বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
178 জন দেখেছেন
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে করেছেন (11 পয়েন্ট)
আমি কয়েক বছর আগে এক মেয়ে কে মাজারে নিয়ে গিয়ে আল্লাহ কে সাক্ষী রেখে বিয়ে করি অতপর তার সাথে আমার কুরআন ধরেও অনেক ওয়াদা করা হয়।কিন্তু তার সাথে আমার শারীরিক মেলামেশা ছিল না, একদা তার সাথে আমার অনেক ঝগড়া হয় এবং আমি তাকে মুখে তলাক দেই। এর কিছু দিন পর আমি দেশের বাহিরে চলে আসি,  এবং রাগত হয়ে তার কিছু ওয়াদা আমি ভগ্ন করি, এখন আমার কিছু প্রশ্ন
১,  মাজারের বিয়ে কি জায়েজ ছিল,?
২, আমার ওয়াদা ভগ্নের কারনে এখন আমার কি করা উচিৎ আমার  কি এখন কাফররা দিতে হবে,?
৩, আমি ওয়দা করেছিলাম তাকে ছারা আর কাওকে বিয়ে করব না এখন যেহেতু আর আমদের বিয়ে করা হবে না তাহলে কি আমি আরেক মেয়ে কে বিয়ে করতে পারব,?
৪,পরিশিষ্ট এই যে আমি বিশাল ভুল করে ফেলসি তাহলে আমি কি  জাহান্নামী হয়ে গেসি বা এর থেকে মুক্তির উপায় কি,?
বি: আমি কখনওই তার কাছ থেকে আমার অধিকার পাই নাই এমন কি বিয়ের পরও সে আমাকে তার চেহারা দেখাও নাই
করেছেন (17,933 পয়েন্ট)
সবচেয়ে ভালো হয়, আপনি যদি কোন আলেমের সাথে এ ব্যাপারে কথা বলেন। তিনিই আপনাকে ভালো পরামর্শ দিতে পারবেন।
করেছেন (18,123 পয়েন্ট)
আপনার একটা উত্তর আমি দিতে পারি, আর তা হলো আপনার বিয়ে কবুল হয়নি। আল্লাহকে সাক্ষী রেখে বিয়ে করা যায়না, আর মাজারের এমন কোনো বিশেষত্বও নেই যে সেখানে গিয়ে আপনি বিয়ে করলেই তা কবুল হয়ে যাবে।

বিয়ের জন্য অবশ্যই আপনার দুজন পুরুষ অথবা একজন পুরুষ, দুইজন মহিলা সাক্ষী এবং মোহরানা নির্ধারণ করতে হবে।

2 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (952 পয়েন্ট)
আপনার বিয়ে হয়নি। বিয়ের জন্য ৩ টা শর্ত। ১। ওলি নির্বাচন। ২। দেন মোহর নির্দারন। ৩। ইজাব ওকবুল। আল্লাহকে সাক্ষী রেখে বিয়ে করা যায়না, আর মাজারের এমন কোনো বিশেষত্বও নেই যে সেখানে গিয়ে আপনি বিয়ে করলেই তা কবুল হয়ে যাবে। তার সাথে যে সমর্পক করলেন তার জন্য আল্লার কাচে তওবা করুন। তবে কাফ্ফারার দরকার নাই। আল্লাহ পরম দয়ালু।
0 টি পছন্দ
করেছেন (103 পয়েন্ট)
ইসলামের নিয়ম অনুযায়ী আপনাদের বিয়ে হয় নি। কারন বিয়ের শর্তসমূহ এর মধ্যে একটি হলো সাক্ষী। ২জন ছেলে ১জন মেয়ে। বা ২জন মেয়ে ১জন ছেলে। সুতরাং যেহেতু আপনাদের বিয়ে হয় নাই সেহেতু তার সাথে কোন সর্ত মানার ও দরকার নাই। আপনি নামাজ পড়ে আল্লাহর কাছে ক্ষমা চান। আল্লাহ আপনাকে মাফ করে দিবেন।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

306,987 টি প্রশ্ন

395,890 টি উত্তর

120,939 টি মন্তব্য

170,106 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...