বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
451 জন দেখেছেন
"সাধারণ" বিভাগে করেছেন (6,513 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (6,513 পয়েন্ট)
১৮৫৪ সালে ব্রিটিশ গবেষক চার্লস হুইটস্টোন এ সংকেতপদ্ধতি আবিষ্কার করেন | এ পদ্ধতিতে একটি আস্ত বাক্যের প্রতিটি বর্ণকে আলাদা করে এরপর জোড়ায় জোড়ায় বর্ণগুলোকে সাজানো হয় | তারপর ওই বর্ণগুলোকে প্লেফেয়ার ছকের নিয়মানুযায়ী উল্টেপাল্টে দেওয়া হয়। যারা প্লেফেয়ারের ছকটা জানবেন, তাঁরাই কেবল এই কোড ভাঙতে পারবেন | প্রথম বিশ্বযুদ্ধে ব্রিটিশ এবং দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে অস্ট্রেলিয়ান ও জার্মানরা এ কোড ব্যবহার করেছিল | ১৪৭০ সালে ইতালিয়ান গবেষক লিও বাতিস্তা আলবারতি সাইফার ডিস্ক আবিষ্কার করেন | খুব সহজে কোড ভাষা তৈরি করা যায় এতে | ছোট-বড় দুটো চাকতি ঘুরিয়ে তৈরি হয় এর কোড | ছোট চাকতিতে বর্ণমালা আর বড়টিতে থাকবে কোড | চাইলে যে কেউ নিজের মতো করে ঘরে বসেই এমন কোডযন্ত্র বানাতে পারবে | অনেক সাইফার আছে কোড লেখার | যেমন -
১) Reverse Alphabet– A এর স্থানে Z এবং Z এর স্থানে A বসিয়ে
২) Caesar’s Method – এই পদ্ধতিটা রোমান সম্রাট Julius Caesar প্রায়ই ব্যবহার করত বলে এটা Caesar’s Method নামে পরিচিত | ব্যাপারটা বেশ সোজা, ইংরেজি বর্ণমালা A থেকে শুরু না করে যত ঘর খুশি সরিয়ে দিয়ে A এর জায়গায় আরেকটি বর্ণ দিয়ে শুরু করেন | B হবে তার পরের বর্ণ, C হবে তার পরেরটা |
৩) Column Method – আপনার বার্তাতে কয়টি বর্ণ আছে তা হিসাব করেন | এদের সারি ও কলামে সাজাতে কয়টি সারি ও কলাম লাগবে তা হিসাব করে নেন | তারপর উপর থেকে নিচে বার্তাটি সারি-কলাম অনুযায়ী লিখে ফেলেন |
৪) Pigpen Cipher/Freemason’s Cipher মেথড |

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

312,404 টি প্রশ্ন

401,999 টি উত্তর

123,441 টি মন্তব্য

173,112 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...