360 জন দেখেছেন
"যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (346 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (346 পয়েন্ট)
ষ্টেস্টোসষ্টরন (testosterone) এক প্রকার অনালীগ্রন্থি রস (হরমোন)। এটি নারীর যৌন পিপাসা বৃদ্ধি এবং একই সাথে ত্বকের লাবন্যতা ধরে রাখার কাজে নিয়োজিত। নারী প্রাকৃতিক ভাবেই তার নিজের শরীরে  ষ্টেস্টোসষ্টরন (testosterone) উৎপন্ন করতে সক্ষম। কিন্তু ক্রমশ যখন তারা মধ্যবর্তী বয়সে যায় তখন testosterone এর উৎপাদন এর পরিমান কমে আসে। পুরুষের শরীরে একই উদ্দ্যেশ্যে প্রবাহিত হরমোন এর নাম এন্ড্রোজেনস।

 

শাররীক মিলন কিংবা অন্যকোন ভাবে নারীর শরীরে এন্ড্রোজেনস প্রবেশ করলে তার পাশ্বপ্রতিক্রিয়ায় চুল পড়া, চেহারায় পশম জন্মানো এবং কন্ঠস্বর ভারী হয়ে যেতে পারে।

 

ডক্টর কার্লিস (মেডিক্যাল ডাইরেক্টর, সান্টা মনিকা, ক্যালিফর্নিয়া) এর মতে শরীরে  ষ্টেস্টোসষ্টরন (testosterone) হরমোন মধ্যবয়সী নারীদের জন্য খুবই উপকারী হরমোন। এটি নারীর আবেদনময়ী শাররীক গঠন এবং যৌন আকাঙ্খাকে সমুন্নত রাখে এবং কার্যকরী যৌনজীবন প্রাপ্তিতে সহায়তা করে। যখন শরীরে  ষ্টেস্টোসষ্টরন (testosterone) কমে যায় তখন নারীর ত্বক শুষ্ক হবার সাথে সাথে যোনীমুখ শুকিয়ে আসে। হরমোনের অনিয়ন্ত্রিত ক্ষরনের ফলে এ সময় নারীর যোনী থেকে মিলনকালীন রস নির্গত হয়না, ফলে শাররীক মিলন হয় যন্ত্রনাদায়ক। অনেক নারী ইনজেকশান এবং ঔষধের সাহায্যে শরীরে  ষ্টেস্টোসষ্টরন (testosterone) এর পরিমান বৃদ্ধি করে থাকেন। তবে আমরা এই নোটে প্রাকৃতিক উপায়ে শরীরে  ষ্টেস্টোসষ্টরন (testosterone) উৎপাদন বৃদ্ধির কিছু পদ্ধতি আলোচনা করবো।

 

 

পদ্ধতি ০১ - বনাজি ঔষধের ব্যবহারঃ

অনেক প্রকার ঔষধি উদ্ভিদ আছে যা শরীরে  ষ্টেস্টোসষ্টরন (testosterone) বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। black cohosh এবং saw palmetto ইস্ট্রোজেন হরমোনের মত কাজ করে  ষ্টেস্টোসষ্টরন (testosterone) উৎপন্ন করতে সক্ষম। Maca কে ক্যাপসুল আকারে কিংবা পাউডার করে সেবন করলে এন্ড্রোক্রাইন এবং পিটুহিটারী গ্রন্থির কার্যকারীতা বৃদ্ধি করে। তবে মনে রাখবেন বনজ ঔষধও অনেক সময় ক্ষতিকর হতে পারে - মুলত আপনার যদি বিশেষ কোন উপাদানে এ্যলার্জি থাকে। তাই ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে এসব ঔষধি উদ্ভিদ ব্যবহার করা উচিৎ।

 

 

 

পদ্ধতি ০২ - বনজ পরিপূরক

 

আপনি দুই প্রকার বনজ পরিপূরক গ্রহন করতে পারেন ক) নন-ইস্ট্রোজেনিক লতা-পতা। খ) পিহতোইস্ট্রোজেনিক লতা-পাতা। গবেষনা মতে নন-ইস্ট্রোজেনিক লতা-পাতা হরমোন এর সামঞ্জস্য বিধান করে। যদিও এ জাতীয় বনাজিতে ইস্ট্রোজেনের রাসায়নিক গঠন নেই, তবে এটি এন্ড্রোক্রাইনকে পুষ্টি প্রধান করে যা ইস্ট্রোজেন হরমোন এর সমতা বজায়ে সহায়তা করে।

 

 

পদ্ধতি ০৩ - অধিক হারে সয়া খাদ্য গ্রহন করুন।

 

