1,261 জন দেখেছেন
"সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (-11 পয়েন্ট)
সম্পাদিত করেছেন

25 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (335 পয়েন্ট)
এ দুনিয়াতে আপনার জন্য আল্লাহর
সবচেয়ে বড় নিয়ামত ইসলাম
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (17,455 পয়েন্ট)
আমার জন্য এই দুনিয়ায় আল্লাহর সবচেয়ে বড় নিয়ামত, তিনি আমাকে এই দুনিয়ায় মানুষ রুপে পাঠিয়েছেন। এবং দুনিয়ার একটি শ্রেষ্ঠ জাতি অর্থাত্‍, মুসলিম জাতি করে পাঠিয়েছেন। এবং আমাকে সর্বশ্রেষ্ঠ নবী হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) এর উম্মত বানিয়ে পাঠিয়েছেন।

মোশারফ হোসেন পেশাগতভাবে একজন ইলেক্ট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার। কম্পিউটার-ইন্টারনেট নিয়ে তার অনেক স্বপ্ন থাকলেও, বাস্তবতার তাগিদে সেটা আর পরিপূর্নতা পায়নি । তবে তিনি তার কম্পিউটার-ইন্টারনেট নিয়ে কাজ করার ইচ্ছা এবং আগ্রহকে কখনোই অঙ্কুরে বিনষ্ট হতে দেননি। বিস্ময়ের মাধ্যমে তার এই অতৃপ্ত আগ্রহটা, তৃপ্ততা খুজে পায়। বর্তমানে তিনি বিস্ময়ের সাথে আছেন, সমন্বয়ক হিসেবে।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (17,786 পয়েন্ট)
আমার জন্য আল্লাহর সবচেয়ে বড় নিয়ামত আমার মা-বাবা, অতঃপর আমার জ্ঞান, বুদ্ধি ও বিবেকের স্বাধীনতা।

শাকিল আহমেদ আরিয়ান ইন্টারনেট জগতের সাথে পরিচিত হওয়ার পর থেকে স্রেফ উৎসাহ বশঃত এর গভীর পর্যন্ত জ্ঞান আহরণের চেষ্টা করেছেন, যতই গভীরে গিয়েছেন ততই এর প্রতি আরও আকৃষ্ট হয়েছেন। নিজে জানার আর অন্যকে জানানোর অদম্য ইচ্ছার প্রয়াসে আজ বিস্ময়ের সাথে এতটা জড়িয়ে গেছেন। ভবিষ্যতে একজন কম্পিউটার সাইন্টিস্ট হওয়ার লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন তিনি, আপনাদের সকলের নিকট দোয়াপার্থী। বিস্ময় ডট কমের সাথে আছেন সমন্বয়ক হিসেবে।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (1,036 পয়েন্ট)
এ দুনিয়াতে আমার বড় নিয়ামত আমাকে আল্লাহ তাহলা শেষ নবীর উম্মত ও ইসলাম ধর্মে  পাঠিয়েছেন।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (256 পয়েন্ট)
"পবিত্র কোরআন শরীফ".
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (435 পয়েন্ট)
আমার মা এবং আমার সন্তান । এ দুটোই পৃথিবীতে  সর্বশ্রেষ্ঠ নেয়ামত
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (52 পয়েন্ট)
আমার ভাই আমার ভাইকে আমি খুব ভালোবাসি
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (-201 পয়েন্ট)
পিতামাতার খিদমত সবচেয়ে বড় নিয়ামত
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (906 পয়েন্ট)
আমার মা'বাবা, এবং আমি একজন মুস্লিম।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (359 পয়েন্ট)
আমার জন্য এই দুনিয়ায় আল্লাহর সবচেয়ে বড়
নিয়ামত ইসলাম| এবং আমাকে এই দুনিয়ায় একজন মুসলিম জাতি
করে পাঠিয়েছেন|
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (127 পয়েন্ট)
আমার জীবন। কারণ তিনি আমাকে পৃথিবীতে না পাঠালে কোনো নিয়ামতই আমার কোনো কাজে লাগতো না।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (1,158 পয়েন্ট)
আমাকে মুসলিম হিসেবে সৃষ্টি করেছেন।  নবী করিম (সা) উম্মত করেছেন এবং পবিত্র কুরআন ধর্মগ্রন্থ হিসেবে দিয়েছেন।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (1,622 পয়েন্ট)
আমার সুস্সতা।। কারন, মুসা(আঃ) আল্লাহকে বললেন,যে আমি যদি তোমার জায়গায় ও তুমি যদি আমার জায়গায় হতে তাহলে তুমি কি চাইতে।। আল্লাহ বললেন সুস্থতা কামনা করতাম(সংক্ষপিত).
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (-569 পয়েন্ট)
আমার জন্য সবচেয়ে বড় নিয়ামত আমার মা. . . .
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (522 পয়েন্ট)
এই দুনিয়াতে আমার জন্য আল্লাহ তা য়ালার সবচেয়ে বড় নিয়ামত হল আমাকে আজ পর্যন্ত বাঁচিয়ে রেখেছেন।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (-999,494 পয়েন্ট)
এ দুনিয়াতে আমার জন্য আল্লাহর সবচেয়ে বড় নিয়ামত পবিত্র "কুরআন শরিফ" এবং আমার "মা"
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (659 পয়েন্ট)
তিনি আমাকে এই সুন্দর পৃথিবীতে পাঠিয়েছে।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (23 পয়েন্ট)
এই পৃথিবীতে আমার জন্য আল্লাহর সবচেয়ে বড় নিয়ামত হচ্ছে-
মহান আল্লাহ-তায়ালা তার ইবাদাতের জন্য আমাকে সৃষ্টি করেছেন।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (1,359 পয়েন্ট)
এই দুনিয়াতে আমার কাছে সবচাইতে বড় নিয়ামত আমি একজন মুসলিম এবং আমি একজন সুস্থ মানুষ।
তাছাড়া ও আমি শেষ নবীর উম্মত।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (112 পয়েন্ট)

