371 জন দেখেছেন
"আইন" বিভাগে করেছেন (6,242 পয়েন্ট)

3 উত্তর

1 টি পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (8,638 পয়েন্ট)
মামলার বাদী যদি জিতে যায় তাহলে আদালতের বিবেচনায় নির্ধারিত অংকের ক্ষতিপুরণ দিতে হবে, যদি ক্ষতিপুরণ দিতে ব্যার্থ হয় তাহলে আদালতের বিবেচনা অনুযায়ী তার বিনিময়ে কারা ভোগ করতে হবে। তবে চুরান্ত সিন্ধান্ত দিবে হাইকোর্ট বিভাগের সুপ্রিম কোর্টের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ।

মিলন আহাম্মেদ দীর্ঘ দিন যাবত তথ্য-প্রযুক্তি পেশায় নিয়োজিত। এছাড়াও সৌখিন সাংবাদিকতা, রাজনৈতিক বিশ্লেষন এবং সামাজিক সচেতনতামুলক কর্মকান্ডে জড়িত। যে কোন বিষয়ে অাগ্রহী আর প্রচন্ড ভ্রমন পিপাসু, দেশের বিভিন্ন স্থানসহ এপর্যন্ত ৬ টা দেশে ভ্রমনের অভিজ্ঞতা লাভ করেছেন। যে কোন বিষয় একটু ভিন্ন দৃষ্টিকোন থেকে চিন্তা করতে পছন্দ করেন।
1 টি পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (5,312 পয়েন্ট)
মাহফুজ আনামের বিরুদ্ধে যে মামলাটি করা হয়েছে সেটার পরিনিত কি হবে সেটা আগেই ভাবা মুশকিল।
আইনের ভাষায় এসব মানহানির মামলাফৌজদারি ও দেওয়ানি উভয় প্রকারের হতে পারে। ফৌজদারি আদালতে মানহানি মামলা হলে অভিযুক্ত ব্যক্তি কারাদন্ড কিংবা অর্থদন্ডে দন্ডিত হবেন। পক্ষান্তরে দেওয়ানি
আদালতে মামলা হলে এবং সেই মামলায় বাদী জয়ী হলে
বিবাদী থেকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে অর্থ আদায় করতে
পারেন।
এখানে  যে ধারায় মামলা করা হয়েছে সেটা যদি আদালতের কাছে সত্য বলে প্রমাণিত হয় তাহলে বাংলাদেশ দন্ডবিধি ৫০০ ধারা মতে উনার কারাদণ্ড বা অর্থদণ্ড বা উভয়ই হতে পারে।আঈনটি হলঃ
" ধারা ৫০০। মানহানির শাস্তিঃ
যে ব্যক্তি অন্য কোন ব্যক্তির মানহানি
করে সেই ব্যক্তি বিনাশ্রম কারাদন্ডে-
যাহার মেয়াদ দুই বৎসর পর্যন্ত হইতে
পারে বা অর্থদন্ডে বা উভয়বিধ দন্ডে
দন্ডিত হইবে। "
এখন আদালত যেটা বলবে সেটাই চুড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে।যদি অর্থদন্ডও হয় এবং তিনি সেটা দিতে না চায় তাহলে তার বিনিময়ে তাকে কারাভোগ করতে হবে।

মোঃ মামুনুর রশিদ মিঠু জ্ঞানপিপাসু, ধর্মভীরু, আত্নবিশ্বাসী সাধারন একজন মানুষ। স্বপ্ন তার জীবনে বহুদুর যাবার। প্রথম সোপান রুপে বেছে নিয়েছেন চিকিৎসক হিসেবে মানব সেবার। বই পড়া এবং বিদেশ ভ্রমনে প্রচন্ড আগ্রহ। ইন্টারনেট জগতেও তিনি সুদক্ষ। স্বাস্থ্য সেবামূলক কর্মকান্ডে তার রয়েছে বিস্তৃত পদচারণা। "সুস্বাস্থ্যে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ " গড়ার স্বপ্ন নিয়ে এগুচ্ছেন। তিনি "বিষ্ময় অ্যানসার" এর সাথে আছেন স্বাস্থ্য সহায়ক এবং সমন্বয়ক হিসাবে।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (25 পয়েন্ট)
আদালতে দোষী সাবস্ত্য হলেই জরিমানার সঠিক অংক জানা যাবে। আর আদালতের রায়ের মাঝেই জরিমানা অনাদায়ে জেল খাটার সময় নির্দ্ধারন করা থাকে।
যদি জরিমানা দিতে ব্যার্থ হয়, তাহলে আদালতের বিবেচনা অনুযায়ী, তার বিনিময়ে কারা ভোগ করতে হবে।
টি উত্তর
২১ জানুয়ারি ২০১৯ "ক্যারিয়ার" বিভাগে উত্তর দিয়েছেন Ariful (৬৩৭৩ পয়েন্ট )
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

2 টি উত্তর
15 ডিসেম্বর 2013 "আইন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Limon (81 পয়েন্ট)

288,167 টি প্রশ্ন

373,448 টি উত্তর

112,930 টি মন্তব্য

156,803 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...