বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
872 জন দেখেছেন
"স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে করেছেন (10,983 পয়েন্ট)

2 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (385 পয়েন্ট)
শীতের সময় বাতাস খুব ঠাণ্ডা থাকে। এসময় বাতাসে লক্ষ লক্ষ পানির কণা ভেসে বেড়ায়। বাতাসের তুলনায় আমাদের শরীরের তাপ তখন বেশি থাকে। কথা বলার সময় তাই মুখ দিয়ে গরম বাতাস বের হয়। মুখ দিয়ে বের হওয়া ঐ বাতাস বাইরের ঠাণ্ডা পানিকণার সাথে মিশে ঘন পানিকণায় পরিণত হয়। এই ঘন পানিকণাগুলোকে তখন ধোঁয়ার মতো দেখায়।
0 টি পছন্দ
করেছেন (34 পয়েন্ট)
শীতের দিনে আসলে আমাদের মুখ থেকে যা বের হয় তা ধোঁয়া নয় এটি বাতাসের এক ধরনের ঘনীভবন। আমরা নি:শ্বাসের সাথে যে বাতাসটি গ্রহণ করে থাকি তা হালকা গরম হয়ে বের হয়। আর যখন এটি বাহিরের ঠান্ডা বাতাসকে আঘাত করে তখন তা ঘনীভূত হয়ে ধোঁয়ার সৃষ্টি করে। ঠিক যেমনটি দেখা যায় কোনো তরল পদার্থে উচ্চ তাপমাত্রায় যেভাবে বাষ্পায়িত হয়। আরো সহজভাবে বলা যায়, শীতের সময় বাতাস খুব ঠাণ্ডা থাকে।এ সময় বাতাসে লক্ষ লক্ষ পানির কণা ভেসে বেড়ায়। বাতাসের তুলনায় আমাদের শরীরের তাপ তখন বেশি থাকে। কথা বলার সময় তাই মুখ দিয়ে গরম বাতাস বের হয়। মুখ দিয়ে বের হওয়া ঐ বাতাস বাইরের ঠাণ্ডা পানি কণার সাথে মিশে ঘন পানি কণায় পরিণত হয়। এই ঘন পানি কণাগুলোকে তখন ধোঁয়ার মতো দেখায়।

খেয়াল করে দেখবেন শীতকালে আপনি যখন আপনার হাতের উপরে মুখ দিয়ে বাতাস দিবেন তখন তা অপেক্ষাকৃত গরম অনুভূতি যোগাবে কারণ বাহিরের ঠান্ডা বাতাসের তুলনায় শরীরের গরমের কারণে মুখের বাতাসটি অনেক বেশি গরম থাকে। ফলে বাহিরের ঠান্ডা আবহাওয়ার মাঝে মুখের বাতাসটি আপনাকে গরম অনুভূতি যোগায়।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

359,848 টি প্রশ্ন

455,033 টি উত্তর

142,464 টি মন্তব্য

190,292 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...