আল্লাহ রাববুল আলামীনের অশেষ নিয়ামত ও বিশেষ নিয়ামত

 

কুরআন মজীদের উল্লেখযোগ্য  অংশজুড়ে আছে আল্লাহর নিয়ামতের বর্ণনা। এই নিয়ামত তাঁর পরিচয় প্রকাশ করে। তিনি যে রাববুল আলামীন, তিনি যে বিশ্ব জগতের সৃষ্টিকর্তা ও পালকর্তা-এটা বোঝা যায় তাঁর নিয়ামতরাজির মাধ্যমে।

বিভিন্ন সূরায় বিভিন্নভাবে আল্লাহ তাঁর বান্দাদেরকে সচেতন করেছেন তাঁর দান ও নেয়ামত সম্পর্কে। মানবের উত্তম আকৃতি, রূপ-যৌবন, জ্ঞান-বুদ্ধি, সহায়-সম্পদ, সন্তান-সন্ততি সবকিছুই আল্লাহর দান। এই পৃথিবী ও পৃথিবীর সকল বস্ত্ত মানবের জন্যই সৃজিত। ইরশাদ হয়েছে, (তরজমা) তোমাদের জন্য সৃষ্টি করেছেন যা কিছু আছে ভূমিতে।

আরো ইরশাদ করেছেন, (তরজমা) তোমরা যদি আল্লাহর নিয়ামত গণনা করতে আরম্ভ কর তবে তা গণনা করে শেষ করতে পারবে না।

তবে একটি নিয়ামত এমন আছে, যা স্বয়ং আল্লাহ তাআলা বিশেষ ভঙ্গিতে উল্লেখ করেছেন। সূরা আলইমরানে (আয়াত : ১৬৪) আল্লাহ তাআলা বলেন, (তরজমা) অবশ্যই আল্লাহ ঈমানদারদের প্রতি অনুগ্রহ করলেন, যখন তাদের মধ্যে প্রেরণ করলেন একজন রাসূল তাদেরই মধ্য থেকে। তিনি তাদের সামনে তিলাওয়াত করেন তাঁর (আল্লাহর) আয়াতসমূহ। তাদেরকে পরিশুদ্ধ করেন এবং তাদেরকে কিতাব ও হিকমত শিক্ষা দান করেন। নিঃসন্দেহে তারা ইতিপূর্বে ছিল প্রকাশ্য গোমরাহীতে।

হ্যাঁ, আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মানবজাতির জন্য সবচেয়ে বড় নিয়ামত, যে আয়াতে আল্লাহ পৃথিবীর সকল বস্ত্তর কথা বলেছেন সেখানেও যে ভূমিকা দেননি তা দিয়েছেন রাসূলের কথা (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলার সময়। পৃথিবীর সব নেয়ামত আল্লাহরই দান, তাঁরই অনুগ্রহ, কিন্তু রাসূলের কথা বলার সময় আল্লাহ বললেন, নিশ্চয়ই ঈমানদারদের প্রতি অনুগ্রহ করেছেন।

এ ভূমিকাটুকু এজন্যই দেওয়া হয়েছে, যেন মানুষ আল্লাহর রাসূলের মর্যাদা

বোঝে এবং তাঁর শিক্ষা ও আদর্শকে শিরোধার্য করে।

বস্ত্তত এটি এমন এক নেয়ামত, যার উপলব্ধি ও মূল্যায়নের দ্বারাই মানুষ সর্বোচ্চ সৌভাগ্য লাভ করে। তার অন্তর্দৃষ্টি খুলে যায়, জীবন ও জগতের প্রকৃত মূল্য সে অনুধাবন করে এবং স্রষ্টার সাথে তাঁর সম্পর্ক স্থাপিত হয়। ফলে তার মানব-জনম স্বার্থক হয়। যেহেতু মুমিনরাই এই

মহানিয়ামতের প্রকৃত সুফল লাভ করেন তাই আল্লাহ তাআলা রাসূলের আগমনকে মুমিনদের জন্য অনুগ্রহ বলে উল্লেখ করেছেন।

