66 জন দেখেছেন
"যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (346 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (346 পয়েন্ট)
ডিম্বনিঃস্বরন বলতে বুঝায় নারীর ডিম্বকোষ থেকে পরিপক্ক ডিম্বের বহিঃর্গমন। ডিম্বনিঃস্বরন সাধারনত সংঘটিত হয় ঋজচক্রের ১৪ তম দিনে। তবে ডিম্বনিঃস্বরনের সময় নারীভেদে এমনকি একই নারীর ক্ষেত্রে বিভিন্ন মাসে বিভিন্ন দিনে হতে পারে।

 

ডিম্বনিঃস্বরন লক্ষনগুলো হতে পারেঃ

    তলপেটে খিচুনী: কিছু কিছু মহিলার ক্ষেত্রে ডিম্বনিঃস্বরন সময়কালে পেটে খুব হালকা খিচুনীর সৃষ্টি হতে পারে।
    যোনী থেকে ক্ষরিত রসে পরিবর্তন: ডিম্বনিঃস্বরনের ঠিক আগ মুহুর্তে যোনীপথ থেকে সামান্য অধিক পরিমানে স্বচ্ছ তরল, আঠালো রস নির্গত হতে দেখা যেতে পারে। নিঃস্বরিত তরলটি দেখতে ডিমের সাদা লালার মত দেখতে। যদি ডিম্বটি নিষিক্ত হয়ে যায় (গভধারন হয়ে যায়) তাহলে তরলগুলো সাদা রঙের হতে থাকে অথবা সম্পুর্ন রূপে অদৃশ্য হয়ে যায়।
     শরীরের স্বাভাবিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি: ডিম্বনিঃস্বরন সময়কালে নারীর শরীরের তাপমান স্বাভাবিকের চেয়ে কিছুটা বৃদ্ধি পায়। ডিম্বনিঃস্বরন সয়ম অনুমান করার জন্য প্রতিদিন ঘুম থেকে জাগার পর ডিজিটাল/সুক্ষ তাপমান মাপক যন্ত্র দিয়ে শরীরের তাপমাত্রা মেপে তা একটি গ্রাফ পেপারে অথবা একটি নোটবুকে লিপিবদ্ধ করে রাখুন। সাধারনত শরীরের তাপমাত্রা বৃদ্ধি পাবার দুই-তিন দিন আগের সময়টায় নারী ফার্টাইল (সন্তান উৎপাদন করতে সক্ষম) থাকে।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

222,265 টি প্রশ্ন

283,493 টি উত্তর

76,290 টি মন্তব্য

109,933 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...