408 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে করেছেন (6,242 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (8,092 পয়েন্ট)
সম্পাদিত করেছেন
হযরত আদম (আঃ) কে যখন রুহ্ দেওয়া হয় তিনি আস্তে আস্তে চোখ খুললেন।
চোখের সামনে পড়লো মহান সৃষ্টিকর্তার আরশের
দরজা। তার ওপরে লেখা ‘লা-ই লাহা ইল্লালহু মুহাম্মাদুর
রসূলউল্লাহ্’। লেখাটিতে আদম (আ.) এর চোখ পড়ে
গেল। তিনি জিবরাইল আমীন ফেরেস্তার কাছে জানতে
চাইলেন-
আল্লাহপাকের নামের সাথে যে ব্যক্তিটির নাম জুড়া
লাগানো তিনি কে?
জিবরাইল আমীন বললেন-
তিনি আখেরি জমানার নবী, নবীদের নবী, আল্লাহপাকের
খাস রহমত দ্বারা তাকে সৃষ্টি করা হয়েছে তবে প্রেরিত
হোননি এখনও।
জিবরাইল আমীন ফেরেস্তা বলতে
লাগলেন- জীবন চলার পথে যদি আপনি কখনও কোনো ভুল করে ফেলেন সেই ক্ষেত্রে এই নামের ওসিলা ধরে
আল্লাহপাকের কাছে ক্ষমা চাইলে আল্লাহপাক
আপনাকে তখনি ক্ষমা করে দিবেন। আদম (আ.) চিন্তা করলেন, সৃষ্টির দিক দিয়ে আমি হচ্ছি প্রথম। সেই দিক থেকে আমি পিতা। আমার পরে আসবেন তিনি। সেই হিসেবে সে আমার সন্তান। আমি পিতা হয়ে একটা ভুল করলে তাঁর নামে ওসিলা ধরে ক্ষমা চাইবো !
মাত্রই এমনি একটু ভাবনার উদ্রেক দেহের মধ্যে!
সঙ্গে সঙ্গে আল্লাহপাকের নির্দেশ পেলেন
জিবরাইল আমীন ফেরেস্তা। এই মুহূর্তে আদমের
দেহের মধ্য থেকে ঐ অহংকারের অংশটুকু বের করে
আনো। পুতে রাখো বেহেস্তের ঐ কোণায়।
নির্দেশ অনুযায়ী জিবরাইল আমীন আদম (আ.) এর
অপারেশন করলেন। বের করে আনলেন সেই
টুকরোটুকু। পুঁতে রাখলেন বেহেস্তের কোণায়।
কিছুদিন পর সেই স্থান হতেই জন্ম নিল গন্ধম নামক
বৃক্ষ !  তথ্যসূত্রঃচুয়াডাঙ্গার খবর /৪৯৬৮
টি উত্তর
২১ জানুয়ারি ২০১৯ "ক্যারিয়ার" বিভাগে উত্তর দিয়েছেন Ariful (৬৩৭৩ পয়েন্ট )
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

288,373 টি প্রশ্ন

373,684 টি উত্তর

113,025 টি মন্তব্য

156,924 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...