এ আয়াতে বলা হয়েছে, খাতামুন্নাবিয়ীন হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর মাধ্যমে মানবজাতি কী কী সম্পদ লাভ করেছে।

এক. আল্লাহর আয়াত

দুই. তাযকিয়া

তিন. কিতাব

চার. হিকমত।

নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর উপর আল্লাহ তাআলা কুরআন মজীদ নাযিল করেছেন। তিনি তা তিলাওয়াত করেছেন উম্মতের সামনে। তাঁর মাধ্যমেই উম্মত লাভ করেছে আল্লাহর কালাম, আকাশের বাক্যমালা। কুরআন মজীদের যে বাক্যগুলো আজ আমরা তিলাওয়াত করি-চিন্তা করুন-হুবহু এই বাক্যগুলোই জিব্রীল আ.-এর মাধ্যমে নাযিল হয়েছে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর উপর। এরপর তিনি তা উম্মতের সামনে তিলাওয়াত করেছেন। কল্পনা করা যায়-আমাদের মতো পাপী বান্দা তিলাওয়াত করছি আল্লাহর কালাম!

তাযকিয়া বা পরিশুদ্ধির বিষয়টি এত ব্যাপক যে, তার ক্ষেত্রগুলো সংক্ষেপে বলতে গেলেও গ্রন্থ রচনার প্রয়োজন হবে। কারণ মানব-জীবনের সকল অঙ্গন তাযকিয়ার ক্ষেত্র। মানুষের মন-মানস, বোধ-বিশ্বাস, কাজকর্ম, আচার-ব্যবহার, আখলাক-চরিত্র-সবই তাযকিয়ার আওতাভুক্ত।

তৃতীয় ও চতুর্থ বিষয় হচ্ছে, কিতাব ও হিকমা। কিতাব অর্থ আলকুরআন আর হিকমা অর্থ সুন্নাহ।

আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কুরআন মজীদের ব্যাখ্যা উম্মতকে জানিয়েছেন। কুরআনী বিধানের প্রায়োগিক রূপ শিখিয়েছেন। কুরআন মজীদে বলা হয়েছে, সালাত আদায় কর এবং যাকাত প্রদান কর। এখন সালাত ও যাকাতের ব্যবহারিক রূপ আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামই শিক্ষা দান করেছেন।

এভাবে সওম, হজ্ব, তাসবীহ-তাহলীল, যিকর-দুআ ইত্যাদি সকল ইবাদতের পদ্ধতি আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম উম্মতকে শিখিয়েছেন।

সামাজিকতা, লেনদেন, আইন-বিচার, রাষ্ট্রপরিচালনা, সন্ধি-যুদ্ধ ইত্যাদি বিষয়ে কুরআনী আহকাম ও বিধানের পূর্ণাঙ্গ ও প্রায়োগিক ব্যাখ্যা উম্মতকে দান করেছেন।

পাশাপাশি আরো অনেক বিধান ও শিক্ষা নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম দান করেছেন, যেগুলো মুহাদ্দিসীনে কেরামের পরিভাষায় সুন্নাতে মুসতাকিল্লা নামে পরিচিত। এটিও হাদীস ও সুন্নাহর একটি উল্লেখযোগ্য অংশ এবং মানব-জীবনের বিভিন্ন অঙ্গনের সাথে সংশ্লিষ্ট।

মোটকথা, জীবনাদর্শের সকল ক্ষেত্রে আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর এই যে গভীর অবদান সে সম্পর্কে চিন্তা করলে দিবালোকের ন্যায় স্পষ্ট হয়ে যায় তাঁর আবির্ভাব মানবজাতির জন্য সবচেয়ে বড় আসমানী নিয়ামত। এই নিয়ামতের মূল্যায়ন ও শোকরগোযারির উপরই নির্ভর করে মানুষের শান্তি ও নিরাপত্তা এবং মুক্তি ও সফলতা। 

সুতরাং এই নিয়ামত যখন কুরআন মজীদে উল্লেখিত হবে তখন আলাদা গুরুত্বের সাথে উল্লেখিত হওয়াই তো স্বাভাবিক।

আল্লাহ তাআলা আমাদেরকে অনুধাবন করার তাওফীক দিন। আমীন।
closeWe

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
05 অগাস্ট "ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Shompa (-13 পয়েন্ট)
1 উত্তর
14 মার্চ 2014 "কৃষিবিজ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Injamamul Islam (4,705 পয়েন্ট)
1 উত্তর
30 মার্চ 2014 "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন salehahmed (labib) (10,662 পয়েন্ট)

245,950 টি প্রশ্ন

317,824 টি উত্তর

90,135 টি মন্তব্য

126,459 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
closeWe
  1. হিরোস অব এইটিন

    775 পয়েন্টস

  2. Sheikh Lemon

    684 পয়েন্টস

  3. হাফিজ রাহমান

    609 পয়েন্টস

  4. Arafat Hossain Mizan

    508 পয়েন্টস

  5. allahorgolam

    494 পয়েন্টস

* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...