বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
983 জন দেখেছেন
"রূপচর্চা" বিভাগে করেছেন (10,983 পয়েন্ট)
বন্ধ করেছেন
এই চিরকূট সহকারে বন্ধ করা হয়েছে : যথেষ্ট উত্তর এসেছে।

4 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (5,626 পয়েন্ট)
নিয়মিত গোসল করুন। পরিষ্কার পরিছন্ন থাকার চেষ্টা করুন। আর ভিটামিন সি জাতীয় খাবার বেশী করে খান।
প্রয়োজনে সিভিট ট্যাবলেট ও খেতে পারেন।
মোঃ মামুনুর রশিদ মিঠু জ্ঞানপিপাসু, ধর্মভীরু, আত্নবিশ্বাসী সাধারন একজন মানুষ। স্বপ্ন তার জীবনে বহুদুর যাবার। প্রথম সোপান রুপে বেছে নিয়েছেন চিকিৎসক হিসেবে মানব সেবার। বই পড়া এবং বিদেশ ভ্রমনে প্রচন্ড আগ্রহ। ইন্টারনেট জগতেও তিনি সুদক্ষ। স্বাস্থ্য সেবামূলক কর্মকান্ডে তার রয়েছে বিস্তৃত পদচারণা। "সুস্বাস্থ্যে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ " গড়ার স্বপ্ন নিয়ে এগুচ্ছেন। তিনি "বিষ্ময় অ্যানসার" এর সাথে আছেন স্বাস্থ্য সহায়ক এবং সমন্বয়ক হিসাবে।
0 টি পছন্দ
করেছেন (8,332 পয়েন্ট)
ঘরোয়া
উপাদান দিয়ে খুশকি দূর করার কিছু পন্থা এখানে
দেওয়া হল।
লেবু
দুই টেবিল-চামচ লেবুর রস মাথার ত্বকে ভালোভাবে
ম্যাসাজ করতে হবে। মিনিট খানেক অপেক্ষার পর
অল্প পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে চুল ধুয়ে নিতে
হবে। খুশকির সমস্যা পুরোপুরি দূর না হওয়া পর্যন্ত
এইভাবে চুলে লেবু ব্যবহার করা যাবে।
আপেল সাইডার ভিনেগার
কুসুম গরম পানির সঙ্গে খানিকটা আপেল সাইডার
ভিনেগার মিশিয়ে নিতে হবে। পুরো মিশ্রনের
পরিমাণ নির্ভর করকে চুলের ঘনত্ব এবং দৈর্ঘ্যের
উপর। পুরো চুল এই মিশ্রণে ভিজিয়ে কিছুক্ষণ আলতো
হাতে মাথার ত্বকে ঘষে নিতে হবে। এরপর চুল ধুয়ে
ফেলতে হবে। তবে খেয়াল রাখতে হবে গোসলের
আট থেকে দশ ঘণ্টা আগে যেন চুলে অ্যাপেল
সাইডার ভিনেগার ব্যবহার করা হয়।
তেল
মাথার ত্বকে আর্দ্রতা ধরে রাখতে চুলের গোড়ায়
খুব ভালোভাবে অলিভ অয়েল ম্যাসাজ করতে হবে।
এতে চুলের গোড়ায় জমে থাকা খুশকি আলগা হয়ে
আসবে।
অন্যদিকে চুলে নিয়মিত নারিকেল তেল ব্যবহার
করলে ফাঙ্গাসের কারণে খুশকির প্রকোপ কমাতে
সাহায্য করবে। তাছাড়া চুলে গোড়ায় ময়েশ্চারাইজ
করে খুশকি এবং চুলকানি থেকে রেহাই পেতে
সাহায্য করবে নারিকেল তেল। মাথার ত্বকে তেল
ম্যাসাজ করে ২০ মিনিট পরে ভালো করে চুল ধুয়ে
ফেলতে হবে।
0 টি পছন্দ
করেছেন (5,841 পয়েন্ট)
লেবু- লেবুর চাইতে খুশকির ভালো প্রতিরোধক আর হতেই পারেনা। আর তাই প্রতিদিন ২ টেবিলচামচ লেবুর রস খুশকিতে লাগান। এরপর সেটাকে ধুয়ে নিন পানি দিয়ে। এরপর এক চামচ লেবুর রস ভালো করে মেখে নিন চুলেও। পদ্ধতিটি অনুসরন করতে থাকুন আপনার মাথার খুশকি একেবারে অদৃশ্য হয়ে যাওয়ার আগ অব্দি
0 টি পছন্দ
করেছেন (3,911 পয়েন্ট)

