974 জন দেখেছেন
"যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (346 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (346 পয়েন্ট)
যদি আপনি কখনো লক্ষ্য করেন যৌনমিলনের সময় আপনার গাল বেয়ে কয়েক ফোঁটা চোখের জল নিচের দিকে গড়িয়ে পড়ছে, আপনি হয়তো সন্দিহান, নিরাশ, অথবা হয়তো আপনি বিব্রত বোধ করছেন। কিন্তু হলফ করে বলা যায় এটা অনেক ভাল বৈবাহিক সম্পর্কেও হতে পারে এবং এটা অস্বাভাবিক নয় যেমনটা আপনি ভাবছেন। প্রকৃতপক্ষে অনেক নারী কোন কারন ছাড়াই মিলনের সময় অজান্তে অবলীলায় কয়েকফোঁটা চোখের জল ঝরান যা তার স্বামীকেও চিন্তিত করে তুলতে পারে।

 অনেকসময় চোখের জলের কারন স্পষ্ট বুঝা যায়, কিন্তু বেশিরভাগ সময়, এটি একপ্রকার রহস্য যুক্ত। রহস্যের দ্বার উম্মোচন করতে মনের দ্বারপ্রান্তে চোখের জল হিসেবে আচড়ে পড়ার অতি সাধারন কারনগুলো নিচে আলোচনা করা হলো:

১. দাম্পত্য সম্পর্কে সমস্যাঃ হয়তো আপনি ওয়াকিবহাল নয় এমন কোন বিষয় নিয়ে আপনার এবং আপনার স্ত্রীর মাঝে সমস্যার ভ্রুন মহিরুহের আকার নিচ্ছে যা তার অবচেতন মনে কান্নার জল হয়ে ঝরছে। যদিও বাহ্যিক দৃষ্টিতে আপনার মনে হচ্ছে আপনাদের সম্পর্ক ভালই যাচ্ছে সেক্ষেত্রে পুর্বে সম্পুর্ন সমাধান না করা কোন অসন্তোষ বরফগোলার মত সম্পর্কের শীতলতায় দিন দিন বড় হয়ে প্রকাশ পেতে পারে - যা যৌন জীবনে বিরুপ প্রভাব ফেলতে পারে। টাকা-পয়সা কিংবা শাড়ী কেনার মত সামন্য বিষয় নিয়ে তর্ক হলেও তা সুসম্পর্কের সংসারে সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে - বিশেষ করে যদি তা আগে থেকেই সমাধানের চেষ্টা না করা হয়। যৌনমিলন অনেক নারীর কাছেই পরম(সাংঘাতিক) আবেগের অনুভুতি, এবং আপনি হয়তো দেখবেন আপনারা যখন যৌনমিলনের মাধ্যমে মনের সাথে মনের সংযোগ করবেন তখন আবেগের সেই পোতাশ্রয়ের দ্বার ভেঙ্গে কান্নার নোনা জলের বর্ষন শুরু হতে পারে।


২. সম্পর্কের টানাপোড়ন / ভাঙার ভয়ঃ বৈবাহিক সম্পর্কের সাথে সম্পর্কিত যে কোন সমস্যা - যেমন সে উদ্বিগ্ন যে আপনি হয়তো তার সাথে সম্পর্ক রাখতে চাচ্ছেন না, কামনা/বাসনা কমে যাওয়া, অথবা যৌনমিলন সম্পর্কে আপনার কিংবা তার পুর্বের মত আগ্রহ না থাকা - এ সকল বিষয় তাকে দুশ্চিন্তার গহীনে নিয়ে যেতে পারে, যা মাঝে মাঝে কন্না হয়ে বহিঃপ্রকাশ পায়। Not surprisingly, vulnerability আত্ম-সম্মানবোধ এবং আত্মবিশ্বাসের আক্রমনাত্মক চিন্তা যৌনজীবনে বিশাল ভুমিকা রাখে। যখন আপনারা শাররীক মিলনের অন্তরঙ্গতায় যুক্ত হন, উপোরেল্লিখিত অনুভুতি সমুহ মনের গহীনে এক সুক্ষ রেখা টানে যা কান্নার জলে বালিশ ভিঁজাতে উদ্ভুদ্ধ করে।
 

৩. হরমোন, হরমোন, হরমোনঃ আমরা সবাই জানি যে মাসিকের অব্যবহিত পূর্ববর্তী লক্ষণ এবং গর্ভধারন নারীকে অতিমাত্রায় আবেগপ্রবন করে তোলে - বিশেষ করে শাররীক মিলনের সময়ে। যৌনমিলনের অন্তরঙ্গতায় হরমোনগুলো উদ্ভাসিত হয়ে উঠে, কার্যকর ভাবে ঝলমলিয়ে এক মিশ্র অনুভুতির সৃষ্টি করে। সামান্য চোখের জল হয়তো কোন ব্যপার নয়, কিন্তু যদি এ জলধারা অতিমাত্রার বন্যায় রূপ নেয় তাহলে অবশ্যই চিকিৎসকের শরনাপন্ন হওয়া জরুরী। জন্মনিরোধক বড়িও নারী অনুভতিতে একপ্রকার ভুমিকা রাখে, তাই যদি নতুন কোন বড়ি কিংবা অন্য কোন জন্মনিরোধক ব্যবহারের ফলে এ মানসিক পরিবর্তন পরিলক্ষিত হয় তাহলে ধরে নিতে পারেন এ কান্নার কারন।

 
কান্না হয়তো যৌনমিলন শেষ হবার পরও পরিলক্ষিত হতে পারে, যখন নারীর শরীরে আবেগীয় অনুভতির ঢেউ এর রেশ বিদ্যমান। আর যদি যৌনমিলনের সাথে সম্পর্কিত কোন শাররীক সমস্যা (যেমন যৌনাঙ্গে ব্যথা, জ্বালা-পোড়া ইত্যাদি) আপনার স্ত্রীর চোখের জলের কারন হয় তাহলে যত শীগ্রই চিকিৎসকের সাথে যোগাযোগ করাই শ্রেয়।
closeWe

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
15 জানুয়ারি 2014 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Samuel Dillon (346 পয়েন্ট)

252,741 টি প্রশ্ন

328,961 টি উত্তর

94,420 টি মন্তব্য

131,126 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
closeWe
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...