাহ আল কাফী
করেছেন (4,853 পয়েন্ট)

আপু ! ফতওয়াটা খুব বেশি কড়া হয়ে গেল না ! যে নামাজ পড়ে না সে কি মুরতাদ ? সে কি কাফের ? তার জানাযা নামায পড়া যাবে না ? মুসলমানের গোরস্তানে তার জায়গা হবে না ? মাটি খনন করে তাতে তাকে ফেলে দিতে হবে ? বেনামাযী বলতে কি বুঝিয়েছেন ? এক ওয়াক্ত নামায না পড়লেও কি সে বেনামাযী ? নামায কাযা করে ফেললেও সে বেনাযী থেকে যাবে ? শুনুন আপু ! নামায পরিত্যাগকারীর ব্যাপারে দুটি মত রয়েছে। তার একটি বলেছেন আপনি। আরেকটি মত হলো, নামায পরিত্যাগকারী কাফের বলে গণ্য হবে না। ইমাম আবু হানীফা, ইমাম শাফী এবং ইমাম মালেক রাহ. প্রমুখ ইমামদের মত এটি। একমাত্র ইমাম আহমদ রাহ. ভিন্ন মত পোষণ করেছেন। যেটা আপনি বলেছেন। আপনার ফতওয়া গ্রহণ করা হলে আপনি এ দেশেই থাকতে পারবেন না। আপনার আত্মীয় স্বজন পাড়া প্রতিবেশী সবাই মুরতাদ। কোন সমাজে আপনি বাস করবেন ? কাফের মুরতাদদের সাথে তো বন্ধুত্ব করা যায় না। বাংলাদেশকে মুসলিম কান্ট্রি বলা যাবে না। মুরতাদ কান্ট্রি বলতে হবে। কারণ এ দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠরাই মুরতাদ বেনামাযী !

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
23 জানুয়ারি 2014 "সালাত" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Rafia Begum (2,125 পয়েন্ট)
1 উত্তর

311,700 টি প্রশ্ন

401,290 টি উত্তর

123,196 টি মন্তব্য

172,775 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...