খুসকি দূর করারআসছে না আসছে করেও কিন্তু শেষেমেষ শীত এসে হাজির। নানা রকম সবজিতে ভরে গেছে বাজার। তাই শীত মানেই জমিয়ে খাওয়ার আয়েস। তবে ত্বক ও চুলের ক্ষেত্রে শীতকালটা কিন্তু মোটে‌ও সুবিধার নয়।

শীতকালে চুল হয়ে ওঠে রুক্ষ-সুক্ষ। উপরন্তু বাড়তি পাওনা খুসকি। শীতকালে মাথার স্কাল্প শুষ্ক হয়ে ওঠে আর তাতেই এই সমস্যা। এছাড়া বিভিন্ন কারণেও খুসকি হতে পারে। যেমন-ব্যাকটেরিয়াল বা ফানগাল ইনফেকশন। চুলে ঠিক মত শ্যাম্পু না করা ও চুল ঠিক মত না আঁচড়ানো অথবা পুষ্টির অভাবে, এইসব কারণ হতে পারে খুসকির।
তবে আজকাল বাজার ভরে গেছে অ্যান্টি ড্যানড্রাফ শ্যাম্পুতে। কিন্তু এই শ্যাম্পুতে থাকা কেমিকেল খুসকি তো তাড়ায় কিন্তু চুল হারিয়ে ফেলে তার প্রাণ। অন্যদিকে আবার শ্যাম্পু ব্যবহার করা বন্ধ করলে ফিরে আসে খুসকি। তাই চিরতরের জন্য এই খুসকি বিদায় করতে আপনাদের জন্য রইল সহজ কিছু ঘরোয়া উপায়।

১) ২ চা চামচ গোলমরিচ গুঁড়ো আর দইয়ের একটি মিশ্রণ বানিয়ে ভাল করে চুলের গোরায় লাগান। এক ঘণ্টা রেখে কোন মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

২) অলিভ ওয়েল বা তিল তেল সারা রাত চুলে লাগিয়ে সকালে স্নান করার ১ ঘণ্টা আগে চুলের গোরায় লেবুর রস লাগিয়ে কিছুক্ষণ পর ভাল করে চুল ধুয়ে ফেলুন।

৩) ভিনিগার আর জল সমপরিমাণে মিশিয়ে সারারাত চুলের গোরায় লাগিয়ে রেখে দিন। সকালে মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৪) সারারাত মেথি ভিজিয়ে রাখুন, সকালে ভাল করে বেটে নিয়ে চুলের গোরায় লাগান। ২,৩ ঘণ্টা রেখে শিকাকাই বা রিঠা দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৫) আপেল থেকে তার রস বার করে নিন। এই রস দিয়ে ভাল করে চুল ম্যাসাজ করুন, খুসকির হাত থেকে মুক্তি পাবেন।

৬) বিট মূলের রস,ভিনিগার আর আদার রস একসঙ্গে মিশিয়ে ভাল করে চুলের স্কাল্পে ম্যাসাজ করে কিছুক্ষণ পরে ধুয়ে ফেলুন। দ্রুত খুসকি দুর হবে।

৭) অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারীর পাতা বেটে ১৫-২০ মিনিট চুলে লাগিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৮) চুলে শ্যাম্পু করার সময় এক চা চামচ বেকিং সোডা ভাল করে শ্যাম্পুর সঙ্গে মিশিয়ে তা দিয়ে চুল ধোবেন। একবার শ্যাম্পু করলেই তফাত বুঝতে পারবেন |

৯) নিম পাতার অনেক রকম অ্যান্টি ব্যায়োটিল, অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টি ফানগাল গুণ আছে, তাই যাদের অনেক খুসকি আছে তারা নিমের পাতা বেটে আধ ঘণ্টা মাথায় লাগিয়ে রাখুন,পরে ধুয়ে ফেলুন।  সপ্তাহে দু’বার লাগান। আর খুসকি থাকবে না।

১০) রসুন যা সহজেই পাওয়া যায়, খুসকি সারানোর জন্য এটা খুবই ভাল। রসুনের পেস্ট বানিয়ে চুলে অধঘন্টা লাগিয়ে রাখুন পরে কোন মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

359,887 টি প্রশ্ন

455,074 টি উত্তর

142,476 টি মন্তব্য

190,309 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...