2,329 জন দেখেছেন
"যৌন" বিভাগে করেছেন (346 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (346 পয়েন্ট)

পিসি ব্যায়াম খুবই সহজ! এটি deceptive ও, কারন সামান্য নাড়াছাড়ায় বিশাল লাভ হতে পারে - একই সাথে ভুল পেশীতে এর কাজ হয়ে যেতে পারে। পিসি পেশী অন্যসকল পেশীর মতই, অতিরিক্ত ব্যায়াম এ পেশীর জন্য বেদনাদায়ক হয়ে যেতে পারে।

পিসি পেশী প্রায় ৩ থেকে ৪ ইঞ্চি চওড়া হতে পারে - যখন এটি সম্পুর্ন ডেভলপড্‌। নারীদের ক্ষেত্রে এই পেশীটি যৌনাঙ্গের ২ ইঞ্চি ব্যাসার্ধে গোলাকার অঞ্চল জুড়ে অবস্থিত। এর প্রায় সবগুলো শিরা যৌনাঙ্গে গিয়ে শেষ হয়, যা যৌন অনুভুতির উৎস।

ব্যয়াম শুরুর আগে আপনাকে প্রথমে পিসি পেশী চিনতে হবে। প্রস্রাবের বেগ থাকা অবস্থায় টয়লেটে গিয়ে পা যথাসম্ভব ছড়িয়ে বসুন। এবার প্রস্রাব বন্ধ করুন এবং পুনরায় চালু করুন। অর্থ্যাৎ থেমে থেমে প্রস্রাব করুন। লক্ষ্য করুন কোন পেশীটি সংকোচনের ফলে আপনার প্রস্রাবের বেগ নিয়ন্ত্রন করতে সক্ষম হচ্ছেন। এভাবে অন্ততঃ তিনবার রিপিট করলে আপনার মস্তিস্ক পিসি পেশীর অবস্থান সম্পর্কে পরিষ্কার হবে।নারী তার পিসি পেশী নিশ্চিত করার জন্য কমোডে কিংবা চেয়ারে পা ফাঁক করে বসে যৌনাঙ্গে তর্জনী আঙুল দিয়ে পায়ু এবং যোনীর মাঝের অঞ্চলটি সংকোচন করে দেখতে পারেন। যে অঞ্চল সংকোচনের ফলে যোনীমুখ আঙুলকে আঁকড়ে ধরেছে মনে হয় - তা ই পিসি পেশী। এই ব্যায়াম শুরুর আগে মুত্রথলী সম্পুর্ন খালি করে নিতে হবে।

 

 

 

ব্যায়ম ০১: চেয়ারে বসা অবস্থায় অথবা শুয়ে থাকা অবস্থায় আপনার পিসি পেশীকে আনুমানিক ৩ সেকেন্ডের মত Squeeze (নিষ্পেষণ) করে ধরে রাখুন... তার পর স্বাভাবিক অবস্থায় ছেড়ে দিন। এভাবে পুনরায় করুন। আপনি এ ব্যায়ামটি দিনে যত বার ইচ্ছে ততবার করতে পারেন। তবে সর্বনিন্ম ২৫ বার পুনরাবৃত্বি করা উত্তম। যদি আপনি ব্যায়াম করতে বেশি ব্যাথা অনুভব করেন, তাহলে কয়েক দিনের জন্য বিরতী দিন।

 

 

 

ব্যায়াম ০২: এ পদ্ধতির ব্যায়ামের জন্য পিসি পেশীকে সংকোচন করে আবার পুর্বের অবস্থানে ছেড়ে দিন। একসাথে সর্বনিন্ম দশবার সংকোচন করে ছেড়ে দেয়ার পুনরাবৃত্তি করুন - পেশীটির সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করে। মিলন কালে পুর্নতৃপ্তির অবস্থানে সংকোচনের এ ব্যায়ামটি করলে অধিক কার্যকরী ফলাফল পাওয়া যাবে।

ব্যায়াম ০৩:পিসি পেশীকে যথাসম্ভব সংকোচিত করে ১০ সেকেন্ডের জন্য ধরে রাখুন। সংকোচনের শেষ দিকে (৮/৯ সেকেন্ডের মাথায়) প্রবল এবং গভীর ভাবে Squeeze (নিষ্পেষণ) করুন। তারপর ১০ সেকেন্ডের বিরতি নিন। আবার পুর্বের মত পুনরাবৃত্তি করুন। এভাবে ২০ রিপিট করতে পারেন (যদি ব্যাথা কিংবা অন্যকোন সমস্যা অনুভুত না হয়)।

 

উপরের সবগুলো ব্যায়াম প্রায় অনিদ্দিষ্টকালের জন্য চলমান রাখতে পারেন। এটি দিনের যেকোন সময় যেকোন স্থানে করতে পারেন। এই ব্যয়ামটি করার সময় অন্য কেউ দেখতে পায়না, তাই অফিস কিংবা ক্লাসেও করতে সমস্যা হয়না। পিসি পেশী স্বনিত হত্তয়ার ফলে মিলনকালে স্বামী এবং স্ত্রী উভয়ে অধিক আনন্দলাভে সক্ষম হবেন। পুরুষ এই ব্যায়ামের ফলে তার বীর্যস্থলন নিয়ন্ত্রন করতে সক্ষম হবেন, যার ফলশ্রুতিতে যৌন মিলনের সময় ব্যাপ্ত হবে। সব কিছুর-ই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে। এবং অবশ্যই অবশ্যই অবশ্যই লক্ষ্য রাখবেন আপনি সঠিক পেশীটির ব্যায়াম করছেন (ছবির সাথে মিলিয়ে দখেনু - পিসি পেশী কোনটি?)। অতিরিক্ত কোন কিছুই ভাল নয়। ব্যায়ামের ফলে যদি কোন প্রকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয় তবে অবশ্যই কিছুদিনের জন্য বিরতি দিন।

টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
15 জানুয়ারি 2014 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Samuel Dillon (346 পয়েন্ট)
1 উত্তর
11 সেপ্টেম্বর 2018 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন আবির উদ্দিন (0 পয়েন্ট)
1 উত্তর
02 জানুয়ারি 2014 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন master (963 পয়েন্ট)
1 উত্তর
05 ডিসেম্বর 2013 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন master (963 পয়েন্ট)

277,017 টি প্রশ্ন

360,567 টি উত্তর

107,763 টি মন্তব্য

148,352 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...