আপনার খাদ্য তালিকায় সয়া খাদ্য এর পরিমান বাড়িয়ে দিন এবং আঁশযুক্ত খাবার বেশি খান - এই দুই প্রকার খাদ্য প্রাকৃতিক ভাবেই স্টেষ্টোসষ্টরন এর ক্ষরণ বৃদ্ধি করে। নিচের তালিকা থেকে প্রতিদিন কিছু না কিছু খাবার গ্রহনের চেষ্টা করুন - খাবার গুলো হলো:  মূলা, বাঁধাকপি, turnips, ব্রকলী, ঝিনুক, রসুন, ব্রাসেলস স্প্রাউট, ফুলকপি এবং ডিম. তাছাড়া উচ্চ মাত্রার প্রোটিনযুক্ত খাবার, কম চর্বিযুক্ত এবং কম কার্বোহাইড্রেট যুক্ত খাবার নাটকীয় ভাবেই হরমোনের ক্ষরণ বৃদ্ধি করে।

 

 

পদ্ধতি ০৪ - দরকারী fatty acids গ্রহন করুনঃ

 

ষ্টেস্টোসষ্টরন (testosterone) কোলষ্টোরল থেকে উৎপন্ন হয়। আর সে জন্যই দরকারী fatty acids গ্রহন করে ষ্টেস্টোসষ্টরন লেভেল বাড়ানো সম্ভব। Fatty  অ্যাসিড থেকে আসা canola তেল, যৈতুন তেল, মাছ এবং বাদাম থেকে আসে। যদি আপনার শরীর পরিমান মত Fatty acids না পায়, তবে শরীর প্রয়োজনীয় মাত্রায় ষ্টেস্টোসষ্টরন উৎপাদন করতে ব্যর্থ হবে।

 

পদ্ধতি ০৫ - নিয়মিত ব্যয়াম করুনঃ

নিয়মিত শরীরচর্চাও ষ্টেস্টোসষ্টরন বৃদ্ধিতে সহায়ক ভুমিকা পালন করে। কর্মঠ ব্যক্তিগত কার্যক্রম জীবনধারা যৌন অঙ্গসমুহে রক্তপ্রবাহ বৃদ্ধি করে, হাড়ের ঘনত্ব বজায় রাখে এবং মস্তিষ্কে এন্ড্রোফিন লেভেল বৃদ্ধি করে যা যৌনকামের মানসিক চাহিদা বাড়িয়ে তোলে। শরীরচর্চা একজন নারীকে মানসিক প্রশান্তি এবং আত্মসম্মানবোধ বৃদ্ধি করে তার যৌনআকঙ্খাকে সমুন্নত রাখে। শরীরচর্চায় যৌন সুবিধায় ভাল ফলাফল পেতে চাইলে প্রতিদিন ৩০ থেকে ৬০ মিনিট করে সপ্তাহে সর্বনিন্ম ৫ দিন ব্যয়াম করা জরুরী।

 

পদ্ধতি ০৬ - পর্যপ্ত নিদ্রা এবং রিলাক্সঃ

 

নারী তার ষ্টেস্টোসষ্টরন লেভেল বাড়ানোর জন্য পর্যাপ্ত পরিমানে ঘুম এবং রিলাক্সেশান করা প্রয়োজন। অনিদ্রা এবং মানসিক চাপ হরমোন এর ক্ষরণ ব্যহত করে শরীরে হরমোনাল ইম-ব্যলেন্স সৃষ্টি করে। নারী যোগ ব্যয়াম, শ্বাস-প্রশ্বাস গ্রহনের মাধ্যমে মানসিক প্রশান্তি পদ্ধতি, গান সহ অন্যান্য বিনোদনের মাধ্যমে প্রফুল্ল মনে থাকা, শরীর ম্যসেজ, এ্যরোমা থেরাপি ইত্যদির মাধ্যমে প্রশান্ত থেকে তার যৌনঅনীহা দুর করতে পারেন।

 

উপরোক্ত প্রত্যেকটি পদ্ধতিই আবার সরাসরি বয়বৃদ্ধির জনিত চামড়া কুচকে যাওয়া থেকে রক্ষা করতে সক্ষম। ইস্ট্রোজেন হরমোন সরাসরি ত্বকের লাবণ্যতা রক্ষায় কার্যকর এবং চিন্তামুক্ত মন প্রফুল্লতার সাথে সাথে অল্প বয়সে বুড়িয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করে।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
29 ফেব্রুয়ারি 2016 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন সাদমান আসাদুর রনি (9 পয়েন্ট)
1 উত্তর
04 মে 2014 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন pagol (48 পয়েন্ট)

204,175 টি প্রশ্ন

260,513 টি উত্তর

64,914 টি মন্তব্য

96,842 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...