বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
358 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে করেছেন (983 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (983 পয়েন্ট)
জিলহজ্বের চাঁদ দেখার পর হতে কুরবানীর আগ পর্যন্ত নিজের নখ, চুল, মোচ, নাভীর নিচের পশম ইত্যাদি না কাটা মুস্তাহাব। হযবরত উম্মে সালমা (রাঃ) হতে বর্ণিত, রাসুল (সাঃ) ইরশাদ করেন, “তোমরা যদি জিলহজ্ব মাসের চাঁদ দেখতে পাও আর তোমাদের কেউ কুরবানী করতে ইচ্ছে করে তবে যেন স্বীয় চুল ও নখ কাটা থেকে বিরত থাকে।” (সহীহ মুসলীম ১৯৭৭, আবু দাওদ শরীফ ২৪৩৭), । যে ব্যাক্তি কুরবানী দিতে সক্ষম নয় সে ব্যাক্তিও এ আমল করলে তার ফজিলত পাবে। ফজিলত হল, ”যে ব্যাক্তি এই আমল করবে সে আল্লাহ তায়ালার পক্ষ হতে পূর্ন এরটি কুরবানীর সওয়াব পাবে। (মুসনাদে আহমাদ ৬৫৭৫, আবু দাউদ শরীফ ২৭৮৯, নাসায়ী শরীফ ৪৩৬৫) । অতএব মুসলিম হাদিস অনুযায়ী যারা কুরবানী করার ইচ্ছে পোষণ করছেন, তারা জিলহজ্ব মাসের চাঁদ দেখা যাওয়ার পর থেকে হাত পায়ের নখ, মাথার চুল ও অবাঞ্ছিত চুল ইত্যাদি কাটবে না, যদি ৪০ দিন না হয়ে থাকে এগুলো না কাটার মেয়াদ। যদি ৪০ দিনের বেশি হয়ে থাকে, তাহলে এসব কেটে ফেলা আবশ্যক। নতুবা ১০ দিন পর কুরবানীর পর পরিস্কার করবে। এ কাজটি সুন্নাত।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
14 মে "সিয়াম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন জেবু (68 পয়েন্ট)
1 উত্তর
07 মে "সিয়াম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Nabiul Islam Nabin (23 পয়েন্ট)

306,906 টি প্রশ্ন

395,802 টি উত্তর

120,902 টি মন্তব্য

170,073 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...