বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
1,574 জন দেখেছেন
"পুষ্টিগুণ" বিভাগে করেছেন (10,983 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (216 পয়েন্ট)

শরবত থেকে শুরু করে ভাতের পাত - সবখানেই লেবুর সমান আনাগোনা। স্বাদে যেমন এটি অনন্য, তেমনি রয়েছে এর অনেক ভেষজ গুণও। লেবুর খোসাও ফেলনা নয়। খাওয়া তো যায়ই, বিশেষ পদ্ধতিতে খোসা থেকে তেলও সংগ্রহ করা যায়। এই তেল বিভিন্ন খাবার, সাবান, এয়ারফ্রেশনার ও সুগন্ধী তৈরিতে ব্যবহৃত হয়। খুসকির সমস্যাতেও লেবুর তেল বেশ কার্যকরী।

লেবুর উত্‍পত্তিস্থল কোথায় তা এখনো অজানা। তবে ধারণা করা হয় লেবু প্রথম জন্মে ভারতের আসাম, উত্তর বার্মা এবং চীনে। লেবুর নানা গুণের কারণে পারস্যের অধিবাসীরা নিয়ে যায় এবং সেখান থেকে লেবু ছড়িয়ে পড়ে সারা ইউরোপে। লেবু Rutaceae গোত্রের কাঁটাযুক্ত উদ্ভিদ। এর বৈজ্ঞানিক নাম Citrus। এর বিভিন্ন প্রজাতি রয়েছে। তবে আমরা সাধারণভাবে Citrus lemon কে লেবু হিসেবে চিনি। Citrus গনের অন্য যেসব প্রজাতি আমাদের কাছে পরিচিত সেগুলো হলো জাম্বুরা, কমলা, মাল্টা।

লেবু প্রাকৃতিক ও চাষ দুভাবেই হয়। বেশিরভাগ চাষযোগ্য লেবুগাছ আকারে ছোট ঝোঁপের মতো হয়ে থাকে। লেবুর পাতা আকারে ছোট ও যৌগিক। পাতা সবুজ, চকচকে ও উপবৃত্তাকার। পাতায় সুগন্ধ রয়েছে। কাণ্ড শাখা প্রশাখা যুক্ত এবং অসংখ্য কাঁটা বিদ্যমান। ফুলের রঙ সাদা এবং পাপড়ি থাকে চারটি করে। ফুলেও সুন্দর গন্ধ হয়। লেবুগাছে একইসাথে ফুল এবং পাকা ফল থাকতে পারে।

লেবু একটি রসালো ফল। খোসা ছাড়া প্রতি ১০০ গ্রাম লেবুতে রয়েছে -

এনার্জি ২৯ ক্যালরি
কার্বোহাইড্রেট ২.৫ গ্রাম
ফ্যাট ০.৩ গ্রাম
প্রোটিন ১.১ গ্রাম
থিয়ামিন ০.০৪ মিলিগ্রাম
রিবোফ্লেভিন ০.০২ মিলিগ্রাম
নিয়াসিন ০.১ মিলিগ্রাম
প্যানটোথেনিক অ্যাসিড ০.১৯ মিলিগ্রাম
ভিটামিন বি৬ ০.০৮ মিলিগ্রাম
ফলেট ১১ আইইউ
কলিন ৫.১ মিলিগ্রাম
ভিটামিন সি ৫৩ মিলিগ্রাম
ক্যালসিয়াম ২৬ মিলিগ্রাম
আয়রন ০.৬ মিলিগ্রাম
ম্যাগনেসিয়াম ৮ মিলিগ্রাম
ম্যাংগানিজ ০.০৩ মিলিগ্রাম
পটাশিয়াম ১৩৮ মিলিগ্রাম
জিংক ০.০৬ মিলিগ্রাম
ফসফরাস ১৬ মিলিগ্রাম

লেবু নানান গুণে ভরপুর একটি ফল। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি। এছাড়া লেবুতে রয়েছে প্রচুর মিনারেল। এর অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল ও অ্যান্টিভাইরাল মৌসুমি বিভিন্ন সংক্রামক রোগ যেমন ঠাণ্ডা, সর্দি, কাশি, ইনফ্লুয়েঞ্জার মতো রোগের বিরূদ্ধে প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তোলে। লেবুতে রয়েছে উচ্চমাত্রার পটাশিয়াম যা উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে হৃদরোগ প্রতিরোধ করে।

অকাল বার্ধক্য ও মুটিয়ে যাওয়া রোধ করতেও লেবুর জুড়ি নেই। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা ত্বকে বার্ধ্যকের ছাপ বিলম্বিত করে এবং ক্যান্সার প্রতিরোধ করে। এর ভিটামিন সি ক্যালসিয়াম শোষণে সাহায্য করে। ফলে হাড় থাকে মজবুত।

আয়ুর্বেদ চিকিত্‍সাশাস্ত্রেও লেবুর রয়েছে নানাবিধ ব্যবহার। দাঁতের বিভিন্ন সমস্যা যেমন ব্যথা, মাঢ়ির প্রদাহ, রক্তপড়া বন্ধে লেবু ব্যবহৃত হয়। এছাড়া সকালবেলা খালিপেটে এক গ্লাস লেবুপানি দূরে রাখে অনেক রোগবালাই।

তথ্যসূত্র: উইকিপিডিয়া

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

3 টি উত্তর
01 সেপ্টেম্বর "পুষ্টিগুণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন মোঃসাইফুল ইসলাম আজাদ (30 পয়েন্ট)
2 টি উত্তর
11 নভেম্বর "বিজ্ঞান ও প্রকৌশল" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন হরিপদ (22 পয়েন্ট)
1 উত্তর
09 সেপ্টেম্বর "খাদ্য ও পানীয়" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন MD Nabab Ali (689 পয়েন্ট)
0 টি উত্তর
25 ডিসেম্বর 2017 "খাদ্য ও পানীয়" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন শাওন হালদার আদি (20 পয়েন্ট)

358,606 টি প্রশ্ন

453,612 টি উত্তর

142,076 টি মন্তব্য

189,893 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...