664 জন দেখেছেন
"ইন্টারনেট" বিভাগে করেছেন (6,242 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (227 পয়েন্ট)

সাইবার অপরাধ কার্যক্রমের অকাট্য বিবরন সহ, যুক্তিগত ব্যখ্যা যা বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে সাংখ্যিক প্রমানাদি ( Digital Evidence ) জড়ো করে প্রক্রিয়াগত ভাবে অপরাধ বা অপরাধীকে সনাক্ত করে।
বাংলাদেশে এখনও সাইবার ফরেনসিক চালু হয়নাই তবে সরকারি ভাবে এর প্রতিষ্ঠায় চেষ্টা করা হচ্ছে। বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলে এবং কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে এ ধরনের ল্যাব স্থাপন করা হবে। ইন্টারনেটে অপরাধ করলে অপরাধীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারবেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। সে জন্য সাইবার অপরাধের বিচারের বিষয়টি ভ্রাম্যমাণ আদালত আইনের আওতায় আনা হচ্ছে। একই সঙ্গে প্রণয়ন করা হচ্ছে সাইবার সিকিউরিটি গাইডলাইন ও তথ্য নিরাপত্তা পলিসি গাইডলাইন। সাইবার অপরাধ রোধে 'বাংলাদেশ কম্পিউটার সিকিউরিটি রেসপন্স টিম (বিডি-ক্রিস্ট)' নামে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটিকে ন্যাশনাল কো-অর্ডিনেশন সেন্টার হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা হবে। তারা আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে সহযোগিতার ভিত্তিতে জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকিস্বরূপ সাইবার আক্রমণ পর্যবেক্ষণ, ব্লক প্রতিহতকরণ এবং যেকোনো হোস্টেড ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বিভিন্ন সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট পর্যবেক্ষণ করবে।

টি উত্তর
২১ জানুয়ারি ২০১৯ "ক্যারিয়ার" বিভাগে উত্তর দিয়েছেন Ariful (৬৩৭৩ পয়েন্ট )
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি উত্তর

287,925 টি প্রশ্ন

373,220 টি উত্তর

112,815 টি মন্তব্য

156,634 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...